corona virus btn
corona virus btn
Loading

সমস্যায় জর্জরিত লাল-হলুদ ক্লাব! লকডাউনে বেতন নেই ইস্টবেঙ্গল ক্রিকেটারদের

সমস্যায় জর্জরিত লাল-হলুদ ক্লাব! লকডাউনে বেতন নেই ইস্টবেঙ্গল ক্রিকেটারদের

স্পনসর কোয়েসের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে তাদের পক্ষে ক্রিকেটারদের বেতন দেওয়া সম্ভব নয়

  • Share this:

#কলকাতা: ফুটবলের পর এবার ক্রিকেট। সমস্যায় জর্জরিত ইস্টবেঙ্গল ক্লাব। লকডাউনের মধ্যে বিপাকে ইস্টবেঙ্গল ক্রিকেটাররা। দীর্ঘদিন বেতন বন্ধ। চুক্তির ৫০% টাকাও কোনও ক্রিকেটার পাননি। স্পনসর কোয়েসের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে তাদের পক্ষে ক্রিকেটারদের বেতন দেওয়া সম্ভব নয়। ইস্টবেঙ্গল কর্তারাও ক্রিকেটারদের কোনও সদুত্তর দিতে পারেননি। ফলে চুক্তি অনুযায়ী ক্রিকেটাররা কি করে টাকা পাবেন তা নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। অনেক ক্রিকেটার সরকারি চাকরি করলেও, পঙ্কজ সাউদের মত এমন অনেকেই আছেন যাদের সমস্ত খরচ চলে এই ক্লাবের টাকা থেকেই। ফলে লকডাউনের মধ্যে সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছে তাঁরা।

সিএবির চলতি ক্রিকেট মরশুমে কোয়েস কর্তৃপক্ষ ইস্টবেঙ্গল ক্রিকেট দল গড়ার দায়িত্ব নিয়েছিল। চুক্তি অনুযায়ী অগ্রিম টাকাও ক্রিকেটারদের দেয় কোয়েস। ভালো দল গড়তে ৯০ লক্ষ টাকার বাজেট করা হয়। বাংলার অধিনায়ক অভিমুন্য ঈশ্বরন, অভিষেক রমন, ঈশান পোড়েল, অর্ণব নন্দীর মত একঝাঁক বাংলার ক্রিকেটারদের সই করানো হয়। কোয়েসের তৈরি চুক্তিতে সই করেছিলেন ক্রিকেটাররা। কিন্তু ক্লাব কর্তাদের সঙ্গে মনোমালিন্য-সহ একাধিক সমস্যার জেরে ইস্টবেঙ্গল-কোয়েস চুক্তি আর বাড়ানো হবে না বলে দুই পক্ষ থেকেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। চলতি মাসেই সেই চুক্তি শেষ হচ্ছে। কলকাতার অফিসও ছেড়ে দিচ্ছে কোয়েস।

ফুটবলারদের ক্ষেত্রেও একমাস কম মাইনে দিয়ে চুক্তি শেষ করে দেওয়া হয়েছে। তবে ক্রিকেটারদের ক্ষেত্রে সমস্যাটা আরও বেশি। ক্রিকেট মরশুম ফুটবল মরশুমে থেকে অনেক পরে শুরু হয়। ফলে অগ্রিম ছাড়া কোনও ক্রিকেটারই চুক্তির বাকি অংশের কিছুই পাননি। ঈশ্বরণ, ঈশান পোড়েলদের চুক্তি ১০ লাখের মত থাকলেও ৪০-৫০ হাজারের বেশি টাকা কোনও ক্রিকেটার পাননি। ক্রিকেটাররা ক্লাব কর্তাদের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করেও কোনও সমাধান বের করতে পারেননি। ক্রিকেট সেক্রেটারি সদানন্দ মুখোপাধ্যায় জানান, "লকডাউনে এই সমস্যা সমাধান করা সম্ভব নয়। নীতু সরকারের সঙ্গে কথা বলছি। তবে টাকা দেওয়াটা আদৌ কতটা সম্ভব হবে তা বলা মুশকিল। স্পনসরের সঙ্গে চুক্তি ভেঙে যায় এই সমস্যা হয়েছে। ইস্টবেঙ্গল ক্লাব বিপাকে পড়েছে।"

কোয়েস এই ভাবে চুক্তি ভঙ্গ করায় ক্ষুব্দ প্রত্যেকেই। তবে ইস্টবেঙ্গল ক্রিকেটারর এই নিয়ে প্রকাশ্যে মন্তব্য করতে নারাজ। ক্লাবের বিরুদ্ধে অভিযোগ নেই বলে জানান ঈশান পোড়েল, ঈশ্বরনরা। ময়দানের খবর, কঠিন পরিস্থিতিতে পরেরবার ক্লাব পেতে সমস্যা হতে পারে মনে করেই ক্রিকেটাররা মুখে কুলুপ এঁটেছেন। সব মিলিয়ে ইস্টবেঙ্গল-কোয়েস ঝামেলায় বিশবাঁও জলে বাংলার এক ঝাঁক ক্রিকেটার।

ERON ROY BURMAN

Published by: Ananya Chakraborty
First published: May 16, 2020, 10:53 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर