• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত এস সি ইস্টবেঙ্গল, এড়ানো গেল না হারের হ্যাটট্রিক

পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত এস সি ইস্টবেঙ্গল, এড়ানো গেল না হারের হ্যাটট্রিক

ভাগ্য সঙ্গে না থাকলে চেষ্টা করেও খালি হাতে ফিরতে হয়। এস সি ইস্টবেঙ্গল এদিন অনেক গুছিয়ে খেলছিল শুরু থেকেই।

ভাগ্য সঙ্গে না থাকলে চেষ্টা করেও খালি হাতে ফিরতে হয়। এস সি ইস্টবেঙ্গল এদিন অনেক গুছিয়ে খেলছিল শুরু থেকেই।

ভাগ্য সঙ্গে না থাকলে চেষ্টা করেও খালি হাতে ফিরতে হয়। এস সি ইস্টবেঙ্গল এদিন অনেক গুছিয়ে খেলছিল শুরু থেকেই।

  • Share this:

    #গোয়া: বিখ্যাত ফুটবল ম্যানেজার স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন মনে করতেন জিততে গেলে ৮০ শতাংশ পরিশ্রম এবং ২০ শতাংশ লাক দরকার। ভাগ্য সঙ্গে না থাকলে চেষ্টা করেও খালি হাতে ফিরতে হয়। এস সি ইস্টবেঙ্গল এদিন অনেক গুছিয়ে খেলছিল শুরু থেকেই। বল ধরে, মাঝখান থেকে যেমন মুভমেন্ট হচ্ছিল, দুইপ্রান্ত ব্যবহার করেও আক্রমণ তৈরি করার চেষ্টা করছিল লাল হলুদ। মাগোমা,পিলকিংটন,  স্টেনম্যানরা প্রচুর পরিশ্রম করছিলেন। ম্যাচের বয়স তখন কুড়ি মিনিট। বক্সের মধ্যে মাগোমাকে ফেলে দিলেন আশুতোষ। রেফারি সন্তোষ কুমার নিশ্চিত পেনাল্টি দিলেন না। উল্টে ৩৩ মিনিটে গোল পেয়ে গেল নর্থইস্ট। এখানেও ভাগ্য খারাপ রবি ফাওলারের দলের। ডানদিক থেকে বক্সের মধ্যে একটা বল রেখেছিলেন আপিয়াহ। নর্থইস্ট স্ট্রাইকার সিলার গায়ে লেগে থাকা

    সুরচন্দ্রর পায়ে লেগে বল জড়িয়ে গেল জালে। শেহনাজ শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত চেষ্টা করেও বাঁচাতে পারলেন না। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই বলবন্তকে তুলে নিয়ে নামানো হল সি কে বিনীতকে। নিয়ে আসা হল রফিক, লিংডো, অভিষেককে। এই অর্ধেও পিলকিংটনের শট বিপক্ষ এক ফুটবলারের হাতে লাগল বক্সের ভেতর। এবারও পেনাল্টির দাবি নাকচ করে দিলেন সন্তোষ। গোটা ম্যাচে বল দখল থেকে শুরু করে, গোল তৈরীর সুযোগ, এদিন সব বিভাগেই এগিয়ে ছিল ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু রেফারির ভুল এবং মন্দভাগ্য তাদের জিততে দিল না। উল্টে ৯০ মিনিটের মাথায় কাউন্টার অ্যাটাক থেকে আরও একটা গোল হজম করতে হল। পরিবর্ত হিসেবে নামা সুহের ডানপ্রান্ত থেকে মাইনাস করলে পেছন থেকে উঠে আসা রচারজেলা জালে বল ঠেলতে ভুল করেননি। ফুটবলে ভালো খেলার কথা পরিসংখ্যানের খাতায় লেখা থাকে না। রেজাল্ট শেষ কথা বলে। স্কোরবোর্ড একটা গাধা। নেভিল কর্দাসের এই বিখ্যাত উক্তি শুধু ক্রিকেট নয়, ফুটবলের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। এদিনের ইস্টবেঙ্গল বনাম নর্থইস্ট ম্যাচটা যার সবচেয়ে বড় উদাহরণ। খেলার দিক থেকে দেখতে গেলে গত দুটো ম্যাচের থেকে আজকের ম্যাচটা অনেক ভালো ফুটবল উপহার দিয়েছে ইস্টবেঙ্গল। উন্নতি চোখে পড়েছে সবদিক থেকেই। কিন্তু ফুটবলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে জিনিসটা, সেই গোলটাই পেল না তারা, এদিনও। ফলে হারের হ্যাটট্রিক এড়ানো গেল না। ম্যাচের শেষে মাথা গরম করে দুই দলের ফুটবলাররা হাতাহাতি ও করলেন।

    Rohan Roy Chowdhury

    Published by:Piya Banerjee
    First published: