কৃষ্ণ ম্যাজিক, নর্থ ইস্টকে হারিয়ে আবার লিগ শীর্ষে এটিকে মোহনবাগান

কৃষ্ণ ম্যাজিক, নর্থ ইস্টকে হারিয়ে আবার লিগ শীর্ষে এটিকে মোহনবাগান
photo source/twitter handle

রয় কৃষ্ণ প্রচন্ড ক্ষিপ্রতায় ফ্লাইং হেডে গোল করলেন। আবার প্রমাণ করলেন ম্যাচে সারাক্ষণ কিছু না করলেও ছোট্ট সুযোগ থেকে তিনি গোল করতে পারেন।

  • Share this:

    #গোয়া: শেষ ম্যাচে চেন্নাইনের বিরুদ্ধে গোলশূন্য ড্র করেছিল এটিকে মোহনবাগান। নতুন বছরে প্রথম ম্যাচে নামার আগে অ্যান্টোনিও লোপেজ হাবাস জানিয়ে দিয়েছিলেন জয় ছাড়া কিছু ভাবছেন না। যে করেই হোক তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়াই লক্ষ্য। কথা রাখলেন স্প্যানিশ কোচ। রবিবার ফতোরদা নেহেরু স্টেডিয়ামে ম্যাচটা দুই শূন্য জিতল সবুজ মেরুন। প্রথমার্ধে কোনও গোল হয়নি। দ্বিতীয়ার্ধে সাত মিনিটের ব্যবধানে দুটো  গোল হয়ে গেল। দুবারই এডু গার্সিয়ার কর্নার থেকে গোলের দরজা খুলল। প্রথমবার বক্সের মধ্যে বলটা মাথা দিয়ে নামিয়ে দিলেন তিরি। রয় কৃষ্ণ প্রচন্ড ক্ষিপ্রতায় ফ্লাইং হেডে গোল করলেন। আবার প্রমাণ করলেন ম্যাচে সারাক্ষণ কিছু না করলেও ছোট্ট সুযোগ থেকে তিনি গোল করতে পারেন। দ্বিতীয় গোলটা গার্সিয়ার কর্নার বক্সে পড়ার সময় সন্দেশ গোল করে গেলেন। প্রথমে তাই মনে হয়েছিল। পরে দেখা গেল বিপক্ষ ডিফেন্ডার লম্বোর পায়ে লেগে বল জালে জড়িয়েছে। তবে এই ডিফেন্ডার ফাউলের দাবি জানিয়েছিলেন। রেফারি গ্রাহ্য করেননি।

    এদিন প্রথমার্ধটা বিপক্ষকে যেমন সাধারণত মেপে থাকেন হাবাস, সেই পথেই হাঁটলেন। দুটো সেটপিসে ম্যাচের ভাগ্য নিজেদের পকেটে পুরে নিল এটিকে মোহনবাগান শিবির। প্রথম দলে এদিন রাখা হয় শেখ সাহিল এবং প্রবীর দাসকে। তবে ম্যাচে সবুজ মেরুন শিবিরের চারজন ফুটবলার হলুদ কার্ড দেখলেন। এই পরিসংখ্যান দেখেই স্পষ্ট বিপক্ষ দল নিয়ে এটিকে মোহনবাগানের গেমপ্ল্যান ছিল নিজেদের বক্সের আশেপাশে বিপক্ষ ফুটবলারদের জায়গায় না দেওয়া। প্রয়োজনে মাঝমাঠে ফাউল করা। নিজেদের গেমপ্ল্যানে সফল হাবাস ব্রিগেড। নর্থ ইস্ট কোচ দ্বিতীয়ার্ধে দুই গতিশীল ফুটবলার নিনথই এবং মাচাদোকে নামিয়ে একটা চেষ্টা করেছিলেন বটে, কিন্তু প্রণয়, কার্ল, সন্দেশ, তিরি বিপদ ঘটতে দেননি। ম্যাচ শেষে হাবাস জানিয়ে গেলেন এদিনের খেলায় তিনি খুশি। আরও একটা জয়, আরও একটা পারফেক্ট টিম গেমের নিদর্শন। গোটা ম্যাচে নর্থইস্ট একটা ফ্রি কিক ছাড়া সেভাবে কোনও ওপেন করতে পারেনি।

    দ্বিতীয়ার্ধে মনবীর,গ্লেন,প্রণয় হালদার এবং ব্র্যাড ইনম্যানকে নামানো হয়। নিজের রক্ষণের সামনে ডবল স্ক্রিন ফেলে দেন হাবাস। এই ডিফেন্স ভেঙে গোল করার সাধ্য ছিল না বিপক্ষ দলের,পারেওনি।পাহাড়ি দলটির ঘানার ফুটবলার কেশি আপিয়া এদিন ছিলেন না। ম্যাচ শেষে নর্থ ইস্ট কোচ জেরার্ড নুস মেনে নিলেন ভাল


    খেলেও দুটো সেট পিস রক্ষায় ভুল করায় ম্যাচটা হারতে হল। পাশাপাশি অভিজ্ঞতা র দিক থেকেও এগিয়ে হাবাস ব্রিগেড মেনে নিলেন তিনি। আপাতত সপ্তাহখানেকের বিশ্রাম। তারপর টুর্নামেন্টের অন্যতম সেরা দল মুম্বই এফসি-র বিরুদ্ধে খেলতে হবে এটিকে মোহনবাগানকে। ততদিনে জাভি হার্নান্দেজ ফিট হয়ে দলে ফিরে আসবেন শোনা যাচ্ছে। তবে দুবারের চ্যাম্পিয়ন কোচ স্পষ্ট নির্দেশ দিয়ে দিয়েছেন এই জয় যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ভুলে যেতে। ম্যাচের সেরা রয় কৃষ্ণ। এই নিয়ে চলতি টুর্ণামেন্টে হাফ ডজন গোল হয়ে গেল তাঁর। ফিজি তারকা জানিয়ে গেলেন স্ট্রাইকার হিসেবে নিজের কাজ করেছেন, আগামী দিনেও তাই করতে চান।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: