খেলা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

নাইকির সঙ্গে বিচ্ছেদের পর নাকি গুপচুপে বদলে গেল টিম ইন্ডিয়ার নয়া কিট স্পনসর, বিতর্ক তুঙ্গে

নাইকির সঙ্গে বিচ্ছেদের পর নাকি গুপচুপে বদলে গেল টিম ইন্ডিয়ার নয়া কিট স্পনসর, বিতর্ক তুঙ্গে
Photo-File

ক্রীড়াসরঞ্জাম প্রস্তুতের সঙ্গে কখনও যে সংস্থার নাম শোনা যায়নি তারাই নাকি এখন বিরাট কোহলি অ্যান্ড কোংয়ের জার্সি স্পনসর, নাম শুনলে চমকে যাবেন!

  • Share this:

#মুম্বই: টিম ইন্ডিয়ার নয়া কিট স্পনসর নিয়ে বিতর্ক। বোর্ডের তরফে গত আগস্ট মাসে বিরাট কোহলিদের কিট স্পনসরের জন্য নতুন টেন্ডার ডাকা হয়েছিল। ডেডলাইন ছিল ১ সেপ্টেম্বর। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কোন কোম্পানি টিম ইন্ডিয়া কিট স্পনসর হতে এগিয়ে আসেনি, এমনকি আগ্রহ প্রকাশও করেনি। ফলে বহুজাতিক সংস্থা নাইকির সঙ্গে চুক্তি শেষ হওয়ার পর ভারতীয় দলে কোন কিট স্পনসর ছিল না।

করোনা পরিস্থিতিতে বিগত সাত মাস ভারতীয় দলের কোনও খেলা না থাকায় এই বিষয়টি খুব একটা প্রকাশ্যে আসেননি। বোর্ড সূত্রে খবর মিলেছিল, টেন্ডারের সময়সীমা বাড়ানো হবে। কিন্তু বাস্তবে বিসিসিআই বিরাটদের কিট স্পনসর নিয়ে কি ভাবছে, সময়সীমা বাড়ানো হবে কিনা তা নিয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানানো হয়নি। তবে সোমবার আচমকা বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে ভারতীয় ক্রিকেট দলের নতুন কিট স্পনসর চূড়ান্ত হওয়ার খবর প্রকাশ্যে আসে।

Photo-File Photo-File

এমপিএল বা মোবাইল প্রিমিয়ার লিগ ভারতীয় ক্রিকেট দলের কিট স্পনসর হচ্ছে বলে খবর। তিন বছরের চুক্তিতে বিসিসিআইয়ের সঙ্গে আবদ্ধ হচ্ছে এমপিএল।   এমপিএলের যুক্ত হওয়ার খবর প্রকাশ্যে আসার পরই বিতর্ক শুরু হয়েছে।

অভিযোগ উঠছে, ভারতীয় ক্রিকেট দলের জন্য নতুন কিট স্পনসর এমপিএলকে চুক্তিবদ্ধ করার বিষয়টি মধ্যে সম্পূর্ণ স্বচ্ছতা নেই। তাছাড়া বেঙ্গালুরুর গ্যালাকটাস ফানওয়ার টেকনোলজি প্রাইভেট লিমিটেড নামক সংস্থার অধীনে থাকা এমপিএল কীভাবে এমনকি কোন যুক্তিতে বিরাট কোহলির কিট স্পনসর হওয়ার বরাত পেলে তাও স্পষ্ট নয়। বোর্ডের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানানো হয়নি। এমপিএলের সঙ্গে চুক্তি নিয়ে বোর্ডের মধ্যেই মতবিরোধ রয়েছে বলে সূত্রের খবর। অনেকেই বিষয়টি সহজভাবে নিতে পারেননি। অস্ট্রেলিয়া সিরিজ থেকেই বিরাটদের কিট স্পনসর হিসেবে দেখা যাবে এমপিএলকে। তবে তার আগে এই নিয়ে বোর্ডের অভ্যন্তরে যে ঝড় উঠতে চলেছে একপ্রকার নিশ্চিত।

আগামী দিনে বোর্ডের বৈঠকে এ নিয়ে বিতর্ক হতে পারে।  উল্লেখ্য, কিট স্পনসর হিসেবে নাইকি এতদিন প্রতি ম্যাচে বোর্ডকে দিত ৮৮ লক্ষ টাকা। সেখানে নতুন কিট স্পনসর ম্যাচ প্রতি ৬৫ লক্ষ টাকা দেবে বলে খবর। তবে এই বিতর্ক নিয়ে কোন বোর্ড কর্তা মুখ খুলতে নারাজ।

ERON ROY BURMAN

Published by: Debalina Datta
First published: November 3, 2020, 2:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर