corona virus btn
corona virus btn
Loading

বাংলাকে ভোলেননি কিবু! তাঁর ডাকেই আমফান বিধ্বস্তদের পাশে মোহনবাগান সমর্থকরা

বাংলাকে ভোলেননি কিবু! তাঁর ডাকেই আমফান বিধ্বস্তদের পাশে মোহনবাগান সমর্থকরা
কিবুর ডাকে সাড়া। আমফান বিধ্বস্তদের ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছেন ওঁরা।

স্ত্রীর চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে সেই পোস্ট শেয়ার করেন মোহনবাগানের প্রাক্তন কোচ। প্রাক্তন কোচের মানবিক আবেদনে এগিয়ে আসতে শুরু করে বাগান জনতা।

  • Share this:

#কলকাতা: শতাব্দীপ্রাচীন ক্লাবকে আই লিগ জিতিয়েই দায়িত্ব সেরে ফেলেননি। কলকাতা থেকে পাততাড়ি গুটিয়ে পোল্যান্ডে ফিরে যাওয়ার পরেও এই শহরের প্রতি মুহূর্তের হাল-হকিকতের খোঁজ রেখেছেন নিয়মিত। সুপার সাইক্লোন আমফানে বাংলার মানুষের বিধ্বস্ত হওয়ার খবর পেয়ে সোশ্যাল নেটওয়ার্কে সাহায্যের হাত বাড়ানোর আবেদন জানিয়েছিলেন মোহনবাগানের প্রাক্তন কোচ কিবু ভিকুনা। ক্লাবের প্রাক্তন কোচের আবেদনে সাড়া দিয়ে এগিয়ে এল মোহনবাগানের ফ‍্যানস ফোরাম 'সবুজ মেরুন স্বপ্নের উড়ান'।

আই লিগ জয়ী কোচের আবেদন ফেলতে পারেননি সবুজ-মেরুন সমর্থকরা। মোহনবাগানের ফ‍্যানস ফোরাম 'সবুজ-মেরুন স্বপ্নের উড়ান'-র উদ্যোগে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হল অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর প্রস্তুতি। প্রথম দিন বেলগাছিয়া অঞ্চলে ১০০ জন মানুষের হাতে ১৫ দিনের  রেশন তুলে দেওয়া হল 'সবুজ-মেরুন স্বপ্নের উড়ান'-র পক্ষ থেকে।

তবে এখানেই শেষ নয়। প্রাক্তন কোচ কিবু ভিকুনা ও তার স্ত্রী কাশিয়া বেলের আবেদনে রাজ্যের আমফান বিধ্বস্ত এলাকাতে পৌঁছে সেখানকার মানুষজনের হাতে ত্রাণ সাহায্য তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে মোহনবাগানের এই ফ‍্যানস গ্রুপের।

সম্প্রতি সোশ্যাল নেটওয়ার্কে নতুন বাড়ির ছবি এঁকে সুপার সাইক্লোন বিধ্বস্ত বাংলার ঘরবাড়ি হারানো অসহায় মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আসার আবেদন জানিয়েছিলেন কিবু ভিকুনার স্ত্রী কাশিয়া। স্ত্রীর চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে সেই পোস্ট শেয়ার করেন মোহনবাগানের প্রাক্তন কোচ। প্রাক্তন কোচের মানবিক আবেদনে এগিয়ে আসতে   শুরু করে বাগান জনতা।

ক্লাবের প্রাক্তন কোচের এই উদ্যোগকে প্রশংসা জানিয়ে সামিল হয়েছেন মোহনবাগানের সচিব সৃঞ্জয় বোস ও অর্থ সচিব দেবাশিস দত্ত। আগামী মরশুমে ইন্ডিয়ান সুপার লিগে কেরালা ব্লাস্টার্সের কোচের পদে দেখা যাবে বাগানের প্রাক্তন কোচ কিবু ভিকানাকে।

Published by: Arka Deb
First published: May 29, 2020, 8:00 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर