''মারাদোনা খুন হয়েছে!'' অজানা দোষীদের খুঁজতে রাস্তায় আর্জেন্টিনার হাজারো মানুষ

''মারাদোনা খুন হয়েছে!'' অজানা দোষীদের খুঁজতে রাস্তায় আর্জেন্টিনার হাজারো মানুষ

সেই মৃত্যু, মারাদোনার মহাপ্রস্থান যেন ফুটবল বিশ্বের ঘড়ি থামিয়ে দিয়েছিল ২৫ নভেম্বর, ২০২০-তেই।

সেই মৃত্যু, মারাদোনার মহাপ্রস্থান যেন ফুটবল বিশ্বের ঘড়ি থামিয়ে দিয়েছিল ২৫ নভেম্বর, ২০২০-তেই।

  • Share this:
    #বুয়েনস আইরেস: প্রায় চার মাস কেটেছে সেই অভিশপ্ত রাতের পর। যে রাতের পর ফুটবল সমর্থকদের কাছে প্রতিটা সকালই অন্ধাকারাচ্ছন্ন। পৃথিবী থাকল, ফুটবল ঈশ্বর অদৃশ্য হলেন আচমকাই। সেই মৃত্যু, মারাদোনার মহাপ্রস্থান যেন ফুটবল বিশ্বের ঘড়ি থামিয়ে দিয়েছিল ২৫ নভেম্বর, ২০২০-তেই। সমর্থকদের বুক ফাটা আর্তনাদ, হাহাকার, বিলাপ মহামারীর মতোই ছড়িয়েছে বিশ্বজুড়ে। আর সেই মৃত্যুকে মেনে না নেওয়ার জেদও একরোখা। দিয়েগো মারাদোনার মৃত্যু বিশ্বাসযোগ্যই নয় তাঁদের কাছে। তবে বাস্তব তো রুক্ষই। আর এই রুক্ষ বাস্তবের সঙ্গে লড়তে নেমেছেন কয়েক লাখ দিয়েগো-ভক্ত। তাঁদের বিশ্বাস, মারাদোনা মারা যাননি। তাঁকে খুন করা হয়েছে। মারাদোনার মৃত্যুর পর থেকেই এই খুন-তত্ত্ব বারবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। আরও একবার সেই পুরনো তত্ত্বই নেমে এল রাস্তায়। এবার আর্জেন্টিনার অগণিত মারাদোনা সমর্থক প্ল্যাকার্ড, পোস্টার নিয়ে রাস্তায় নামলেন। বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে থাকা মারাদোনার সমর্থকরা বারবার দাবি করেছেন, ফুটবলের রাজপুত্রের মৃত্যুর তদন্তে যেন কোনও ফাঁক না থাকে। তদন্ত গতি পাওয়ার পরও তাঁদের স্বস্তি আসেনি। মারাদোনার মৃত্যুর পিছনে থাকা অজানা দোষীদের এখনও খুঁজছেন সমর্থকরা। জাস্টিস পর দিয়েগো- স্লোগান তুলে তাঁরা এখনও আর্জেন্টিনার রাস্তা তোলপাড় করছেন। এদিন হাজারো আর্জেন্টাইন সমর্থক বুয়েনস আইরেসের রাস্তায় জনস্রোত বইয়ে দিলেন। শহরের কেন্দ্রস্থলে থাকা মনুমেন্ট থেকে মিছিল শুরু হল। স্লোগান, ঝাণ্ডা ওড়ানো, মারাদোনার জন্য বাঁধা গান, কিছুই বাদ গেল না। মারাদোনার প্রাক্তন স্ত্রী ক্লদিয়া ভিয়াফান ও তাঁর দুই মেয়ের মুখেও ন্যায়বিচারের দাবি শোনা গেল। মাদকাসক্তি, ভেঙে পড়া শরীর, কোনও কিছুই মারাদোনার মৃত্যুর কারণণ হতে পারে না। এমনই দাবি তাঁদের। তা হলে কী করে মৃত্যু হল ফুটবলের সর্বকালের অন্যতম সেরা সুপারস্টারের! সমর্থক, ক্লদিয়াদের দাবি, কেউ বা কারা মারাদোনাকে খুন করেছে। কিন্তু সব ধামাচাপা পড়ে যাচ্ছে। এর আগে অভিযোগ ছিল, মারাদোনার চিকিত্সার দায়িত্বে থাকা মেডিকেল টিমের গাফিলতি ছিল। না হলে মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর প্রায় সুস্থ হয়ে ওঠা দিয়েগোর মৃত্যু হয় কী করে! তবে আপাতত এসবই পিছনে পড়ে রইল। কাঁদিয়ে, ভাসিয়ে চলে গিয়েছেন মারাদোনা।
    Published by:Suman Majumder
    First published:

    লেটেস্ট খবর