ভারতের তুলনায় এগিয়ে নিউজিল্যান্ড, কেন বলছেন কামিন্স ?

ইংলিশ আবহাওয়ার জন্য এগিয়ে নিউজিল্যান্ড বলছেন কামিন্স

অস্ট্রেলিয়ার এই জোরে বোলারের দাবি কিউইদের জোরে বোলিংয়ে ভারসাম্য অনেক বেশি। তাছাড়া ইংল্যান্ডের স্যাঁতস্যাঁতে আবহাওয়াতে নিউজিল্যান্ডের সুইং বোলাররা বেশি সফল হবে বলে মনে করেন এই ডানহাতি জোরে বোলার

  • Share this:

    #সিডনি: টেস্ট ক্রিকেটে দুনিয়ার সেরা বোলার তিনি। শুধুই গতি নয়, সুইং এবং ভ্যারিয়েশন দিয়ে ঝামেলায় ফেলতে পারেন তাবড় ব্যাটসম্যানদের। তবে মুখে সর্বদা হাসি লেগেই থাকে তাঁর। বল হাতে তিনি যতটা আক্রমনাত্মক, কথা বলার সময় ততটাই নমনীয়। ব্যাট হাতেও দল বিপদে পড়লে গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলতে পারেন। কেকেআর দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। ভারত নয় বরং বিশ্ব টেস্ট ফাইনালের মঞ্চে নিউজিল্যান্ড এগিয়ে রয়েছে। এমনটাই মনে করেন প্যাট কামিন্স।

    অস্ট্রেলিয়ার এই জোরে বোলারের দাবি কিউইদের জোরে বোলিংয়ে ভারসাম্য অনেক বেশি। তাছাড়া ইংল্যান্ডের স্যাঁতস্যাঁতে আবহাওয়াতে নিউজিল্যান্ডের সুইং বোলাররা বেশি সফল হবে বলে মনে করেন এই ডানহাতি জোরে বোলার। এই বিষয়ে মতামত রাখতে গিয়ে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে কামিন্স বলেন, ‘এই ফাইনালে যে দারুণ লড়াই হবে সেই ব্যাপারে আমার মনে বিন্দুমাত্র সন্দেহ নেই। তবে এই সময় ইংল্যান্ডে ব্যাপক বৃষ্টি হয়। ফলে আবাহাওয়ায় স্যাঁতস্যাঁতে ভাব থাকবে। সেদিক থেকে বিচার করে কিন্তু নিউজিল্যান্ডের জেতার সম্ভাবনা বেশি। কারণ এমন অবস্থায় ওদের জোরে বোলাররা উইকেট থেকে বাড়তি সুইং আদায় করে নিতে পারবে ’।

    একদিকে বিরাট কোহলির কাছে মহম্মদ শামি, যশপ্রীত বুমরা, ইশান্ত শর্মা, উমেশ যাদব রয়েছেন। সিনিয়ররা চোট পেলে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্য আছেন শার্দূল ঠাকুর ও মহম্মদ সিরাজ। অন্যদিকে কেন উইলিয়ামসনের কাছে ট্রেন্ট বোল্ট, টিম সাউদি, কাইল জেমিসন, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ও নিল ওয়াগনারের মতো জোরে বোলার। ফলে আসন্ন বিশ্ব টেস্ট ফাইনালে যে জোরে বোলারদের দাপট দেখা যাবে সেটা আগেভাগেই বোঝা যাচ্ছে।

    বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ১৪ টেস্টে সর্বাধিক ৭০ উইকেট নিয়েছেন কামিন্স। ১৩ টেস্টে ৬৭ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। আর তাই ফাইনাল খেলতে না পারার আফসোস কিন্তু তাঁর রয়েই গিয়েছে। সেই প্রসঙ্গে কামিন্স বলেন, “আমরা ৬টি সিরিজে এগিয়ে ছিলাম। কিন্তু ভারতের বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে হার ও করোনার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকা সফর বাতিল হওয়ার জন্য আমরা পিছিয়ে গেলাম। সেটা নিয়ে মন খারাপ হলেও ফাইনালের আগে দুটো দলকেই শুভেচ্ছা জানাই।”

    তবে তিনি যাই বলুন নিউজিল্যান্ড জোরে বোলাররা যেমন ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের কাজটা কঠিন করে তুলবেন, তেমনই ইশান্ত, শামি, বুমরার মত পেসারদের সামলাতেও কালঘাম ছুটবে উইলিয়ামসনদের। উইলিয়ামসন ছাড়াও বেশ কিছু ভাল ব্যাটসম্যান রয়েছে নিউজিল্যান্ডে। তাঁদেরও কিন্তু ভারতীয় জোরে বোলারদের আগুন সামলাতে হবে।মুখে নয়, মাঠেই প্রমাণ হবে কারা এগিয়ে।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: