corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘‘সময়ের ওপর ছেড়ে দিতে হয় সিদ্ধান্ত’’-মুখোমুখি মেহতাব

‘‘সময়ের ওপর ছেড়ে দিতে হয় সিদ্ধান্ত’’-মুখোমুখি মেহতাব
Mehetab Hossain: News 18
  • Share this:

#কলকাতা : লালহলুদের ঘরের ছেলে এই তকমাটা মেহতাব হোসেনের গায়ে লেগেছিল ৷ অথচ কলকাতা ময়দানের জায়ন্ট ক্লাবে খেলার আগে মোহনবাগানেও কিন্তু মেহতাবের একটা স্পেল ছিল ৷ আই লিগকে টাটা করে আইএসএল খেলার সিদ্ধান্তেও মেহতাবকে নিয়ে খুব বেশি প্রশ্ন ওঠেনি ৷ তবে এই মরশুমে মোহনবাগান জার্সিতে মেহতাবের ফিরে আসা নিয়ে অনেকের মনেই অনেক প্রশ্ন ৷ নিউজ 18 বাংলা.কমের পাঠকদের জন্য মেহতাব ফের একবার এই ইস্যুতে মুখ খুললেন ৷ নিজের ফুটবল ভবিষ্যত থেকে ভারতের ফুটবল ভবিষ্যত সবকিছুই নিয়েই সোজাসাপ্টা উত্তর দিলেন ৷

এই মরশুমে বাগান আই লিগ খেলবে , কেন তাহলে মোহনবাগানে খেলার সিদ্ধান্ত নিলেন ? 

সময় অনেক কিছু নির্ধারণ করে দেয় ৷ কপাল যেরকম কাজ করায় অনেক সময় সেই পথটাই বেছে নিতে হয় ৷ পেশাদার ফুটবলারদের কাছে এরকম ঘরের ছেলে বলে কোনও তকমা হয় না ৷ পেশাদার মানুষের জীবনে ওঠা-পড়া রয়েছে ৷ সেগুলো মেনে নিয়েই এগোতে হয় ৷ যেমন রোনাল্ডোও তো রিয়াল মাদ্রিদে অনেক বছর খেলেছে ৷ কিন্তু এবার জুভেন্তাসে খেলবে ৷ অনেকটা সেরকমই ৷

আইএসএলে খেলছেন, আই লিগের ক্লাবেও কী পার্থক্য চোখে পড়ল ? 

আইএসএল অনেক প্রফেশানাল ৷ তবে একটা বিষয় আইএসএল ফ্রাঞ্চাইজিদের হয়ে খেলেতে চাপ নেই ৷ কারণ বেশির ভাগ দলেরই কোনও ফ্যান বেস সে অর্থে নেই ৷ শুধুমাত্র ব্যতিক্রম কেরালা ব্লাস্টার্স ৷ ওঁদের কাছে ফুটবল ধর্মের মতো ৷ তাই কেরলে খেলার সময় ফুটবলারদের একটা পারফরম্যান্সের চাপ থাকে ৷ তবে বাকি ফ্রাঞ্চাইজিদের এই চাপটা নেই ৷ যারা ইস্টবেঙ্গল বা মোহনবাগান জার্সিতে দীর্ঘ সময় অবধি চাপ নিয়েছেন বা ফ্যানদের প্রত্যাশায় পারফরম্যান্স দিয়েছেন তাঁদের জন্য আর কোনও দলের হয়ে খেলায় সেরকমভাবে কোনও চ্যালেঞ্জ থাকে না ৷  সোজা কথায় তাঁদের বুকের পাটা আছে ়যেকোনও দলে খেলার ৷

জাতীয় দলের জার্সিতে খেলেছেন, এত বছরের পেশাদার কেরিয়ার ৷  কী করলে মনে হয় ভারতীয় ফুটবলের উন্নয়ন সম্ভব ? 

আইএসএল অনেক বেশি পয়সা বিনিয়োগ করে ৷ তবে সেটাই একমাত্র ভারতীয় ফুটবলকে বদলে দিতে পারবে বলে মনে হয় না ৷ শুধুমাত্র বিদেশি প্লেয়ার খেলানোর ওপর জোর দেওয়ার চল বদলে ফেলতে হবে ৷ চারজন অবধি বিদেশি ঠিক আছে ৷ কিন্তু তারচেয়ে বেশি বিদেশির দিকে যেন না ঝোঁকা হয় ৷ বরং জোর দেওয়া উচিত দেশের প্লেয়ারদের মানোন্নয়নের দিকে ৷

এখন তো ফুটবলে টাকা বেশি তাও কেন মোহনবাগান -ইস্টবেঙ্গলে বাঙালি প্লেয়ার আসছে না ? 

ছেলেরা ফুটবলটাই খেলছে না ৷ মধ্যবিত্ত পরিবার এখনও ক্রিকেট খেলাতেই বেশি আগ্রহী ৷ কিছু ফুটবলার এলেও ধারাবাহিকভাবে বেশিদিন খেলায় থাকছেই না ৷ কারণটা কী আমি জানি না ৷ তবে অভিজিৎ, সৌরভ, প্রীতম , শৌভিক, প্রণয়ের মতো কিছু ফুটবলার যাঁরা এখন কয়েক দিন বেশ ভালো খেলেছেন  ৷ আমার মনে হয় ওঁরা যদি টিকে থাকতে পারেন তাহলে ভবিষ্যত উজ্জ্বল ৷

আই লিগ খেলেছেন , আইএসএলেও কী মনে হয় আর্থিক ভাবে লাভবান কোনও লিগে খেলা ফুটবলাররা হন ? 

আইএসএল শুনলেই টাকার কথা মনে হয় ৷ তবে কিন্তু এটা একেবারে সকলের জন্য সত্যি নয় ৷ জাতীয় দলে যেসব ফুটবলাররা খেলেন তাঁদের দর বেশ ভালো হয় ৷ তবে যাঁরা ক্লাব ফুটবল থেকে যাচ্ছেন তাঁদের খুব বেশি পয়সা দেওয়ার আগ্রহ ফ্রাঞ্চাইজিরা দেননা ৷ মূল লক্ষ্য তরুণ ফুটবলারদের কম পয়সায় খেলানো ৷

আরও পড়ুন - কলকাতা লিগের প্রাথমিক সূচি প্রকাশ , ডার্বির উল্লেখ নেই

মেহতাব নিজের কেরিয়ার নিয়ে ঠিক কী ভাবছে ? 

কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তী যদি দলে রাখেন তাহলে নিশ্চয় নিজের সেরাটা দিয়েই খেলব ৷ তবে সর্বোচ্চ স্তরে সেরা মানে পারফর্ম করতে পারলে তবেই থাকব ৷ না হলে সরে যাব ৷ ছোট ক্লাব থেকে শুরু করলেও বড় ক্লাবেই লম্বা সময় খেলেছি ৷ আইএসএলেও কেরালা ব্লাস্টার্স আর চেন্নাইয়ের হয়েও খেলেছি ৷ ফলে যদি দেখি পারফর্ম করতে পারছি না তাহলে সরে যাব ৷ বড় ক্লাব থেকেই কেরিয়ার শেষ করতে চাই ৷ তবে হ্যাঁ খেলাটা ছাড়তে পারব না ৷ নিজের ফিটনেসের জন্য আর খেলাটাকে ভালোবেসে নিজের মতো করে ফুটবলটা খেলবই ৷

First published: July 26, 2018, 8:22 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर