corona virus btn
corona virus btn
Loading

ঘোষণা না করলেও বিলেতেই তাঁর শেষ বিশ্বকাপ, ধোনির থেকে আরও ভাল পারফরম্যান্সের আশায় দেশবাসী

ঘোষণা না করলেও বিলেতেই তাঁর শেষ বিশ্বকাপ, ধোনির থেকে আরও ভাল পারফরম্যান্সের আশায় দেশবাসী
Photo Source: Twitter
  • Share this:

#বার্মিংহ্যাম: এবার কি ধোনির ফিরিয়ে দেওয়ার পালা ? তিনি কিছু বলেননি। কিন্তু অনেকেই বলছেন, বিলেতেই তাঁর শেষ বিশ্বকাপ। তাই ১৩০ কোটির ভারত যেন বিরাটের দলে মাহির মধ্যে দেখতে পাচ্ছে সচিনের ছায়া।

ঘসা কাঁচের নিচেও আট বছর আগের ২ এপ্রিলের এই ছবিগুলি এখনও উজ্জ্বল। উজ্জ্বল ওয়াংখেড়ের সেই রাতের সব মুহূর্ত, অনুভূতি। আর উজ্জ্বল এই মানুষটি। সচিন রমেশ তেন্ডুলকর। ভারতীয় ক্রিকেটের মাহি ওয়ের এক সফল দিশারি ৷

১৯৮৯ থেকে ২০১১। ভারতীয় ক্রিকেটে ইট-কাঠ-পাথরের ইতিহাসে তাঁর অভিজ্ঞতা উপচে পড়ে। তাঁর ব্যাটেই বিজ্ঞাপনে মুখ ঢাকত ভারতীয় ক্রিকেট। তাঁর ব্যাটেই আলো ফিরত গুমোট ইনিংসের মাঝে। তবুও এই মানুষটার কাছে একটা বিশ্বকাপ ছিল অধরা। আর এখানেই প্রিয় পাজির অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়েছিলেন নেতা ধোনি। রাঁচির এক মধ্যবিত্তের স্বপ্ন সফল হয়েছিল তারার আকাশে উল্কার মতো। দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে বিশ্ব জয়। চার বছরের মধ্যে ঘরের মাঠে কাপ জয়ের ডবল। এটাই তো মহেন্দ্র সিং ধোনি। আগ্রাসণ নয়, ঠান্ডা মাথায় কৌশলের নীতি।

সময়টা খুব কঠিন ছিল। একদিনের দল থেকে মুছে গিয়েছিল সৌরভ-দ্রাবিড়ের নাম। তবু ছিলেন সচিন। এটা ঠিক, ভারতীয় দলে ওইসময় থেকে যাওয়ার জন্য সচিনের কোনও খুঁটির প্রয়োজন ছিল না। তবুও তাঁর ব্যাটিং নিয়ে দলে বাইরে প্রশ্ন উঠছিল। তাতেও, অধিনায়ক ধোনির দস্তানায় তুলোর মতো ছিলেন মাস্টার ব্লাস্টার। কারণ, প্রিয় পাজি ছিলেন তাঁর আইডল। আর সচিন-সহ বিশ্বজয়ী ভারত এটা অনেক বেশি ওজন বহন করেছিল অধিনায়ক ধোনির কেরিয়ারে।

আট বছর পর...ভারত থেকে লন্ডনে। সময়ের বদল হয়েছে। মানসিকতার পরিবর্তন হয়েছে। তবুও একশো কোটি ভারতীয়র চোখে এবার ধোনি যেন সচিন। অধিনায়ক বিরাট। কিন্তু মস্তিকের নাম মহেন্দ্র সিং ধোনি। আলোচনা যাই হোক না কেন, সিদ্ধান্তে তাঁর সার্ভিস অপরিহার্য। সবার কাছে তিনি মাহি ভাই। কিন্তু একমাত্র বিরাটের কাছে তিনি এমএস।

এই বিশ্বকাপে ধোনি ব্যাটিং মন্থরতা এখন আলোচনার কেন্দ্রে। পাত্তা দেন না বিরাট। সমালোচকদের উড়িয়ে দেন কভারের উপর দিয়ে। বিরাট চোখে মহেন্দ্র সিং ধোনি আধুনিক ক্রিকেটের কিংবদন্তি। ধোনির চোখে ঠিক যেমন ছিলেন সচিন। তিনি বলেননি। কিন্তু অনেকেই বলছেন এই বিলেতেই শেষ। তাই কি এবার মাহির ফিরিয়ে দেওয়া পালা। অপেক্ষা করবে লর্ডস। অপেক্ষা করবে ভারতবাসী। ক্যালেন্ডারের পাতা উল্টে অবশ্যই ১৪ তারিখ আসবে। কিন্তু তা আসার আগেই ধোনি যেন সচিন। ব্যবধান ঠিক আট বছরের.... ৷

First published: July 2, 2019, 3:45 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर