প্রতিপক্ষ হায়দরাবাদ, জিতলে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলা নিশ্চিত এটিকে-মোহনবাগানের

প্রতিপক্ষ হায়দরাবাদ, জিতলে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলা নিশ্চিত এটিকে-মোহনবাগানের

Photo-File

১৮ গোল করে ইতিমধ্যেই প্রতিপক্ষের ত্রাস হয়ে উঠেছেন ফিজিয়ান স্ট্রাইকার রয় কৃষ্ণ।

  • Share this:

#কলকাতা : সাতের আইএসএলে দুরন্ত গতিতে এগোচ্ছে হাবাসের এটিকে মোহনবাগান। জোড়া ডার্বিতে জয়। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থেকে লিগ পর্ব শেষ করা, এএফসি চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলার ছাড়পত্র হাতের মুঠোয় দুবার আইএসএল জয়ী স্প‍্যানিশ কোচের।

হাবাসের এটিকে মোহনবাগান যেন চলতি আইএসএলে অশ্বমেধের ঘোড়া। মর্যাদার ডার্বিতে ৩-১ গোলে প্রতিপক্ষ এসসি ইস্টবেঙ্গলকে উড়িয়ে দেওয়ার পর সোমবার রয় কৃষ্ণ, ডেভিড উইলিয়ামসদের সামনে হায়দরাবাদ এফসি। পয়েন্টের নিরিখে শেষ চারের আশা প্রবল ভাবে জিইয়ে রেখেছে নিজামের শহরের দলটা।

ম্যানুয়েল রোকার হায়দরাবাদ এফসি চলতি আইএসএলের সারপ্রাইজ প্যাকেজ। ১৮ ম‍্যাচে ২৭ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের চার নম্বরে রয়েছে হায়দরাবাদ এফসি‌। আকাশ মিশ্র, হিতেশ শর্মা, আশিষ রাই, হোলিচরণ নার্জারিরা ফুল ফোটাচ্ছেন চলতি আইএসএলে। শেষ দশ ম্যাচে অপরাজিত দলটা এটিকে মোহনবাগানের বিরুদ্ধে তিন পয়েন্ট তুলে নিয়ে নিশ্চিত করে নিতে চাইছে আইএসএলের প্লে-অফ পর্ব। কোচ ম‍্যানুয়েল রোকা বলছেন,"আমরা জানি টুর্নামেন্টের সব থেকে কঠিনতম প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে ম্যাচ খেলতে নামছি।"

ভুল কিছু বলেননি হায়দরাবাদের স্প্যানিশ কোচ। সাতের আইএসএলে স্বপ্নের ছন্দে রয়েছে অ্যান্তোনিও লোপেজ হাবাসের এটিকে মোহনবাগান। মার্সেলিনো ও লেনি দলে আসার পর যেন অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে সবুজ মেরুন শিবির। সবুজ-মেরুন ডিফেন্সে সন্দেশ ঝিঙ্গান, প্রীতম কোটালরা নির্ভরতা দিচ্ছেন হাবাসকে। মাঝমাঠে রক্ষণের  সঙ্গে আক্রমণে সমান স্বচ্ছন্দ লেনি। আপফ্রন্টে একাই একশো রয় কৃষ্ণ। সঙ্গে আবার মার্সেলিনো।

১৮ গোল করে ইতিমধ্যেই প্রতিপক্ষের ত্রাস হয়ে উঠেছেন ফিজিয়ান স্ট্রাইকার রয় কৃষ্ণ। আক্রমণ ভাগ হোক কিংবা রক্ষণ। দেশের ফুটবল বিশেষজ্ঞদের মতে হাবাসের দল এই মুহূর্তে টুর্নামেন্ট সেরা। হাবাস নিজেও বলেছেন," হায়দরাবাদ এফসি ভালো দল। রক্ষণ ও আক্রমণভাগে ভারসাম্য রয়েছে। তবে আমরাও সমান তৈরি।" ১৮ ম্যাচে ৩৯ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের মগ ডালে চেপে থাকা দলের কোচের তো এই আত্মবিশ্বাস ও অহংবোধ থাকবেই।

PARADIP GHOSH

Published by:Debalina Datta
First published:

লেটেস্ট খবর