পজিশন বদলে লাল-হলুদের ডিফেন্সে মেন্ডি

পজিশন বদলে লাল-হলুদের ডিফেন্সে মেন্ডি

সালগাঁওকরের বিরুদ্ধে হারের জের। দলে পজিশন বদলে গেল বিশ্বকাপার মেন্ডির। রবিবার ডিএসকে শিবাজিয়ান্সের বিরুদ্ধে প্রথম দলে একাধিক বদল লাল-হলুদের। বলা যায়, খোলনলচে বদলেই পুণেতে নামছে ইস্টবেঙ্গল। দলে ফিরছেন ডং, টুলুঙ্গা, সৌমিক, জোয়াকিম ও রেঁনেশ।

  • Share this:

#কলকাতা:   এক সালগাঁওকর বিরুদ্ধে হারে পজিশনই বদলে যাচ্ছে বার্নার্ড মেন্ডির। বিশ্বজিতের প্রথম এগারোয় এতদিন মিডফিল্ডে খেলতেন ফরাসি বিশ্বকাপার। গোয়ার মাঠে হারে মেন্ডি দর্শন বদলে গিয়েছে কোচ বিশ্বজিতের। পুণের মাঠে ডিএসকে শিবাজিয়ান্সের বিরুদ্ধে তো বটেই, বাকি আই লিগেই বার্নাড মেন্ডিকে ডিফেন্সে খেলানোর বিষয়ে মনস্থির করে নিয়েছে লাল-হলুদের টিম ম্যানেজমেন্ট। ফিটনেসে পিছিয়ে রয়েছেন মেন্ডি। কিন্তু এখুনি তাঁকে বসিয়ে দিলে সমালোচনার সামনে পড়তে হতে পারে কোচকে। চতুর্থ বিদেশি বাছাইয়ের ক্ষেত্রে যে ভুল হয়েছে, সেটা মেনে নিয়েও এখন ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামছে ইস্টবেঙ্গলের থিঙ্কট্যাঙ্ক। তারই ফলস্বরূপ পজিশন বদলাচ্ছে মেন্ডির।

পুণের মাঠে সালগাঁওকর ম্যাচের প্রথম এগারো আমূল বদলে ফেলছেন কোচ বিশ্বজিত। ডিএসকে-র বিরুদ্ধে ইস্টবেঙ্গলের প্রথম দলে ফিরছেন কোরিয়ান উইঙ্গার ডু ডং। রফিকের পরিবর্তে দলে আসছেন ডং। বিকাশ জাইরুর পরিবর্তে দলে ফিরছেন টুলুঙ্গা।

এখানেই শেষ নয়। নারায়ণ দাসের পরিবর্তে দলে ফিরছেন সৌমিক দে। সঞ্জু প্রধানের বদলে শুরু করার সম্ভাবনা জোয়াকিম আব্রাঞ্চেসের। বদল ঘটছে লাল-হলুদ গোলের নিচেও। দলে ফিরছেন রেহনেশ। বেলো রজ্জাককে সঙ্গে নিয়ে ডিফেন্স আগলানোর দায়িত্ব থাকবে মেন্ডির ওপর। সব মিলিয়ে পুণের মাঠে নতুন লাল-হলুদের আবির্ভাব। সালগাঁওকরের বিরুদ্ধে হারের পর থেকেই ঘরে-বাইরে সমলোচিত হচ্ছিলেন কোচ বিশ্বজিত। মসীহা হয়ে দাঁড়ালেন ম্যানেজার আলভিটো ডি কুনহা। শিবাজিয়ান্সের বিরুদ্ধে লাল-হলুদের সম্ভাব্য প্রথম এগারো সেই ইঙ্গিতই দিচ্ছে। লাল-হলুদের অন্দরমহলে ফের শক্তিশালী গোয়ান লবি।

First published: 07:12:02 PM Mar 05, 2016
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर