ব্রাইটের অসাধারণ ফুটবলেও ১০ জনের গোয়াকে হারাতে পারল না ইস্টবেঙ্গল

ব্রাইটের অসাধারণ ফুটবলেও ১০ জনের গোয়াকে হারাতে পারল না  ইস্টবেঙ্গল
দুর্দান্ত ব্রাইট, গোয়ার বিরুদ্ধে ড্র ইস্টবেঙ্গলের PHOTO/ISL TWITTER

গোয়ার এক নম্বর ডিফেন্ডার ইভান গঞ্জালেস এদিন ছিলেন না। আদিল খান এবং মহম্মদ আলি, দুই ভারতীয় ডিফেন্ডার দুর্দান্ত ফুটবল খেললেন। মূলত এই দুজনের জন্যই জয়সূচক গোল করতে পারল না এস সি ইস্টবেঙ্গল। দীর্ঘক্ষন একজন কম নিয়ে খেলেও ম্যাচটা শেষ পর্যন্ত ড্র রাখতে পারা গোয়ার নৈতিক জয়।

  • Share this:
    এফসি গোয়া -১

    (ইগর)
     
    এস সি ইস্টবেঙ্গল - ১
    (ফক্স)
    #গোয়াঃ শেষ ম্যাচে হারতে হয়েছিল মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে। শুক্রবার এফসি গোয়ার বিরুদ্ধে জেতার মনোভাব নিয়েই শুরু থেকে নেমেছিল এস সি ইস্টবেঙ্গল। ৪-৪-২ ছকে এদিন প্রথম থেকেই রবি ফাওলার দলে রেখেছিলেন জেজেকে। স্বপ্নের মতো শুরু করার সুযোগ পেয়েছিল লাল হলুদ। ম্যাচের মাত্র উনিশ সেকেন্ডে নারায়ন দাসকে বক্সের মধ্যে ফেলে দেন মহম্মদ আলি। পেনাল্টি দিতে দুবার ভাবেননি রেফারি। গোল করতে পারলেন না পিলকিংটন। ধীরাজ উল্টোদিকে পড়ে গেলেও বল গোলের অনেক বাইরে মেরে বসলেন তিনি। শুরুতেই এই ঘটনায় ছন্দপতন হল লাল হলুদের। কিন্তু ব্রাইট, মাগোমা, অঙ্কিতরা দমে না গিয়ে লড়াই করছিলেন। প্লেসিং ফুটবল খেলে বিপক্ষ দলের ওপর চাপ তৈরি করার চেষ্টা করছিল লাল হলুদ। আটত্রিশ মিনিটে দুর্দান্ত গোল করে ইগর এগিয়ে দেন গোয়াকে। নগুয়েরার পাস থেকে গোলরক্ষক দেবজিতকে কাটিয়ে নিয়ে বল জালে জড়ান স্প্যানিশ স্ট্রাইকার। এই নিয়ে চলতি টুর্ণামেন্টে দশ গোল হয়ে গেল তাঁর।
    এর কয়েক মিনিট আগে অর্তিজের দুর্দান্ত ফ্রি-কিক গোলে ঢোকার মুখে সেভ করেন লাল হলুদ গোলরক্ষক। প্রথমার্ধেই রফিকের পরিবর্তে অঙ্কিতকে নামান রবি। রানার জায়গায় নিয়ে আসা হয় অঙ্গুকে। ৬৫ মিনিটে গোল শোধ করে দেয় ইস্টবেঙ্গল। পিলকিংটনের কর্ণার বক্সে ভেসে এলে নারায়ন দাস শট নেওয়ার চেষ্টা করেন। বল ড্রপ করে একটু উঠে যায়। ড্যানি ফক্স বল জালে জড়াতে ভুল করেননি। এর পরেই দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে লালকার্ড হয়ে মাঠ ছাড়তে হয় এডু বেদিয়াকে। সত্তর মিনিটের কিছু পরে জেজের জায়গায় হরমনকে নিয়ে আসেন লাল-হলুদ কোচ। ভাগ্য ভাল থাকলে নেমেই গোল পেয়ে যেতে পারতেন। দুর্দান্ত সেভ করেন ধীরজ। ম্যাচের শেষ পনেরো মিনিট দশ জনের গোয়ার ওপর সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপাল ইস্টবেঙ্গল। বিশেষ করে ব্রাইট। অসাধারণ ফুটবল খেললেন এই নাইজেরীয়। যখনই বল ধরলেন, দু, তিন জনকে টপকে যাচ্ছিলেন অনায়াসে। তাঁর সঙ্গে মাগোমা এবং নারায়ন দাস বাঁদিক থেকে পরপর আক্রমণ তুলে আনছিলেন গোয়া বক্সে।
    গোয়ার এক নম্বর ডিফেন্ডার ইভান গঞ্জালেস এদিন ছিলেন না। আদিল খান এবং মহম্মদ আলি, দুই ভারতীয় ডিফেন্ডার দুর্দান্ত ফুটবল খেললেন। মূলত এই দুজনের জন্যই জয়সূচক গোল করতে পারল না এস সি ইস্টবেঙ্গল। দীর্ঘক্ষন একজন কম নিয়ে খেলেও ম্যাচটা শেষ পর্যন্ত ড্র রাখতে পারা গোয়ার নৈতিক জয়। ব্রাইট যা ফুটবল খেললেন, তাতে লাল-হলুদের ম্যাচটা জেতা উচিত ছিল। লিগ টেবিলে খুব একটা কিছু বদলাল না। দশ নম্বরেই রইল লাল হলুদ।
    Published by:Rohan Chowdhury
    First published:

    লেটেস্ট খবর