রয় কৃষ্ণ, মার্সলিনো জুটিতে পিছিয়ে পড়েও নাটকীয় জয়ে এটিকে মোহনবাগানের

রয় কৃষ্ণ, মার্সলিনো জুটিতে পিছিয়ে পড়েও নাটকীয় জয়ে এটিকে মোহনবাগানের
কৃষ্ণ, মার্সেলিনো জুটিতে দুর্দান্ত জয় এটিকে মোহনবাগানের PHOTO/ISL Twitter

রয় কৃষ্ণ। জোড়া গোল করলেন, অসাধারণ ঘুরে দাঁড়ানোর ম্যাচে সেরা নির্বাচিত হলেন। আর একজনের কথা বলতেই হবে। মার্সেলিনো পেরেরা। সবুজ মেরুন জার্সিতে প্রথম ম্যাচেই গোল করে দলের জয়ে অবদান রাখলেন।

  • Share this:
    এটিকে মোহনবাগান -৩ (রয় কৃষ্ণ ২, মার্সলিনো)

    কেরালা ব্লাস্টার্স - ২ (হুপার, কোস্টা)

    #গোয়া: বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে একটা শ্লোগান এখন খুব জনপ্রিয়। কৃষ্ণ কৃষ্ণ হরে হরে! বাকিটা নয় বলার প্রয়োজন নেই। মোহনবাগান সমর্থকরা এই স্লোগান আগেও দিতেন, মাঝে কিছুদিন বন্ধ ছিল দলের খারাপ খেলার ফলে। তবে রবিবারের পর আবার এই স্লোগান দিতেই পারেন সর্মথকরা। সৌজন্যে রয় কৃষ্ণ। জোড়া গোল করলেন, অসাধারণ ঘুরে দাঁড়ানোর ম্যাচে সেরা নির্বাচিত হলেন। আর একজনের কথা বলতেই হবে। মার্সেলিনো পেরেরা। সবুজ মেরুন জার্সিতে প্রথম ম্যাচেই গোল করে দলের জয়ে অবদান রাখলেন। আশি মিনিট পর্যন্ত মাঠে থাকলেন। মূলত ফিজি-ব্রাজিল জুটিতেই নাটকীয় জয় পেল এটিকে মোহনবাগান।

    এভাবেও ফিরে আসা যায়! সত্যি, রবিবার গোয়ার মাঠে এটিকে মোহনবাগান বনাম কেরালা ব্লাস্টার্স ম্যাচটা নাটকীয় পর্যায়ে পৌঁছলো। ম্যাচের শুরু দেখে বোঝা যায়নি শেষটা এরকম হবে। চোদ্দো মিনিটে কেরালার স্ট্রাইকার গ্যারি হুপার গোল করে এগিয়ে দেন দলকে। প্রায় চল্লিশ গজ দূর থেকে করা এই গোলটা চলতি টুর্নামেন্টের অন্যতমসেরা। প্রথমার্ধে দাপট ছিল দক্ষিণের দলের। জর্ডান মারের শট অরিন্দম দুর্দান্ত ভঙ্গিতে না বাঁচালে ব্যবধান বাড়িয়ে নিতে পারত কেরাল। সহজ সুযোগ মিস করেন সাহল। দ্বিতীয়ার্ধে কোস্টা ব্যবধান বাড়ান কেরলের পক্ষে। কর্ণার থেকে জটলার মধ্যে বল জালে জড়িয়ে দেন তিনি। এক্ষেত্রে পুরো মোহনবাগান ডিফেন্স দর্শকের ভূমিকায় ছিল।

    দুটি পরিবর্তন করেন হাবাস। নিয়ে আসা হয় মানবীর এবং প্রণয়কে। কিছুটা খেলায় ফেরে সবুজ মেরুন। ষাট মিনিটে মণবিরের বাড়ানো বল দুর্দান্ত কন্ট্রোল করে কেরলের ডিফেন্ডার জিক্সনকে বোকা বানিয়ে গোল করেন মার্সেলিনো। পাঁচ মিনিট পর এই ব্রাজিলীয় ফুটবলার লম্বা বল বাড়ান মানবীরকে। বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে হাতে লাগিয়ে ফেলেন বিপক্ষ দলের এক ডিফেন্ডার। পেনাল্টি থেকে বল জালে জড়িয়ে দিতে ভুল করেননি রয় কৃষ্ণ। পিছিয়ে থেকে দুগো ল ফিরিয়ে দেওয়ার পর আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠে চ্যাম্পিয়নরা। কোমল থাটালকে নামিয়ে গতি বাড়ান হাবাস। একের পর এক আক্রমণ আছড়ে পড়তে থাকে কেরালা ডিফেন্সে। দুই দলের ফুটবলার রাই মাথা গরম করলেন। শুধু দ্বিতীয়ার্ধে আটজন ফুটবলার হলুদ কার্ড দেখলেন। কার্ড দেখে এটিকে মোহনবাগানের কার্ল ম্যাক হিউ পরের ম্যাচে নেই।

    শেষপর্যন্ত নির্ধারিত সময়ের তিন মিনিট আগে জ্বলে ওঠেন রয় কৃষ্ণ। দুর্দান্ত ভঙ্গিতে গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন তিনি। এই জয়ের ফলে আপাতত লিগ টেবিলে দুই নম্বরে রইল এটিকে মোহনবাগান। মুম্বইয়ের সঙ্গে ব্যবধান কমিয়ে দাঁড়াল তিন পয়েন্টের। চোট সমস্যায় এদিন ছিলেন না এডু গার্সিয়া এবং ডেভিড উইলিয়ামস। শেষ ম্যাচে নর্থইস্ট ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে হার অনেক প্রশ্ন তুলে দিয়েছিল। সমালোচনা হচ্ছিল বিস্তর। সেখান থেকে বিচার করলে আজ দুবার পিছিয়ে পড়েও

    শেষপর্যন্ত যে জয় ছিনিয়ে আনল সবুজ মেরুন শিবির তার প্রশংসা করতেই হয়।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: