প্রেম করে বিয়ে, তিন বছরের মাথায় পণের দাবিতে বধূকে পুড়িয়ে মারল পরিবার

অভিযুক্ত মিঠুন মণ্ডল ও তাঁর বাবা বুদ্ধিশ্বর মণ্ডলকে কলকাতা লেদার কমপ্লেক্স থানার পুলিশ আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

অভিযুক্ত মিঠুন মণ্ডল ও তাঁর বাবা বুদ্ধিশ্বর মণ্ডলকে কলকাতা লেদার কমপ্লেক্স থানার পুলিশ আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

  • Share this:

    #পাঁচুরিয়া: পনের টাকা না দিতে পারায় গৃহবধূকে পুড়িয়ে হত্যা। ঘটনাটি ভাঙড়ের লেদার কমপ্লেক্স থানার পাঁচুড়িয়ার ধর্মতলার। মৃত গৃহবধূর নাম বিন্দি মণ্ডল। বয়স ২১।

    এলাকা সূত্রে জানা গিয়েছে, ছয় বছর আগে একই এলাকার মিঠুন মণ্ডলের সঙ্গে প্রেম করে বিয়ে হয় মৃত বিন্দির। বিয়ের পর থেকে শ্বশুরবাড়ির লোকজন বাপেরবড়ি থেকে টাকা আনার চাপ দিতে থাকে ৷ বছর তিনেক আগে একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন বিন্দি ৷ এরপর থেকেই নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে যায়। রোজই ছোট বড় নানা কারণে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন করত বলে জানা গিয়েছে। গত শুক্রবার নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে যায়। হাত বেঁধে গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। ঘটনার পর আরজিকর মেডিকেল কলেজে ভর্তি করানো হয় ওই মহিলাকে ৷ সেখানেই ওই মহিলা আজ দুপুরে মারা যান বলে জানিয়েছেন মৃতার কাকা। মৃত্যুর খবর পেয়ে এলাকার মহিলারা অভিযুক্তর বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখায়। অবিলম্বে অপরাধীদের শাস্তির দাবি জানান। ঘটনার পর বাড়ির লোকজন পলাতক। অভিযুক্ত মিঠুন মণ্ডল ও তাঁর বাবা বুদ্ধিশ্বর মণ্ডলকে কলকাতা লেদার কমপ্লেক্স থানার পুলিশ আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

    First published: