Home /News /sports /

ওঁর এই অবস্থার জন্য আমি দায়ী, সব দোষ নিজের ঘাড়ে নিলেন ওয়ার্নারের স্ত্রী

ওঁর এই অবস্থার জন্য আমি দায়ী, সব দোষ নিজের ঘাড়ে নিলেন ওয়ার্নারের স্ত্রী

David Warner & Candice Warner

David Warner & Candice Warner

  • Share this:

    #সিডনি: বল টেম্পারিং কাণ্ড নিয়ে তোলপাড় অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট মহল ৷ নির্বাসিত হওয়ার পর সাংবাদিক সম্মেলনে ক্ষমা চাওয়ার সময় বার বার কান্নায় ভেঙে পড়েছেন স্টিভেন স্মিথ ও ক্যামেরন ব্যানক্রাফ্ট ৷ শনিবার ডেভিড ওয়ার্নারও নিজেকে আচকে রাখতে পারেননি ৷

    এড়িয়ে গিয়েছেন সাংবাদিকদের বেশ কিছু প্রশ্ন ৷ আর তা নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে ৷ এ বার তাঁকে আড়াল করতে গিয়ে সব দোষ নিজের ঘাড়ে নিয়ে নিয়েছেন ওয়ার্নার-পত্নী ক্যানডিস ফ্যালজন।

    এ নিয়ে অস্ট্রেলিয়ান সংবাদ মাধ্যমকে ওয়ার্নার পত্নী বলেন, ‘‘আমি জানি এমন অনেক কিছু ছিল যা সে চাইলেও বলতে পারেনি। সে সত্যি সত্যি সংগ্রাম করছে। মানসিকভাবে সে যেন অক্ষম হয়ে পড়েছে। আমার মনে হচ্ছে, ওয়ার্নারের এই অবস্থার জন্য আমিই দায়ী। যা ভেবে আমি শেষ হয়ে যাচ্ছি।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘ আমি নিজেও তাকে পর্যাপ্ত সমর্থন দিতে পারছি না। কারণ আমি নিজেও যে অক্ষম। আমার অবস্থাও ভালো নয়। যদি মানুষ বুঝতো... গত একমাস ধরে যা ঘটছে তারা যদি একটু হলেও সহমর্মিতা দেখাতো।’’

    আরও পড়ুন: ক্রিকেট কিট ফেলে দিয়েছেন বাবা : স্টিভ স্মিথ

    কিন্তু কেন ক্যানডিস নিজেকেই দায়ী করছেন? আর গত এক মাস ধরে কী ধরনের মানসিক যন্ত্রণার মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন ডেভিড ওয়ার্নার?

    এর পিছনে রয়েছে, তৃতীয় টেস্টে কেপ টাউনে ঘটে যাওয়া এক ঘটনা। যার সূত্রপাত ক্যানডিস নিজেই। ওয়ার্নারের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর আগে রাগবি খেলোয়াড় সনি বিল উইলিয়ামসের সম্পর্ক ছিল ক্যানডিসের। যা নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার সমর্থকদের বিদ্রুপের মুখে পড়তে হয় ক্যানডিসকে।

    কিংসমিড টেস্ট চলাকালীন দর্শকদের একটা অংশ বিলের মুখোশ পরেও মাঠে এসেছিল। সব মিলিয়ে প্রচণ্ড চাপে ছিলেন ক্যানডিস এবং ওয়ার্নার। আর সে জন্যই ওয়ার্নার মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত ছিলেন বলে মনে করেন তার স্ত্রী। যদিও তিনি বল টেম্পারিং কাণ্ড নিয়ে স্বামীর ভুলের জন্য কোনো অজুহাত দেননি, শুধুমাত্র সে সময়কার মানসিক অবস্থার বর্ণনা দিয়েছেন।

    এ নিয়ে ক্যানডিস বলেন, ‘মুখোশ পরা লোকগুলোকে দেখে সবাই আমার দিকে তাকিয়ে হাসছিল এবং তারা আমাকে নিয়ে গান গাচ্ছিল। ওয়ার্নার খেলা শেষে রুমে ফিরে এসে দেখে আমি বেডরুমে কাঁদছি আর মেয়েরা আমার দিকে তাকিয়ে রয়েছে। সে এটা নিতে পারেনি।

    তবে যখন কেপটাউন বা পোর্ট এলিজাবেথে ছিলাম আমরা, ডেভ বাড়ি আসতো তার সামনেই আমি শক্ত থাকতাম এবং খেলার বিষয়েই তার সঙ্গে ব্যস্ত থাকতাম।’

    First published:

    Tags: Australia, Ball Tampering, Candice Warner, David Warner

    পরবর্তী খবর