• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • WIFE OF SUVENDU ADHIKARIS SECURITY GUARD SHUVABRATA CHAKRABORTY LODGED NEW FIR ON HER HUSBAND MYSTERIOUS DEATH SB

Suvendu Adhikari: ৩ বছর আগে গুলিতে নিরাপত্তারক্ষীর রহস্যমৃত্যু, নতুন FIR-এ চাপে শুভেন্দু অধিকারী!

চাপ বাড়ল শুভেন্দুর?

Suvendu Adhikari: যে সময় শুভব্রত চক্রবর্তী গুলিবিদ্ধ হন, তখন প্রভাবশালী মন্ত্রী ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী।

  • Share this:

    #কাঁথি: সময়টা ২০১৮ সালের ১৩ অক্টোবর। শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari) নিরাপত্তারক্ষী থাকাকালীন গুলিবিদ্ধ হন শুভব্রত চক্রবর্তী নামে এক যুবক। ১৪ অক্টোবর কলকাতার হাসপাতালে মৃত্যু হয় শুভব্রতর। সেই ঘটনায় এবার নতুন করে FIR দায়ের করলেন শুভব্রতর স্ত্রী সুপর্ণা কাঞ্জিলাল চক্রবর্তী। কাঁথি থানায় নতুন করে অভিযোগ দায়ের করে মহিলা দাবি করেছেন, পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করার। তাঁর অভিযোগ, যে সময় শুভব্রত চক্রবর্তী গুলিবিদ্ধ হন, তখন প্রভাবশালী মন্ত্রী ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। একজন মন্ত্রীর নিরাপত্তারক্ষী থাকাকালীন কীভাবে শুভব্রত গুলিবিদ্ধ হলেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তাঁর স্ত্রী। এমনকী হাসপাতালে নিয়ে যেতে কেন দেরি হল, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

    তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় হল, নতুন এফআইআর-এ ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ পত্রে নাম রয়েছে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী ও তাঁর ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত রাখাল বেরার। কিন্তু এতদিন পর কেন এফআইআর? সুপর্ণা কাঞ্জিলাল চক্রবর্তী জানিয়েছেন, এতদিন আতঙ্কে মুখ বন্ধ করে ছিলেন। কিন্তু এখন তিনি ন্যায়বিচার চাইছেন। তাঁর স্বামীর মৃত্যু রহস্যের সত্য প্রকাশের দাবি জানিয়েছেন তিনি। ছয়-সাত বছর এই দায়িত্বে থাকার পর কীভাবে আচমকা তিনি গুলিবিদ্ধ হলেন, প্রশ্ন তাঁর।

    শুভব্রত চক্রবর্তীর স্ত্রী'র আরও অভিযোগ, চলতি বছরের ২১ মে বেশ কয়েকজন এসে তাঁকে ভয় দেখিয়ে যায়। শুভব্রতর মৃত্যু নিয়ে কোন জায়গা থেকে ফোন এসেছিল কিনা, অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিরা সেই বিষয়টিও জানতে চান বলে অভিযোগ। মহিলার দাবি, নিশ্চয় এর মধ্যে কোনও রহস্য রয়েছে। তিনি মানসিকভাবে ভেঙেও পড়েছেন। তাই স্বামীর মৃত্যু রহস্যের প্রকৃত সত্য উদঘাটনের দাবি জানান তিনি।

    বিষয়টি নিয়ে পুরোদমে আসরে নামছে তৃণমূলও। ইতিমধ্যেই তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ ট্যুইটে নতুন ওই এফআইআর কপি তুলে দিয়ে লিখেছেন, 'দিলীপ ঘোষ বা তাঁদের কেন্দ্রীয় দল কি এই পরিবার ও মহিলাকে চেনেন? মহিলার স্বামী ছিলেন আপনাদের নেতার নিরাপত্তারক্ষী। অনুরোধ করছি, মহিলার আবেদন শুনুন। দেখুন, এখানেও সেই রাখাল বেরার নাম রয়েছে। আপনাদের বিরোধী দলনেতা এই বিধবার প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যেতে চাইছেন।' যদিও বিজেপির তরফে এখনও সেভাবে প্রতিক্রিয়া আসেনি।
    Published by:Suman Biswas
    First published: