Mamata Banerjee at Jhargram: আদিবাসী জমি রক্ষায় দেশজোড়া ডাক, ধামসা-ঝুমুর-নাচের তালে ঝাড়গ্রামে অন্য মুখ্যমন্ত্রী

আদিবাসীদের সঙ্গে নাচের তালে মমতা।

তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর সোমবার প্রথম জঙ্গলমহলে গেলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee at Jhargram) (Mamata Banerjee at Adivasi Utsav)।

  • Share this:

    #ঝাড়গ্রাম: তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর সোমবার প্রথম জঙ্গলমহলে গেলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee at Jhargram)। ঝাড়গ্রামে বিশ্ব আদিবাসী (World Indigenous Day) দিবস উপলক্ষে উপস্থিত হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী (Mamata Banerjee at Adivasi Utsav)। আদিবাসীদের সাবেকি পোশাক পরে তাঁদের সঙ্গে নাচের তালে পা মেলাতে দেখা যায় মমতাকে। আদিবাসী বিশিষ্টদের সম্মান জানান মুখ্যমন্ত্রী। আদিবাসীদের সঙ্গে ধামসাও বাজাতে দেখা যায় তাঁকে। ঝুমুরও তুলে নিয়েছিলেন হাতে। পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন মন্ত্রী বীরবাহা হাঁসদা। এদিন আদিবাসী সংস্কৃতির সঙ্গে একাত্ম হয়ে এক অন্য মমতা ধরা দেন ঝাড়গ্রামে।

    সারা দেশে আদিবাসীদের অধিকার রক্ষার ডাক দেন মমতা। আদিবাসী দিবসের অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে মমতার দাবি, 'আদিবাসীদের জমি হস্তান্তর করা যাবে না। আমাদের সরকার সেই আইন চালু করেছে। সারা দেশে আদিবাসীদের অধিকারে এই আইন চালু করা উচিত। আদিবাসীদের জন্য আলাদা দফতর তৈরি করা হয়েছে।'

    এদিন ভারত ছাড়ো আন্দোলনের কথা মঞ্চ থেকে স্মরণ করেন মমতা। আদিবাসী দিবসে ঝাড়গ্রামের বিশিষ্টদের সম্মান জানায় সরকার। মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, 'গত ৩ বছর ধরে আদিবাসী দিবস পালন করে আসছি। আদিবাসী সমাজের সকালে আরও এগিয়ে যাবেন। ঝাড়গ্রামকে আমরা ২০১৭ সালে নতুন জেলা করেছি। এখানে সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতাল, ৪টি কলেজ করা হয়েছে। স্পোর্টস কমপ্লেক্স করা হয়েছে। আদিবাসী ভাষাকে সম্মান জানানো হয়েছে। এই রাজ্যেই একমাত্র সাঁওতালি ভাষায় পড়াশোনার ব্যবস্থা করা হয়েছে। স্নাতক শিক্ষা চালু করা হয়েছে। দেশের আরও কোনও রাজ্যে নেই। অলচিকি ভাষায় ৫০০ স্কুল তৈরি করা হয়েছে। মাও হানায় মৃতদের পরিবারকে চাকরি দেওয়া হয়েছে। আপনারা আমাদের অনেক আশীর্বাদ দিয়েছেন। আপনাদের কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।'

    ২০১৯-এর লোকসভা ভোটে জঙ্গলমহলে জমি শক্ত করেছিল বিজেপি। তৃণমূলের বাগানে ঝড় উঠেছিল পদ্মের। ঝাড়গ্রাম লোকসভা আসনটিও ছিনিয়ে নিয়েছিল তারা। সেই লোকসভা ভোটের বিধানসভা ভিত্তিক ফল অনুযায়ী, ঝাড়গ্রামের চারটি বিধানসভা কেন্দ্রেই এগিয়ে ছিল গেরুয়া শিবির। কিন্তু বিধানসভার আগে রাশ হাতে নেন খোদ মমতা। আদিবাসীদের মন জিততে একাধিক প্রকল্প ঘোষণা করেছিলেন তিনি। একুশের বিধানসভা ভোটে সেগুলিই তৃণমূল নেত্রীকে ডিভিডেন্ট দেয়। ২ মে বিধানসভা ভোটের ফলপ্রকাশের পর দেখা যায়, ঝাড়গ্রাম জেলার চারটি বিধানসভা আসনেই জিতেছে তৃণমূল। কাজে আসেনি বিজেপির ডবল ইঞ্জিন সরকার গড়ার প্রতিশ্রুতি। বরং বাংলার মেয়ের উপর তৃতীয়বারের জন্য ভরসা রেখেছে জঙ্গলমহল। আর সেই 'আশীর্বাদের' প্রতিদান এদিন ঝাড়গ্রামের মাটিতেই দিয়ে এলেন মুখ্যমন্ত্রী।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: