প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে গেল স্ত্রী! অস্বাভাবিকভাবে মৃত্যু হল স্বামীর

প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে গেল স্ত্রী! অস্বাভাবিকভাবে মৃত্যু হল স্বামীর
প্রতীকী চিত্র ৷
  • Share this:

#হাবড়া: প্রেমিকের সঙ্গে স্ত্রী পালিয়ে যাওয়ায় অস্বাভাবিক মৃত্যু যুবকের ৷ অভিযুক্তর বাড়ি ভাঙচুর করল গ্রামবাসীরা ৷

উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাবরা থানার পৃথিবী পঞ্চায়েতের রাঘবপুর গ্রামের বাসিন্দা অমিত ঘোষ (২৭) বছর পাঁচেক আগে বিয়ে করেন স্থানীয় শুক্লা দেকে। প্রেম করে বিয়ে করায় পরিবারের লোকজন প্রথমে তাঁদের মেনে নেননি ৷ ফলে দক্ষিণ হাবড়া এলাকায় দু’জনে একটি বাড়ি ভাড়া করে থাকতে শুরু করেন । কিউরিট গার্ডের কাজ নিয়ে সংসার চালায় অমিত।টানাটানির সংসারে অভাব অনটন থাকলেও, ভালবাসা ও বিশ্বাস ছিল অফুরত্ন। দু’জনের একটি চার বছরের কন্যা সন্তানও রয়েছে।

পরিবারের লোকের অভিযোগ, পৃথিবী এলাকার এক যুবকের সঙ্গে ইদানিং সম্পর্ক গড়ে ওঠে শুক্লার। বেশ কিছুদিন সেই প্রেম গোপন ছিল। অবশেষে, অমিত স্ত্রীর সম্পর্কের কথা জানতে পাড়ে। শপিং মলের কর্মী প্রতিবেশী সুব্রত সঙ্গে স্ত্রীর সম্পর্ক নিয়ে শুরু হয় মনোমালিন্য ও ঝগড়াঝাটি। বাড়তে থাকে অশান্তি। স্বামীর ও স্ত্রীর মধ্যে হাতাহাতিও হয় বলে স্থানীয়দের দাবী। মারামারি ঝামেলা চলে দীর্ঘদিন। দিন চারেক আগে অশান্তি চরমে ওঠে।আজ, মঙ্গলবার শুক্লা ঘর ছেড়ে বেরিয়ে যান। রেখে যান চার বছরের কন্যাকে। স্থানীয়দের দাবী প্রেমিকের সঙ্গেই পালিয়েছেন শুক্লা। অন্যদিকে, এদিন ভাড়া বাড়িতেই উদ্ধার হয় অমিতের ঝুলন্ত দেহ । হাবড়া হাসপাতালে আনা হলে তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। স্ত্রীর বিশ্বাসঘাতকতা মেনে নিতে পারেনি বলেই অমিত ঘোষ আত্ম হত্যা করেছেন, এমনটাই মত স্থানীয়দের। যদিও অমিতকে মঙ্গলবার নিজের বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ অমিতের পরিবারের। এরপরই গ্রামের বাসিন্দারা উত্তেজিত হয়ে স্ত্রী শুক্লা দে’র বাড়িতে ভাঙচুর চালায়। টিভি, ফ্রিজ, আলমারি ভাঙচুর করে গ্রামবাসীরা। এরপরেই ঘটনাস্থলে যায় হাবরা থানার পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে বেশ কয়েকজনকে। গোটা ঘটনা তদন্তে নেমেছে হাবড়া থানার পুলিশ।

First published: 08:38:41 PM Nov 26, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर