বর্তমান বিধায়ক বিজেপিতে, পুর প্রশাসক চান বিধানসভার প্রার্থী হতে! বনগাঁ কেন্দ্রে ঘনাচ্ছে জট

বর্তমান বিধায়ক বিজেপিতে, পুর প্রশাসক চান বিধানসভার প্রার্থী হতে! বনগাঁ কেন্দ্রে ঘনাচ্ছে জট

তৃণমুল কংগ্রেসের সুপ্রিমো প্রার্থীর নাম ঘোষণার আগেই পুর প্রশাসকের অনুগামীরা শুরু করে দিয়েছে তাঁকে এ বার বিধান সভার প্রার্থী হিসাবে চান তাঁরা।

তৃণমুল কংগ্রেসের সুপ্রিমো প্রার্থীর নাম ঘোষণার আগেই পুর প্রশাসকের অনুগামীরা শুরু করে দিয়েছে তাঁকে এ বার বিধান সভার প্রার্থী হিসাবে চান তাঁরা।

  • Share this:

 RAJARSHI ROY

#বনগাঁ: ২০১৯ সালের লোকসভার নির্বাচনের পর তছনছ হয়ে গিয়েছিল বনগাঁর তৃণমুল কংগ্রেস। বনগাঁ শহর এলাকার অর্থাৎ বনগাঁ উত্তরের বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস-সহ এক গুচ্ছ কাউন্সিলর দল ছেড়ে ছিল বনগাঁর পুরসভার তৎকালীন পুরপ্রধান শঙ্কর আঢ্যের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করে। এক প্রকার সংখ্যালঘু হয়ে পড়েছিলেন সেই সময়ের পুরসভার চেয়ারম্যান শঙ্কর আঢ্য। নিজের গদি বাঁচাতে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হতে হয়ে ছিল তাঁদের।কোর্টের নির্দেশে পুরসভায় আস্থা ভোটে জয়ী হয়ে পুর প্রধানের চেয়ারটি তিনি বাঁচিয়ে ছিলেন কোনও রকমে। তবে বনগাঁ শহরের তৃণমূলের ভাঙনকে তিনি আটকাতে পারেনি। চানক্য মুকুলের চালে কুপকাত হতে হয়েছিল তৃণমুল কংগ্রেসের সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে। বরাবরের তৃণমুলের  দূর্জয় ঘাঁটিতে পদ্মের চাষ হয় ২০১৯ সালেই।

মুকুল অনুগামী কাউন্সিলর ও বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস দিল্লি গিয়ে পদ্মের ডাঁটি ধরে নিয়ে বনগাঁয় ফেরেন। ইতিমধ্যে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বনগাঁর মানুষ বিজেপি প্রার্থী ও মতুয়াদের বাড়ির ছেলে শান্তনু ঠাকুরকে জয়ী করেছেন। আর বন্ধ্যা ইছামতীর পাড়ের রাজনীতিতে ঢেউ ওঠে বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাসের বেসুর গানে। এই সুযোগে বনগাঁয় তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী কে হবেন তা নিয়ে শুরু হয়ে গিয়েছে জোর চর্চা। বনগাঁর একদা দর্দন্ডপ্রতাপ নেতা ভূপেন শেঠের ছেলে গোপাল শেঠ সক্রিয় রয়েছেন শহরের রাজনীতিতে। তাঁকে সরিয়ে সৌগত রায়কে এই শহর থেকে প্রার্থী করে বিধানসভায় নিয়ে গিয়ে ছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সে তো ২০০৮ সালের ঘটনা। কিন্তুু বর্তমানে শহরের পুর প্রশাসক শঙ্কর আঢ্য। আর গত পাঁচ বছর শহরে উন্নয়নের কাজ দেখানোর সুবাদে দলের অনেকই মন করছেন শঙ্কর আঢ্যই যোগ্য প্রার্থী।  তাই তৃণমুল কংগ্রেসের সুপ্রিমো প্রার্থীর নাম ঘোষণার আগেই পুর প্রশাসকের অনুগামীরা শুরু করে দিয়েছে তাঁকে এ বার বিধান সভার প্রার্থী হিসাবে চান তাঁরা। টিম পিকের দাওয়াইতে স্যোশাল মিডিয়ায় জোর দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। আর সেই স্যোশাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করে দলকে নিজেদের পছন্দের কথা পৌঁছে দিতে চাইছে বনগাঁর তৃণমুল কংগ্রেসের একাংশ।

বনগাঁ শহরের তৃণমুল কংগ্রেসের শিক্ষক সেলের সভাপতি সুমন মজুমদার তাঁর ওয়ালে শঙ্কর আঢ্যের শহরের উন্নয়ন নিয়ে কাজের প্রশংসা করে দাবি করেছেন, তাঁরা শঙ্কর আঢ্যকেই বিধায়ক হিসাবে চান। শিক্ষক নেতার মতই প্রাক্তন ছাত্র নেতা সঞ্জু বিশ্বাস ও মনে করেন শঙ্কর আঢ্যই যোগ্য প্রার্থী বনগাঁয়। আর যাঁকে নিয়ে এত কথা সেই শঙ্কর আঢ্যের দাবি, অনুগামী ও শুভানুধ্যায়ীরা স্যোশাল মিডিয়াতে বলছেন বটে। তবে তাঁদের দলনেত্রীই শেষ কথা বলবেন। তবে আকারে ইঙ্গিতে নিজের সুপ্ত বাসনার কথা বোঝাতে ভোলেনি তিনি।

Published by:Simli Raha
First published:

লেটেস্ট খবর