Home /News /south-bengal /
Bardhaman News: বাংলার কাঠের পুতুলের বিদেশে পাড়ি! সব থেকে বেশি বিক্রি পেঁচার

Bardhaman News: বাংলার কাঠের পুতুলের বিদেশে পাড়ি! সব থেকে বেশি বিক্রি পেঁচার

Bardhaman News: কাঠের পুতুল এবার গ্রামবাংলার মেলা পেরিয়ে বিদেশে।

  • Share this:

#পূর্বস্থলী: কাঠের পুতুলের দেশ। পূর্ব বর্ধমানের পূর্বস্থলীর নতুনগ্রাম। এই গ্রাম কাঠের পুতুলের গ্রাম নামে পরিচিত। ঘরে ঘরে দিন-রাত এক করে তৈরি হচ্ছে কাঠের পুতুল।

এই শিল্প বঙ্গীয় ঘরানার কাঠের পুতুলের জন্য স্বতন্ত্র। বৈষ্ণব প্রভাবিত অগ্রদ্বীপ সন্নিহিত হওয়ায় শিল্পের সঙ্গে বৈষ্ণবীয় ধারার নীবিড় সম্পর্কও রয়েছে।

রাজ্যের বিভিন্ন মেলা ছিল এতদিন এই কাঠের পুতুল বিক্রির জায়গা। পুজোর সময় কলকাতা ও জেলার বড় বড় মন্ডপের সামনে কাঠের পুতুলের পসার সাজাতেন শিল্পীরা।

আরও পড়ুন- সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রেম! পালালো বউ! স্ত্রীকে খুঁজে পেতে অবাক কাণ্ড ঘটালেন স্বামী!

বিক্রিবাট্টা সব সময় যে ভালো হত তেমন নয়। তবে সামাজিক মাধ্যম এখন বিশ্বজুড়ে বাজার খুলে দিয়েছে নতুন গ্রামের শিল্পীদের সামনে। অনলাইনে পেমেন্ট মিলছে। সেই ঠিকানায় পৌঁছে যাচ্ছে নতুনগ্রামের কাঠের পুতুল। চাহিদা বাড়ায় এখন ব্যস্ততা ঘরে ঘরে।

রাধাকৃষ্ণ, গৌড় নিতাই, জগন্নাথ-বলরাম-সুভদ্রা, বর-কনে তৈরি হলেও সবচেয়ে বেশি তৈরি হয় কাঠের পেঁচা। আজ থেকে নয়, কয়েকশো বছর ধরেই এই পুতুল তৈরি হয় বর্ধমানের নতুন গ্রামে। এবার পশ্চিমবঙ্গ সরকার এই শিল্পকে জিআই ট্যাগ দেওয়ার জন্য উদ্যোগ নিয়েছে।

আজকের এই নতুনগ্রামে একসময় ছিল গভীর জঙ্গল। একদল কাঠুরিয়া কাঠ কাটতে এসে এখানে এই গ্রাম গড়ে তোলেন। নাম হয় নতুনগ্রাম। সেখানে থাকতে শুরু করেন সূত্রধররা। প্রথমে পাথরের মূর্তি গড়লেও পরে তাঁরা এই কাঠের শিল্পকে আপন করে নেন।

রথের মেলা, রাসযাত্রা, জয়দেবের মেলা সহ সব মেলাতেই নতুনগ্রামের বিভিন্ন কাঠের পুতুলের চাহিদা বরাবরের। চাহিদা বেড়েছে মঞ্জুষা, বিশ্ববাংলার স্টলে। তবে এখন সোস্যাল মিডিয়ার হাত ধরে বিশ্বজোড়া বাজার পেয়েছে নতুনগ্রাম। রাজ্য দেশের সীমানা ছাড়িয়ে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অর্ডার আসছে অন লাইনে।

আরও পড়ুন- দুই সাপের লড়াই, অনেকেই বলেন যৌন মিলন, সত্যিই কি তাই?

চাহিদা বাড়ায় বাড়ছে অভিনবত্ব। কাঠের পেঁচা জায়গা করে নিচ্ছে জানালার পর্দা, ঘড়ি, শো পিসে। দিন রাত এক করে কাজ করছেন বাড়ির সকলে। কাঠের পেঁচার দাম কুড়ি টাকা থেকে দু হাজার টাকা বা তারও বেশি। যেমন উচ্চতা তেমন দাম।

Published by:Suman Majumder
First published:

Tags: Bardhaman, Bardhaman news

পরবর্তী খবর