আইপিএলের ধাঁচে এবার ‘বেঙ্গল টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জ’, ক্রিকেটারদের বায়ো-বাবল সুরক্ষায় রেখেই ম্যাচ আয়োজন

১৪-১৫ দিনের হতে পারে টুর্নামেন্ট। নতুন এই টুর্নামেন্টের নাম রাখা হয়েছে বেঙ্গল টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জ।

১৪-১৫ দিনের হতে পারে টুর্নামেন্ট। নতুন এই টুর্নামেন্টের নাম রাখা হয়েছে বেঙ্গল টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জ।

  • Share this:

#কলকাতা: আইপিএলের ধাঁচে নতুন টুর্নামেন্ট করছে সিএবি। করোনা আবহে ক্রিকেট ফিরছে চলতি নভেম্বরের শেষেই। সমস্ত ক্রিকেটারদের জৈব সুরক্ষা বলয় বা বায়ো-বাবলের মধ্যে রেখে টুর্নামেন্ট আয়োজন করবে সিএবি। টি-টোয়েন্টি ফর্ম্যাটে হবে টুর্নামেন্ট। ১৪-১৫ দিনের হতে পারে টুর্নামেন্ট। নতুন এই টুর্নামেন্টের নাম রাখা হয়েছে বেঙ্গল টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জ।

মোট ৬টি দল অংশগ্রহণ করবে এই টুর্নামেন্টে। মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গলের মত প্রথম সারির দল গুলির এই টুর্নামেন্ট খেলার কথা। বেসরকারি সংস্থার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে টুর্নামেন্ট আয়োজন করছে সিএবি। টিসিএম নামে একটি সংস্থার সঙ্গে রবিবার সিএবিতে মৌ স্বাক্ষর করলেন প্রেসিডেন্ট অভিষেক ডালমিয়া। টুর্নামেন্টের সবকটি ম্যাচ আয়োজিত হবে ইডেনে। আইপিএলের মত ক্রিকেটাররাও কোয়ারেন্টাইনে থাকবেন শুরুতে। গোটা টুর্নামেন্ট চলাকালীন ক্রিকেটাররা জৈব সুরক্ষা বলয় বা বায়ো-বাবল থেকে বের হতে পারবেন না। প্রত্যেকদিন দুটি করে ম্যাচ হতে পারে। ইডেনের ফ্লাডলাইটে ম্যাচ আয়োজিত হবে। ক্রিকেটের পাশাপাশি বিনোদনের ব্যবস্থা থাকবে। তবে দর্শক খেলা দেখার সুযোগ পাবেন কিনা তা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। ম্যাচ গুলি সোশ্যাল মিডিয়ায় সরাসরি দেখানো হবে। টেলিভিশনের পর্দায় ম্যাচগুলো দেখানো যায় কিনা সেই নিয়ে কথাবার্তা বলছেন সিএবি কর্তারা।

ছয় দলীয় এই প্রতিযোগিতায় প্রতিটি দল তাদের আট জন করে খেলোয়াড়কে রাখতে পারবে আগের বছরের দলের। বাকি খেলোয়াড় ড্রাফটিং এর মাধ্যমে নেওয়া যাবে। রঞ্জি ট্রফির স্কোয়াডে থাকা সমস্ত ক্রিকেটার-সহ ময়দানের বেশ কয়েকজন ধারাবাহিকভাবে পারফর্ম করা ক্রিকেটাররাও থাকবেন। আইপিএল খেলা আসা শাহবাজ আহমেদ, শ্রীবৎস গোস্বামীও খেলবেন। নেট বোলার হিসেবে আইপিএলে যাওয়া সায়ন ঘোষ, আকাশদীপ স্কোয়াডে রয়েছেন। দু-একটি কর্পোরেট দলও  টুর্নামেন্টে থাকতে পারে।

করোনা আবহে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর ইতিমধ্যেই ক্রিকেট ফিরেছে ২২ গজে। ভারতে না হলেও সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে আয়োজিত হয়েছে আইপিএল। অস্ট্রেলিয়া সফর দিয়ে ভারতীয় ক্রিকেটাররাও দেশের জার্সিতে মাঠে নামছেন। তবে ঘরোয়া ক্রিকেট কবে থেকে শুরু হবে তা এখনও চূড়ান্ত করতে পারেননি বিসিসিআই কর্তারা। প্রাথমিকভাবে ঠিক হয়েছে আগামী বছর জানুয়ারি থেকে শুরু হতে পারে ঘরোয়া ক্রিকেট।

ভারতের করোনা পরিস্থিতির দিকে সবসময় নজর রাখছেন বোর্ড কর্তারা। তবে এরমধ্যেই কলকাতায় ক্রিকেট ফিরতে চলেছে। আইপিএলের ধাঁচেই ক্রিকেট টুর্নামেন্ট করছে সিএবি। করোনার ধাক্কায় মাঠে ক্রিকেট বন্ধ থাকলেও খেলোয়াড়দের শারীরিক অবস্থা ঠিক রাখতে সব সময় নজর রেখে চলেছে সিএবি। অনলাইনে ফিটনেস ক্লাস হওয়ার পাশাপাশি প্রায় এক মাস হল রঞ্জি ট্রফির প্রাথমিক স্কোয়াড তৈরি করে ইডেনে জিম এবং শারীরিক কসরত শুরু করে দিয়েছে বাংলার ক্রিকেটাররা। এবার ক্রিকেটারদের ম্যাচ প্র্যাকটিস দিতে টুর্নামেন্ট আয়োজন করছে কর্তারা। সিএবি প্রেসিডেন্ট অভিষেক ডালমিয়া জানান, "সমস্ত পরিকল্পনা চূড়ান্ত। দ্রুত সিএবি এপেক্স কাউন্সিলের বৈঠকের পরই ক্রীড়া সূচি এবং নিয়ম প্রকাশ করা হবে। ক্রিকেটার সহ টুর্নামেন্টের সঙ্গে যুক্ত থাকা প্রত্যেকেই হোটেলে রাখা হবে বায়ো-বাবলে। টুর্নামেন্ট নিয়ে ইতিমধ্যেই বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে।" তবে সিএবির এই নয়া টুর্নামেন্টের পরও একটা প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। ক্রিকেটারদের জৈব সুরক্ষা বলয় এর মধ্যে রেখে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হলেও ক্লাব ক্রিকেট চলতি মরশুমে করা যাবে কিনা তা নিয়ে এখনও নিশ্চিত নন সিএবি কর্তারা।

ঈরন রায় বর্মন

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: