স্বেচ্ছায় শৌচালয়ে কোয়ারেন্টাইন, পরিবার ও গ্রামের কথা ভেবে সিদ্ধান্ত যুবকের

স্বেচ্ছায় শৌচালয়ে কোয়ারেন্টাইন, পরিবার ও গ্রামের কথা ভেবে সিদ্ধান্ত যুবকের

পরিবার ও গ্রামবাসীর স্বাস্থ্যের কথা ভেবে পরিত্যক্ত শৌচালয়ে থাকছেন পুরুলিয়ার এক যুবক

পরিবার ও গ্রামবাসীর স্বাস্থ্যের কথা ভেবে পরিত্যক্ত শৌচালয়ে থাকছেন পুরুলিয়ার এক যুবক

  • Share this:

    #পুরুলিয়া: পরিবার ও গ্রামবাসীদের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে শৌচালয়ে স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে যুবক। হাওড়া থেকে পুরুলিয়ার বান্দোয়ানের কুচিয়ায় ফেরেন পরিযায়ী শ্রমিক মহাদেব সিং। ৬ দিন ধরে নির্মল বাংলার পরিত্যক্ত শৌচালয়ে থাকছেন মহাদেব।

    মহামারী করোনার থেকে বাঁচতে সামাজিক দূরত্বই একমাত্র ওষুধ। কোয়ারেন্টাইেনে কেউ নৌকায় কাটাচ্ছেন। কেউ আবার গাছে মাচা তৈরি করে থাকছেন। গ্রামে ফিরে বনবাসে চলে যাচ্ছেন অনেক পরিযায়ী শ্রমিক। এবার পরিবার ও গ্রামবাসীর স্বাস্থ্যের কথা ভেবে পরিত্যক্ত শৌচালয়ে থাকছেন পুরুলিয়ার এক যুবক। রবিবার হাওড়া থেকে বান্দোয়নের কুচিয়ায় ফেরেন মহাদেব সিং। কিন্তু গ্রামে ঢোকেননি তিনি। গ্রামের বাইরে নির্মল বাংলার পরিত্যক্ত শৌচালয়ে থাকতে শুরু করেন। মহাদেব জানান, মাটির দুটো ঘর। একটিতে বাবা-মা, বোন এবং অন্য ঘরে স্ত্রী ও মেয়ে থাকেন। তার থাকার জায়গা কোথায়? প্রয়োজনীয় জিনিস দূর থেকে দিয়ে আসছেন পরিবারের সদস্যরা।

    মহাদেবের প্রশংসা করেন জেলা পরিষদের সভাধিপতি।

    রাতে সাপ-খোপের ভয় আছে। তবু পরিবারের কথা ভেবে শৌচালয়ে বাস। চোদ্দো দিন কাটলে সংক্রমণের ভয় নেই। তারপর নিশ্চিন্তে ঘরে ফিরবেন মহাদেব।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: