• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • Muslims Move Court to Save Temple in Delhi: মন্দির ভাঙছে প্রোমোটার, রক্ষা করতে দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ মুসলিম বাসিন্দারা

Muslims Move Court to Save Temple in Delhi: মন্দির ভাঙছে প্রোমোটার, রক্ষা করতে দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ মুসলিম বাসিন্দারা

মন্দির বাঁচাতে দিল্লি হাইকোর্টে আবেদন মুসলিম বাসিন্দাদের৷

মন্দির বাঁচাতে দিল্লি হাইকোর্টে আবেদন মুসলিম বাসিন্দাদের৷

গত ২৪ সেপ্টেম্বর দিল্লি হাইকোর্টের বিচারপতি সঞ্জীব সচদেব দিল্লি পুলিশকে মন্দিরের বেআইনি দখলদারি আটকাতে নির্দেশ দিয়েছেন (Muslims Move Court to Save Temple in Delhi)৷

  • Share this:

    #দিল্লি: মন্দির ভেঙে দেওয়ার পরিকল্পনা করছে এক প্রমোটার মাফিয়া৷ আর সেই মন্দিরকে রক্ষা করতেই আদালতের দ্বারস্থ হলেন দিল্লির (Delhi) জামিয়া নগরের মুসলিম বাসিন্দারা (Muslims Move Court to Save Temple in Delhi)৷ তাঁদের আশঙ্কা, নুর নগরের ওই মন্দির ভেঙে এলাকায় সাম্প্রদায়িক অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা হচ্ছে৷ তাই মন্দির ভাঙা আটকাতে দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন তাঁরা৷

    দিল্লি হাইকোর্টে (Delhi High Court) করা আবেদনে অভিযোগ করা হয়েছে, বেআইনি ভাবে ওই মন্দিরটি গুড়িয়ে দিতে চাইছে ওই নির্মাণ ব্যবসায়ী৷ মন্দিরের জমি দখল করাই তার আসল উদ্দেশ্য৷

    আরও পড়ুন: দিল্লির আদালতে শ্যুটআউটে নিহত গ্যাংস্টার জিতেন্দর গোগী আসলে কে?

    জামিয়া নগরের ২০৬ ওয়ার্ডের বাসিন্দারা দিল্লি হাইকোর্টে আবেদন করে জানিয়েছেন, 'মন্দিরের ধর্মশালাটি এক রাতের মধ্যে তড়িঘড়ি ভেঙে ফেলে তার জমি সমান করে ফেলা হয়েছে (Muslims Move Court to Save Temple in Delhi)৷ যাতে তা জমি মাফিয়া এবং নির্মাণ ব্যবসায়ীরা দখল করে নিতে পারে৷'

    গত ২৪ সেপ্টেম্বর দিল্লি হাইকোর্টের বিচারপতি সঞ্জীব সচদেব দিল্লি পুলিশকে মন্দিরের বেআইনি দখলদারি আটকাতে নির্দেশ দিয়েছেন৷ ওই অঞ্চলে যাতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির কোনও সমস্যা না হয়, তা নিশ্চিত করার জন্যও পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷

    নুর নগরের ওয়ার্ড কমিটির আবেদনকারীরা আদালতে আরও জানিয়েছেন, ওই মন্দিরটি ১৯৭০ সালে তৈরি করা হয়েছিল৷ ডিডিএ লেআউট প্ল্যানেও ওই মন্দিরের উল্লেখ রয়েছে৷

    আবেদনে জানানো হয়, ১৯৭০ সালে তৈরি হওয়া ওই মন্দিরে এতদিন কোনও বাধ, বিঘ্ন ছাড়াই পুজো এবং কীর্তন আয়োজিত হয়েছে৷ মন্দিরে পুজোর জন্য সাত থেকে আটটি বিগ্রহ রয়েছে৷ সেগুলি এখন দুষ্কৃতীরা সরিয়ে ফেলছে৷ আবেদনে আরও অভিযোগ করা হয়েছে, এলাকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ভঙ্গ করতেই অজ্ঞাতপরিচয় কিছু দুষ্কৃতী ওই মন্দির এবং তার ধর্মশালা ভেঙে ফেলছে৷ মন্দিরের জমিতে বহুতল তৈরি করে ফ্ল্যাট বিক্রি করার পরিকল্পনা করেই এই কাজ করা হচ্ছে৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: