ব্যর্থতা অব্যাহত! বেঙ্গালুরুর কাছে হার এস সি ইস্টবেঙ্গলের

লাল-হলুদ ডিফেন্সে হানা সুনীল ছেত্রীর photo/ isl Twitter

অন্য দিন ব্রাইট অসাধারণ ফুটবল খেলেন। কিন্তু এদিন শক্তপোক্ত রাহুল ভেকে এবং গতিশীল উদান্ত সুবিধে করতে দিলেন না এই নাইজেরীয় ফুটবলারকে। বক্সের মধ্যে যোগ্য স্ট্রাইকারের অভাব এদিনও স্পষ্ট চোখে পড়ল

  • Share this:
    এস সি ইস্টবেঙ্গল- ০  বেঙ্গালুরু - ২ (ক্লেইটন, দেবজিত- আত্মঘাতী)

    #গোয়া: এফ সি গোয়ার বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচে দীর্ঘক্ষন বিপক্ষে দশ জনে পেয়েও জিততে ব্যর্থ হয়েছিল এস সি ইস্টবেঙ্গল। পিছিয়ে থেকে ড্যানি ফক্সের গোলে শেষ পর্যন্ত ড্র করতে পেরেছিল লাল হলুদ। কিন্তু মঙ্গলবার তিলক ময়দানে বেঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে হেরেই বসল রবি ফাওলারের দল। এর ফলে প্লে অফার আশা ধাক্কা খেল বেশ খানিকটা। ম্যাচের এগারো মিনিটে প্রথম গোল হজম লাল হলুদের। নীচ থেকে আসা একটা উঁচু বল হেড করে নামিয়ে দিলেন সুনীল ছেত্রী। সুনীলের থেকে এক হাত লম্বা স্কট বলের নাগাল পেলেন না। ব্রাজিলীয় ফুটবলার ক্লেইটন বলটা বুদ্ধি করে বা পায়ের ভলিতে জালে জড়িয়ে দিলেন। দেবজিৎ নড়বার জায়গা পাননি।

    প্রথমার্ধের শেষে দ্বিতীয় গোল বেঙ্গালুরুর। রাহুল ভেকে ডানদিক থেকে দুর্দান্ত ওভারল্যাপ করে উঠে এলেন। বক্সের মধ্যে তাঁর সেন্টার থেকে পরাগ চলতি বলে ভলি নিলেন। বল পোস্টে লেগে বেরিয়ে এসেও দেবজিতের পায়ে লেগে জড়িয়ে গেল জালে। দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণের চাপ বাড়াতে মাগোমা, পিলকিংটন, মিলন সিং - দের নামালেন রবি। কিন্তু লাভের লাভ হল না। আসলে অন্য দিন ব্রাইট অসাধারণ ফুটবল খেলেন। কিন্তু এদিন শক্তপোক্ত রাহুল ভেকে এবং গতিশীল উদান্ত সুবিধে করতে দিলেন না এই নাইজেরীয় ফুটবলারকে। বক্সের মধ্যে যোগ্য স্ট্রাইকারের অভাব এদিনও স্পষ্ট চোখে পড়ল। অ্যারনকে প্রথম থেকেই স্ট্রাইকারের ব্যবহার করলেন রবি। কিন্তু তিনি সম্পূর্ণ ব্যর্থ। আজকের ম্যাচের আগে পর্যন্ত ইস্টবেঙ্গল জিততে পারেনি চার ম্যাচে। আট ম্যাচে জয়ের খোঁজ পায়নি বেঙ্গালুরু। এমন অবস্থায় দুটি দল মাঠে নামল।

    লাল হলুদের তুলনায় অনেক বেশি মরিয়া ছিল নওশাদ মুসার দল। সুনীল ছেত্রী নীচে নেমে দলের ডিফেন্সকে সাহায্য করলেন। প্রচণ্ড পরিশ্রম করলেন। ম্যাচের সেরা তিনি। শেষদিকে দুই দলের ফুটবলাররা মাথা গরম করে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়লেন। লিগ তালিকায় পনেরো ম্যাচ খেলে তেরো পয়েন্ট নিয়ে দশ নম্বরে রইল ইস্টবেঙ্গল। ছয় নম্বরে উঠে এল সুনীল ছেত্রীর বেঙ্গালুরু।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: