Home /News /south-bengal /

Woman fled: দীর্ঘক্ষণ স্বামীকে লুকিয়ে ফোনালাপ স্ত্রীর, সকালে শ্বশুর দেখলেন নাতিকে নিয়ে বেপাত্তা বৌমা

Woman fled: দীর্ঘক্ষণ স্বামীকে লুকিয়ে ফোনালাপ স্ত্রীর, সকালে শ্বশুর দেখলেন নাতিকে নিয়ে বেপাত্তা বৌমা

প্রতীকী ছবি Photo by Denis Oliveira on Unsplash

প্রতীকী ছবি Photo by Denis Oliveira on Unsplash

Woman Fled With Son: শাশুড়ি শঙ্করী সেনাপতি জানান, ছেলে নিশিকান্ত ভিনরাজ্যে সোনার কাজ করে। সেখানেও যাওয়ার কথা নয়। পাশাপাশি ছেলের সঙ্গে বা তাঁদের সঙ্গে কোনও ধরণের ঝগড়াঝাটিও হয়নি যে বৌমা রাগ করে চলে যাবে।

  • Share this:

    #দাশপুর: ফের বালির ঘটনার ছায়া! এ বার ঘটনাটি ঘটেছে দাশপুর থানার গোবিন্দনগরের সেনাপতি পরিবারে। পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এক ৯ বছরের সন্তানকে নিয়ে সোমবার উধাও হয়ে গিয়েছে বাড়ির বৌমা। বাড়ির ছেলে, অর্থাৎ ওই মহিলার স্ত্রী ভিনরাজ্যে কর্মরত। শ্বশুর, শাশুড়ির সঙ্গে সন্তানকে নিয়ে থাকতেন ওই মহিলা। সোমবার সকালে হঠাৎই তার ঘরে গিয়ে শ্বশুর-শাশুড়ি দেখেন, ঘর ফাঁকা। বৌমা পালিয়েছে, সঙ্গে নিয়ে গিয়েছে নাতিকেও। সন্ধান না পেয়ে বাধ্য হয়ে স্থানীয় থানায় অভিযোগ করা হয়েছে পরিবারের পক্ষ থেকে। সন্দেহ করা হচ্ছে, পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন ওই মহিলা।

    শ্বশুর-শাশুড়ি জানাচ্ছেন, বৌমা অন্য ঘরে থাকত। ফোনে সবসময় কীসব করত। পাশা পাশি গভীর রাত পর্যন্ত কথা চলত ফোনে। স্বামী মাঝে মধ্যেই রাতে স্ত্রীকে ফোন করলে স্ত্রীর ফোন থেকে এনগেজড টোন আসত। প্রতিবেশীরাও বলছেন, ঘটনায় পরকীয়া সম্পর্কের যোগ থাকতে পারে।

    আরও পড়ুন- সাতটায় শেষ লোকাল ট্রেন মানে কী? কী নিয়মে চলবে লোকাল ট্রেন, যাত্রীদের জন্য বড় খবর দিল রেল

    সোমবার শ্বশুর মোহন সেনাপতি জানান, ১ জানুয়ারি একশো দিনের কাজ সেরে বাাড়িতে এসে বৌমা পূজার কাছে খাবার চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু কয়েকবার ডাকাডাকির পর খাবার না পাওয়ায় ঘরে খোঁজ করতে যান। গিয়ে দেখেন. খাবার চাইলে দেখেন সারা ঘর ফাঁকা। বৌমা ও বছর ৯-এর নাতিকে বারে বারে ডেকেও কোনো সাড়া মেলেনি। পরে পাড়া প্রতিবেশী আত্মীয়স্বজন ও বৌমার গয়লাখালি গ্রামের বাপের বাড়িতেও খোঁজ চালানো হয়। কিন্তু কোথাও সন্ধান পাওয়া যায়নি ওই মহিলার।

    আরও পড়ুন: আগামিকাল থেকে রাজ্যে ফের বন্ধ স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়! খোলা যাবে না জিম, সেলুন, পার্ক, ঘোষণা নবান্নে...

    শাশুড়ি শঙ্করী সেনাপতি জানান, ছেলে নিশিকান্ত ভিনরাজ্যে সোনার কাজ করে। সেখানেও যাওয়ার কথা নয়। পাশাপাশি ছেলের সঙ্গে বা তাঁদের সঙ্গে কোনও ধরণের ঝগড়াঝাটিও হয়নি যে বৌমা রাগ করে চলে যাবে। তবে বৌমা পূজা কাজের ফাঁকে বা গভীর রাত পর্যন্ত ফোন নিয়ে ব্যস্ত থাকত, এমনই অভিযোগ শাশুড়ির। এ নিয়ে স্বামী নিশিকান্তের সঙ্গে কথা-কাটাকাটিও হয়েছে। স্বভাবতই পরিবারের প্রাথমিক ধারণা বৌমা পূজার সঙ্গে ওই ফোনের মাধ্যমেই কারও সম্পর্ক স্থাপন হয়। আর তার জেরে সন্তানকে নিয়েই সে পালিয়েছে। ঘটনা যাই হোক, দাশপুর পুলিশ সমস্ত বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করেছে।

    সুকান্ত চক্রবর্তী

    Published by:Uddalak B
    First published:

    Tags: Crime

    পরবর্তী খবর