শেষ চার কনফার্মড হলেও টিম ইন্ডিয়াকে চিন্তায় রাখছে নড়বড়ে মিডল অর্ডার

শেষ চার কনফার্মড হলেও টিম ইন্ডিয়াকে চিন্তায় রাখছে নড়বড়ে মিডল অর্ডার
  • Share this:

#বার্মিংহ্যাম: রাহুল-রোহিতের ঝকঝকে ব্যাটিং। পরে হার্দিক-বুমরাহের কামাল। এজবাস্টনে ২৮ রানে জিতে বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালে ভারত। দাম পেল না সাকিব-সইফুদ্দিনদের লড়াই। লড়ে হেরে বিদায় বাংলাদেশের। শেষ চার কনফার্মড হলেও চিন্তায় নড়বড়ে মিডল অর্ডার।

কী অদ্ভুত মিল!!! ২০১৫-তে বাংলাদেশকে হারিয়ে সেমি ফাইনালে। কাট টু ২০১৯। এবারও স্ক্রিপ্ট একই থাকল। তবে সেই সঙ্গে থাকল কিছু প্রশ্ন। সেই প্রশ্নগুলো নিয়েই বিশ্বকাপের শেষ চারে টিম ইন্ডিয়া।

এই মাঠেই ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে হার। আবার এই মাঠেই শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত স্নায়ুর চাপ রাখা। এজবাস্টনে চার দিনের মধ্যে বিরাট ব্রিগেডকে অন্য রূপে দেখল ক্রিকেট বিশ্ব। শেষ চার কনফার্মড হলেও চিন্তা রয়ে গেল মিডল অর্ডার নিয়ে। সেজন্যই নিশ্চিত সাড়ে তিনশোতেও বিরাটরা থামলেন ৩১৪ রানে। ওপেনিংয়ে রেকর্ড গড়ে ১৮০-র পার্টনারশিপ রাহুল-রোহিতের। বিশ্বকাপে চতুর্থ সেঞ্চুরি করে হিটম্যান পেরোলেন সৌরভকে। সামনে সঙ্গাকারাকে টপকানোর হাতছানি। ডাউনআন্ডার বিশ্বকাপের পর আবার বিলেতে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে শতক পেরোলেন বিরাটের ডেপুটি। আবার হাফ সেঞ্চুরির পর বড় রানে ব্যর্থ রাহুল। থামলেন ৭৭ রানে। টানা পাঁচ হাফ সেঞ্চুরি করা বিরাট ব্যাট এদিন থমকালেন ২৬ রানে। চারে নামা পন্থ এদিন চনমনে। কিন্তু নিশ্চিত হাফ সেঞ্চুরি ফসকালেন দু’রানের জন্য। ধোনি ৩৫ করলেও খরচ করলেন ৩৩ বল। ব্যর্থ ডিকে। শেষ দশ ওভারে উঠল ষাটের কিছু বেশি রান। পাঁচ উইকেট নিয়ে বিরাটদের বড় রানে ব্রেক লাগালেন মুস্তাফিজুর।

রান তাড়ায় বাংলাদেশকে টানলেন সেই সাকিবই। আর লোয়ার অর্ডারে সইফুদ্দিন। ৬৬-তে সাকিব থামার পর একটা মরিয়া চেষ্টা করেছিলেন বাঁ-হাতি সইফুদ্দিন। কিন্তু সাব্বির, লিটনরা শুরু করেও বড় রানে ব্যর্থ। ব্যাট হাতে ব্যর্থ হলেও বল হাতে ৩ উইকেট তুলে ভরসা দিলেন হার্দিক। শেষ দিকে সইফুদ্দিন চাপ বাড়ালেও বাংলাদেশ হারল বুমরাহের ডেথ বোলিং ও অনভিজ্ঞতায়। পরপর দুটো ইয়র্কারে রুবেল ও মুস্তাফিজুর ফিরতেই বিরাটের গলায় হাজার ওয়াটের হাসি। ডেথ ওভার স্পেশালিস্টের ঝুলিতে চার উইকেট। বাংলাদেশের হারেও উজ্জ্বল অলরাউন্ডার সাকিব। বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে পাঁচশোর বেশি রান। দশের বেশি উইকেট। কিন্তু অঘটন ঘটিয়েও ব্যর্থতা সঙ্গে নিয়েই দেশে ফিরতে হচ্ছে।

First published: 10:12:26 AM Jul 02, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर