সামনেই টুসু পরব, নতুন উদ্যমে সেজে উঠছে রাঢ় বাংলা

সামনেই টুসু পরব, নতুন উদ্যমে সেজে উঠছে রাঢ় বাংলা
  • Share this:

#ঝাড়গ্রাম: টুসু পরবে মেতে উঠেছে ঝাড়গ্রাম সহ গোটা জঙ্গল মহল। রাঢ় বাংলা, এমনকি পড়শি ঝাড়খন্ড, বিহার, ওড়িশা রাজ্যের মাহাত, কুড়মি ও সহযোগী জাতি সত্ত্বার এটি একটি বড় উৎসব এই টুসু পরব।

পৌষ সংক্রান্তি মানেই গান, বাজনা, পিঠেপুলির আয়োজনে আনন্দে মাতোয়ারা গোটা এলাকা। মূল উৎসবের মূলত তিনটি পর্যায়, "চাঁওড়ি" "বাঁওড়ি" ও "মকর"। প্রথম পর্বে পরবকে কেন্দ্র করে হাট বাজার থেকে আয়োজনের সব কিছু সংগ্রহ করা হয়। দ্বিতীয় পর্বে পিঠে তৈরির আয়োজন ও তৃতীয় পর্বে নদী বা জলাশয়ে টুসু ভাসানো। টুসু শুধু উৎসবই নয়, এই পরবে প্রাচীনকাল থেকে নিয়ম বা আচার পালন করা হয়।

যেমন, পৌষ সংক্রান্তির আগের রাতে শোওয়ার সময় সন্তানদের পায়ে তেল মাখিয়ে দেওয়া হয়। সকালে সূর্য ওঠার আগে নদীর ঘাটে স্নান সেরে পুরানো বস্ত্র ত্যাগ করতে হয়। বাড়িতে এসে তিল জাতীয় কিছু মুখে নিয়ে তারপর খাবার খায় সবাই। তবে সব কিছুর সঙ্গে এই পরবের সংস্কৃতিতেও অনেক বিবর্তন ঘটছে বলে মত সংস্কৃতি বিশেষজ্ঞদের। সম্প্রতিককালে টুসুর মূর্তির বদলে "চৌড়ল" প্রথার প্রচলন শুরু হয়েছিল। একাংশের মতে, এই জনজাতিরা মূর্তি পুজোয় বিশ্বাসী নয় বলেই চৌড়ল প্রথার আমদানি।

First published: 10:15:22 PM Jan 13, 2020
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर