Exclusive : ইডেনে বাংলার পথের কাঁটা আরেক 'বাঙালি', কে এই ক্রিকেটার ?

Exclusive : ইডেনে বাংলার পথের কাঁটা আরেক 'বাঙালি', কে এই ক্রিকেটার ?
Ricky bhui

একদা ঋষভ পন্থ, ঈশান কিশানদের সতীর্থ। ২০১৪-১৫ মরশুম থেকে গতবছর পর্যন্ত ছিলেন আইপিএল (IPL)- এ হায়দরাবাদ ফ্রাঞ্চাইজিতে...

  • Share this:

EERON ROY BARMAN

#কলকাতা: একদা ঋষভ পন্থ, ঈশান কিশানদের সতীর্থ। ২০১৪-১৫ মরশুম থেকে গতবছর পর্যন্ত ছিলেন আইপিএল (IPL)- এ হায়দরাবাদ ফ্রাঞ্চাইজিতে। বেশ কয়েকটি ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। ২০১৬ সালে ভারতের অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ দলের অন্যতম সদস্য রিকি ভুই। অন্ধপ্রদেশের হয়ে নিয়মিত রঞ্জি খেলছেন। চলতি মরশুমে প্রথম দুই ম্যাচেই সেঞ্চুরি এসছে ব্যাটে। ইতিমধ্যেই বারকয়েক ভারতীয় এ দলে খেলার সুযোগ মিলেছে। তবে এই রিকি ভুই অন্ধপ্রদেশ নয়, খেলতে পারতেন বাংলার হয়ে। ২০১৬ অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ রানার্স দলে তিনি ছিলেন অন্যতম বাঙালি সদস্য। কিন্তু নাম পদবী শুনে কেউই বাঙালি বলে মনে করেন না। সংবাদমাধ্যমের চোখ এড়িয়ে গিয়েছিল এতদিন। খুব ঘনিষ্ঠ কিংবা পরিবারের সদস্য ছাড়া কেউ জানেন না আদ্যোপান্ত বাঙালি ক্রিকেটারের সম্বন্ধে।

রহস্য উন্মোচন হল মঙ্গলবার সকালে। রঞ্জিতে বাংলার বিরুদ্ধে খেলতে কলকাতা এসেছে অন্ধ্রপ্রদেশ। সেই দলে অন্যতম সদস্য রিকি ভুই। দলের টিম ম্যানেজমেন্টের এক সদস্যই রহস্যভেদ করলেন রিকিকে নিয়ে। জানালেন, "আপনাদের বাংলার ছেলে এখন আমাদের দলে নিয়মিত পারফর্ম করছেন। ভাগ্যিস বাংলা ছেড়ে আমাদের ওখানে গিয়েছিল।" এরপর খোঁজ পড়ল রিকি ভুইয়ের। নিউজ18 বাংলার প্রশ্ন শুনে ঝরঝরে বাংলায় উত্তর দিতে শুরু করলেন রিকি। ঝাড়গামে জন্ম এই ডানহাতি ব্যাটসম্যানের। কিন্তু পারিবারিক ব্যবসার জন্য আশির দশকের শেষদিকে রিকির বাবাকে শহর ছেড়ে পাড়ি দিতে হয় ভাইজ্যাকে। পাকাপাকিভাবে ওখানেই থাকতে শুরু করে রিকির পরিবার। সেখানেই সচিনকে দেখে ক্রিকেটপ্রেম। খেলা শেখা শুরু, অন্ধপ্রদেশের বয়সভিত্তিক দলে সুযোগ পাওয়া, আইপিএল (IPL)- এ সুযোগ। তারপর রাহুল দ্রাবিড়ের কোচিংয়ে বিশ্বকাপ দলে ডাক। কিন্তু বিশ্বকাপ থেকে ফিরেই রঞ্জি ম্যাচের আগে গুরুতর চোট পান অনুশীলনে।

কাঁধে চোট পাওয়াতে অস্ত্রোপচার করতে হয়। দুবার অস্ত্রোপচারের পর দুই মরশুম বসে থাকতে হয় মাঠের বাইরে। বিশ্বকাপজয়ী দলের সতীর্থরা অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছেন তো ? এই প্রশ্নে রিকি ভুইয়ের উত্তর, চোটের বিষয়টা তো আমার হাতে ছিল না। গুরুত্বপূর্ণ দু'বছর নষ্ট হয়েছে। তবে ফিরে এসে পারফর্ম করার চেষ্টা করেছি গত কয়েক বছর।

IMG-20191224-WA0012 (1)

আগের মরশুমে প্রায় ৮০০ রান করেছেন। বাংলার ছেলে হলেও আগে কখনও ইডেনে খেলার অভিজ্ঞতা হয়নি এই মারকুটে ব্যাটসম্যানের। গত আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে এসেছেন ইডেনে। কিন্তু ম্যাচে নামা হয়নি। নিজের জন্মস্থানে প্রথমবার খেলার সুযোগ পেয়ে কেমন লাগছে ? প্রশ্ন শুনে রিকি বললেন,

'বাঙালি বলে না, ইডেনে খেলা সবসময় স্পেশাল। আগে আমার সুযোগ হয়নি। এই সুযোগ কাজে লাগাতে চাই।'

সেঞ্চুরির হ্যাটট্রিক হবে কি? রিকির স্পষ্ট জবাব, 'এসব ভেবে মাঠে নামি না।'

ঘরের ছেলে প্রথমবার কলকাতায় খেলবে শুনে উচ্ছ্বসিত রিকির পরিবারের সদস্যরাও। সন্তোষপুর অঞ্চলে এখনও থাকেন রিকির কাকার পরিবার । শহরে এসেই তাঁদের সঙ্গে দেখা করে এসেছেন রিকি। রিকির কাকারা ইডেনে আসবেন ম্যাচ দেখতে। ইডেন থেকেই নতুন করে স্বপ্ন দেখা শুরু করতে চান রিকি। রঞ্জিতে ধারাবাহিক রান পেলে জাতীয় দলে সুযোগ মিলতে পারে... এ'কথা জানেন অন্ধ্রের বাঙালি ক্রিকেটার। তাই সেই লক্ষ্যেই নিজেকে তৈরি করছেন রিকি ভুই। তবে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে টিম বাসটা ধরতে পারলেন না। শেষমেষ উবের ধরে হোটেলে ফিরতে হল রিকিকে।

First published: December 24, 2019, 9:36 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर