• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • পণের টাকা না মেলায় স্ত্রীর কিডনি বিক্রির অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে

পণের টাকা না মেলায় স্ত্রীর কিডনি বিক্রির অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে

নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব চিত্র

দাবি মতো পণের টাকা না মেলায় স্ত্রীর কিডনি বিক্রির অভিযোগ। মুর্শিদাবাদের ফরাক্কার ঘটনা।

  • Share this:

    #মুর্শিদাবাদ: দাবি মতো পণের টাকা না মেলায় স্ত্রীর কিডনি বিক্রির অভিযোগ। মুর্শিদাবাদের ফরাক্কার ঘটনা। অ্যাপেন্ডিসাইটিস হওয়ায় অপারেশনের নামে তিন বছর আগে স্বামী তাঁর কিডনি বিক্রি করেছে বলে অভিযোগ রীতা সরকারের। ক'দিন আগে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। তখনই বিষয়টি জানা যায়। অভিযুক্ত বিশ্বজিত সরকারকে গ্রেফতার করেছে লালগোলা থানার পুলিশ।

    স্ত্রীর কিডনি বিক্রির অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে। দাবি মতো পণের টাকা না পেয়েই কিডনি বিক্রি করা হয়েছে বলে অভিযোগ।

    - ২০০৫ সালে লালগোলার বিশ্বজিত সরকারের সঙ্গে বিয়ে হয় রীতার - বিয়ের পর থেকেই পণের জন্য অত্যাচার করা হত বলে অভিযোগ - মাস ছয়েক আগে শ্বশুরবাড়ি ছেড়ে বাপের বাড়ি চলে আসেন রীতা

    দিনকয়ের আগে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে তাঁর আলট্রাসনোগ্রাফি করা হয়। সেখানে দেখা যায়, গ্রাফিক্স ইনঃ- কিডনি 'চুরি'

    রিপোর্ট দেখে মাথায় বাজ ভেঙে পড়ে রীতার। ফের মালদহের একটি নার্সিংহোমে পরীক্ষা করানো হয়। সেখানেও একই রিপোর্ট।

    স্বামী, শ্বশুর, শাশুড়ি ও জায়ের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন রীতা। অভিযুক্ত বিশ্বজিত সরকারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মুর্শিদাবাদ কিডনিকাণ্ডে জড়িয়েছে কলকাতার নামও। অভিযোগ - কলকাতার একটি হাসপাতালে অপারেশন হয় - অ্যাপেনডিক্সের নাম করে কিডনি কেটে নেওয়া হয়

    রীতাকে জানিয়েই তাঁর কিডনি ছত্তিশগড়ের এক মহিলাকে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি অভিযুক্ত বিশ্বজিত সরকারের। কিন্তু তার সপক্ষে কোনও নথি দেখাতে পারেননি তিনি। যেখানে রীতা সরকারের অপরেশন হয়েছিল, গোয়েন্দাদের নজরে কলকাতার সেই নার্সিংহোমও।

    First published: