corona virus btn
corona virus btn
Loading

পুলিশ প্রশাসনকে বিষ মদের বিরুদ্ধে অভিযানে নামতে বাধ্য করল মহিলারা

পুলিশ প্রশাসনকে বিষ মদের বিরুদ্ধে অভিযানে নামতে বাধ্য করল মহিলারা
Representational Image

চোলাই মদে বুঁদ পুরুষরা। বন্ধ উপার্জন। বাড়ছে অত্যাচার। নিরুপায় হয়ে মদের ভাটি উচ্ছেদে কোমর বেঁধে নামল মেমারির ভৈটা গ্রামের মহিলারাই।

  • Share this:

Saradinu Ghosh

#মেমারি: শান্তিপুর, মগরাহাট এখন অতীত। বিষ মদে মৃত্যু মিছিলের স্মৃতি ফিকে হতেই ফের চোলাইয়ের রমরমা পূর্ব বর্ধমান জেলাজুড়ে। চোলাই মদে বুঁদ পুরুষরা। বন্ধ উপার্জন। বাড়ছে অত্যাচার। নিরুপায় হয়ে মদের ভাটি উচ্ছেদে কোমর বেঁধে নামল মেমারির ভৈটা গ্রামের মহিলারাই।

মেমারির ভৈটা গ্রামে চোলাইয়ের রমরমার অভিযোগ দীর্ঘদিনের। পুলিশ প্রশাসনকে জানিয়েও কাজের কাজ কিছু হয়নি বলে অভিযোগ। শুক্রবার পাশের গ্রামে চোলাই মদের ঠেক ভেঙে বর্ধমানে ফিরছিলেন আবগারি দফতরের কর্মী অফিসাররা। মাঝপথে তাদের গাড়ি আটকায় মহিলারা। কিভাবে সবার চোখের সামনে চোলাই মদের কারবার চলছে জানতে চান তাঁরা। অবিলম্বে গ্রামকে বিষ মদ মুক্ত করার দাবি জানান।

আবগারি অফিসারদের ঘেরাও হওয়ার খবর পেয়ে গ্রামে পুলিশ যায়। পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান মহিলারা। তাদের দাবি মেনে গ্রামে চোলাইয়ের ঠেক ভাঙা হবে বলে পুলিশ আশ্বাস দিলে আবগারি দফতরের আধিকারিকদের ঘেরাও মুক্ত করে গ্রামবাসীরা।

মহিলাদের দাবি মেনে শনিবার মেমারি থানার পুলিশ গিয়ে ভৈটা গ্রামে চোলাইয়ের বিরুদ্ধে অভিযান চালায়। বেশ কয়েকটি মদের ভাটি ভেঙে দেওয়া হয়। কয়েক হাজার লিটার চোলাই নষ্ট করা হয়। বাজেয়াপ্ত করা হয় চোলাই তৈরির সরঞ্জাম। চোলাই তৈরির অভিযোগে তিন জনকে আটক করে পুলিশ।

মহিলাদের অভিযোগ, গ্রামের পাড়ায় পাড়ায় প্রকাশ্যেই চোলাই তৈরি হচ্ছে। পাড়ার গুমটিতে বিক্রি হচ্ছে চোলাই। তাতে বুঁদ হয়ে থাকছে পুরুষরা। ঘরে ঘরে মহিলাদের ওপর নির্যাতন বাড়ছে। অবিলম্বে মদ তৈরি বন্ধ হোক চাইছি আমরা। সেইজন্য আবগারি অফিসারদের ঘেরাও করেছিলাম। আমাদের দাবি মেনে পুলিশ অভিযান চালিয়েছে। ফের চোলাই তৈরি শুরু হলে আমরাই এবার সেই ঠেক ভাঙবো।

মগরাহাটের পর শান্তিপুরে বিষ মদে মৃত্যুর মিছিলে রাজ্যজুড়ে আলোড়ন পড়ে যায়। সরকারের নির্দেশে রাজ্যজুড়ে চোলাই ভাটি উচ্ছেদে নামে পুলিশ প্রশাসন। সেসব থিতিয়ে আসতেই আবারও শুরু হয়েছে চোলাইয়ের রমরমা। তার বিরুদ্ধে গিয়ে রুখে দাঁড়ালো মহিলারা।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: January 4, 2020, 6:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर