খেলা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

স্টেইনম্যানের জোড়া গোলেও জয় অধরা লাল-হলুদের

স্টেইনম্যানের জোড়া গোলেও জয় অধরা লাল-হলুদের
জোড়া গোল করে লাল-হলুদের নায়ক জার্মান স্টেইনম্যান

মাগোমার পর জোড়া গোল পেলেন স্টেইনম্যান। কিন্তু সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বস্তু যেটা,সেই জয় এদিনও অধরা রইল।

  • Share this:

এস সি ইস্টবেঙ্গল - ২

(স্টেইন ম্যান)

চেন্নাইন এফসি -২

( চাং তে, রহিম)

#গোয়া: লিগ টেবিলে সবার নীচে। সবকিছু করেও জয়ের দেখা না পাওয়া, সমালোচনার ঝড়ে বিদ্ধ হতে হতে কোণঠাসা হয়ে পড়া। হতাশা ছাড়া প্রাপ্তি শূন্য। আইএসএল খেলার খবর শুনে লাল-হলুদ সর্মথকরা যতটা খুশি হয়েছিলেন, নিজেদের প্রিয় দলের খারাপ পারফরমেন্সে ততটাই মন খারাপ ছিল তাঁদের। আশা করা গিয়েছিল বক্সিং ডে লাল হলুদ ব্রিগেডের জন্য নতুন ভোর নিয়ে আসবে। এস সি ইস্টবেঙ্গল ভাল খেলল বটে, কিন্তু জয় সেই অধরা। ১৩ মিনিটে চাংতে গোল করে এগিয়ে দিলেন চেন্নাইনকে। বাঁদিক থেকে আলেকজান্ডার ফ্লিক করে বলটা বাড়িয়েছিলেন মিজো ফুটবলারের উদ্দেশ্যে।লাল হলুদের রাইটব্যাক সুরচ্ন্দ্রকে গতিতে পরাস্ত করে দেবজিৎকে হার মানালেন চাংতে।

আরও একবার গোল করার সুযোগ এসেছিল চেন্নাইনের সামনে। রহিম আলির হেড বাঁচিয়ে দেন বিকাশ জাইরু। তবে ৩৬ মিনিটের মাথায় সহজতম সুযোগ নষ্ট করেন রফিক। স্টেনম্যান একটা দারুন ওভারহেড বল বাড়িয়েছিলেন। রফিক গোলরক্ষককে ইনসাইড করে কাটিয়ে নিয়ে বা পায়ে গোলে ঠেলতে যাবেন, দীপক টাংরি শেষমুহূর্তে বল বের করে দিলেন। তবে মাগোমাকে বক্সের মধ্যে ফেলে দেওয়া হলে পেনাল্টির দাবি ওঠে।

দ্বিতীয়ার্ধে শুরু থেকেই দুটি পরিবর্তন নেন রবি। জেজে এবং রহিন সিংকে নিয়ে আসা হয়। অবশেষে গোল শোধ করে এস সি ইস্টবেঙ্গল। বিকাশের কর্নার থেকে দুরন্ত হেড করে ১-১ করেন লাল-হলুদের স্টেনম্যান। কয়েক মিনিট পর আবার লিড নেয় চেন্নাইন। কৃভেলারো, আলেকজান্ডার হয়ে রহিম আলির শটে ২-১ করে চেন্নাইন। আবার প্রত্যাঘাত করে লাল হলুদ। সেই বিকাশের কর্নার ফক্স হেড করে নামিয়ে দিলে ফাঁকায় দাঁড়ানো জার্মান স্টেনম্যান গোল করতে ভুল করেননি। ২-২ হয়ে যায় ম্যাচ।

অবশ্য এর কয়েক মিনিট আগেই  চেন্নাইন আরও একটা সুযোগ পেয়েছিল। সিফোভিচের হেড ক্রসপিস লেগে ফিরে আসে। আলেকজান্ডারের শট সেভ করেন দেবজিৎ। ড্যানি ফক্সের প্রশংসা করতে হয়। দ্বিতীয়ার্ধে বেশ কয়েকবার দলের আক্রমণে সাহায্য করলেন ডিফেন্স থেকে ওপরে উঠে এসে। আশি মিনিটের মাথায় মিলন সিং ভুল করে ফেলেছিলেন। গোল করার মত পরিস্থিতি তৈরি করে ফেলেছিল চেন্নাইন। আলেকজান্ডারের শট কয়েক ইঞ্চির জন্য বাইরে চলে যায়। তবে অ্যাটাক, কাউন্টার অ্যাটাকে ম্যাচটা বেশ উপভোগ্য হল। চারটি গোল হল। মাগোমার পর জোড়া গোল পেলেন স্টেইনম্যান। দ্বিতীয়ার্ধে ফর্মেশন বদলে রবি ফাওলার মিডফিল্ড শক্তিশালী করলেন, ম্যাচে ফিরল লাল হলুদ। কিন্তু সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বস্তু যেটা,সেই জয় এদিনও অধরা রইল।

Published by: Rohan Chowdhury
First published: December 26, 2020, 10:05 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर