corona virus btn
corona virus btn
Loading

'ক্যান্সার হারিয়ে ৬৫-তেও অনেকের থেকে বেশি ফিট,' বোর্ডের নির্দেশিকা নিয়ে অরুণলাল

'ক্যান্সার হারিয়ে ৬৫-তেও অনেকের থেকে বেশি ফিট,' বোর্ডের নির্দেশিকা নিয়ে অরুণলাল

রবিবার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে ১০০ পাতার স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর বা এসওপি সমস্ত রাজ্যসংস্থাগুলোতে পাঠানো হয়েছে।

  • Share this:

"করোনা হওয়ার কি কোনও নির্দিষ্ট বয়স রয়েছে? ৪৫ বছর বয়সের কোনও ব্যক্তিরও করোনা হতে পারে। তা হলে কোভিড পরিস্থিতিতে ঘরোয়া ক্রিকেটে কোচিং করানোর ক্ষেত্রে ৬০ বছরের বয়স সীমা কী করে বেঁধে দেওয়া হচ্ছে? প্রশ্ন তুললেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার তথা বাংলার রঞ্জি কোচ অরুণলাল।

রবিবার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে ১০০ পাতার স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর বা এসওপি সমস্ত রাজ্যসংস্থাগুলোতে পাঠানো হয়েছে। সেখানে নির্দেশ রয়েছে, ৬০ বছরের বেশি কোনও ব্যক্তি ক্রিকেট দলের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারবেন না। বিশেষ করে যাঁদের ডায়াবেটিস, ফুসফুসে সমস্যা হয়েছে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম তাঁরা শিবিরের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারবেন না। কোচ, সাপোর্ট স্টাফ, আম্পায়ার, গ্রাউন্ড স্টাফদের জন্যও এই নিয়ম প্রযোজ্য। কারণ তাঁদের শরীরে সহজেই সংক্রমণ ছড়াতে পারে। তাই সরকারি নির্দেশ ছাড়া কোনও শিবিরের সঙ্গে এই সমস্ত ব্যক্তি যুক্ত থাকতে পারবেন না।

এই নির্দেশিকার পরেই জল্পনা শুরু হয় বাংলার ক্রিকেট মহলে। বাংলা সিনিয়র দলের কোচ অরুণলালের বয়স ৬৫ বছর। এবং ক্যান্সারের মতো ব্যাধি থেকে তিনি সেরে উঠেছেন। ফলে তার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম। তবে এই নির্দেশিকা নিয়েই প্রশ্ন তুললেন অরুণলাল। লালজির দাবি, "এই মুহূর্তে আমার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সব থেকে বেশি। ৬৫ বছর বয়সে আমি সব থেকে ফিট আছি। রোজ শারীরিক কসরত করি। নিয়মিত জিম ও সাঁতার কেটে নিজেকে ফিট রাখি। অনেক কম বয়সীদের থেকে আমি শক্তপোক্ত। পাঁচ বছর আগে ক্যান্সার সেরে গেছে। আমার শারীরিক কোনও সমস্যা নেই। তবে সরকারি নির্দেশিকা আমি মানবো। আমার বিশ্বাস বোর্ডের নির্দেশিকায় আগামী দিনে পরিবর্তন হবে। করোনা পরিস্থিতিতে কবে ক্রিকেট শুরু হবে কেউ জানে না। তাই এখন থেকে এইসব নিয়ে ভাবার কিছু নেই। আশা করি পরিস্থিতি ঠিক হলে নির্দেশিকায় নিয়মের শিথিলতা আসবে।"

তবে সোমবার সিএবির পক্ষ থেকে অরুণলালকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, তিনিই কোচ থাকছেন বাংলা দলের। প্রেসিডেন্ট অভিষেকের সঙ্গে কথা হয় লালজির। আপাতত বাড়িতে বসেই অনলাইনে ক্রিকেটারদের ট্রেনিং করাবেন অরুণলাল। জিম এবং ফিটনেস ট্রেনিং হবে ফিজিক্যাল ট্রেনারের তত্ত্বাবধানে। আপাতত মাঠে নেমে অনুশীলন শুরু হচ্ছে না। অরুণলাল বলেন, "শুধু বাড়িতে বসে ট্রেনিং করলে ফিটনেস ধরে রাখা মুশকিল। মাঠে নামতেই হবে। ব্যাটিং-বোলিং অনুশীলন বাড়িতে হয় না। তবে কঠিন পরিস্থিতিতে সেটা কবে থেকে সম্ভব জানা নেই। ঘরোয়া ক্রিকেটে সমস্ত টুর্নামেন্ট নির্দিষ্ট সময় হবে কিনা তাও এই মুহূর্তে বলা অসম্ভব। এই পরিস্থিতির ওপর নজর রেখে চলেছি। ক্রিকেটারদের নিয়ে আমার যা প্ল্যানিং তা বাড়িতে বসে কার্যকর করার চেষ্টা করছি। পরিস্থিতি ঠিক হলে আমি মাঠে নেমেই কোচিং করাবো।"

ERON ROY BURMAN

Published by: Arindam Gupta
First published: August 4, 2020, 12:22 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर