• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • WEST BENGAL ELECTION RESULTS 2021 BJP CANDIDATES COMING FROM TMC HAVE BEEN DEFEATED BADLY BY PEOPLE OF BENGAL SANJ

West Bengal Election Results 2021 : 'কাজ করার ইচ্ছে' বিশ বাও জলে, বৈশালী-রাজীব-রুদ্রনীলদের সঙ্গে বাংলায় ধরাশায়ী 'দল বদলের হাওয়া'!

ধরাশায়ী 'দল বদলের হাওয়া'

:২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের (West Bengal Election 2021) বড় ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়িয়েছিল দল বদলের হাওয়া। শিল্পী হোক না পোড় খাওয়া রাজনীতিবিদ, নির্বাচনের আগে একের পর এক পাল্টেছিলেন রাজনৈতিক রং।

  • Share this:

    #কলকাতা :২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের (West Bengal Election 2021) বড় ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়িয়েছিল দল বদলের হাওয়া। শিল্পী হোক না পোড় খাওয়া রাজনীতিবিদ, নির্বাচনের আগে একের পর এক পাল্টেছিলেন রাজনৈতিক রং। আর সেই দল বদলে সবথেকে বেশি স্রোত বয়েছিল গেরুয়া শিবিরের দিকেই। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের মনে হয়েছিল ভোটে রং চেনাবে এই দল বদলের হাওয়াই। অথচ ঐতিহাসিক এই নির্বাচনের ফল বেরোতেই দেখা গেল অন্য ছবি। রীতিমতো মুখ থুবড়ে পড়েছে সেই সমীকরণ। বরং জনতা রায় দিয়েছে দল বদলিদের বিরুদ্ধে।

    বালি বিধানসভা কেন্দ্রে ভরাডুবি হয়েছে বৈশালী ডালমিয়ার। এই কেন্দ্রে জয়ী হয়েছেন তৃণমূলের রানা চট্টোপাধ্যায়। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন সিপিআইএমের দীপ্সিতা ধর। সেখানে তৃণমূল ছেড়ে বেরিয়ে আসা, 'মানুষের জন্য কাজ করতে চাওয়া' বিজেপির তুরুপের তাস বৈশালী ডালমিয়া পৌঁছেছেন তৃতীয় স্থানে।

    অথচ ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে দাঁড়িয়েই প্রার্থী বৈশালী ডালমিয়া জয়ী হয়েছিলেন৷ তাঁর প্রাপ্ত ভোট ছিল ৫২,৭০২৷ দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন সিপিএম প্রার্থী সৌমেন্দ্রনাথ বেরা। তাঁর প্রাপ্ত ভোট সংখ্যা ৩২,২৯৯৷ তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী বৈশালী ডালমিয়া তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সিপিএম প্রার্থী সৌমেন্দ্রনাথ বেরাকে ১৫,৪০৩ ভোটে পরাজিত করেছিলেন।

    ডোমজুড়েও একই চিত্র। হেরেছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃতীয় রাউন্ডের শেষে ৪,০০০-এ বেশি ভোট এগিয়ে তৃণমূল প্রার্থী কল্যাণেন্দু ঘোষ। এই আসনে অন্যদিকে, বাম-কংগ্রেস-ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের (আইএসএফ) তরফে দাঁড়িয়েছেন সিপিআইএমের উত্তম বেরা।

    অথচ, ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় জয়ী হয়েছিলেন৷ তাঁর প্রাপ্ত ভোট ছিল ১৪৮,৭৬৮৷ দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন নির্দল প্রার্থী প্রতিমা দত্ত। তাঁর প্রাপ্ত ভোট সংখ্যা ৪১,০৬৭৷ তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নির্দল প্রার্থী প্রতিমা দত্তকে ১০৭,৭০১ ভোটে পরাজিত করেছিলেন।

    শিবপুর বিধানসভা কেন্দ্রেও প্রথমে পিছিয়ে পড়লেও, শেষ পর্যন্ত জয় ছিনিয়ে নেন তৃণমূলের মনোজ তিওয়ারি। নিকটতম প্রতিদ্ধন্ধী বিজেপির ডঃ রথীন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর চেয়ে ৩২ হাজার ৩৩৯ ভোট বেশি পান মনোজ।

    ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী জটু লাহিড়ি‌ জয়ী হয়েছিলেন৷ তাঁর প্রাপ্ত ভোট ছিল ৮৮,০৭৬৷ দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন ফরওয়ার্ড ব্লক প্রার্থী জগন্নাথ ভট্টাচার্য। তাঁর প্রাপ্ত ভোট সংখ্যা ৬১,০৬২৷ তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী জটু লাহিড়ি তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফরওয়ার্ড ব্লক প্রার্থী জগন্নাথ ভট্টাচার্যকে ২৭,০১৪ ভোটে পরাজিত করেছিলেন।

    প্রসঙ্গত, রবিবার সকাল থেকেই টানটান উত্তেজনার মধ্যে দিয়ে চলছিল গণনার কাজ। ২৯৪ টি বিধানসভার আসন থাকলেও ভোট গণনা ছিল ২৯২টি আসনে। শুরুতে দেখা গেছিল সমানে সমানে লড়াই করছে দুই যুযুধান শিবির তৃণমূল ও বিজেপি। কিন্তু দিন যত গড়িয়েছে ততই হাসি চওড়া হয়েছে শাসক দলের। গেরুয়া হাওয়াকে ফিকে করে বেশিরভাগ আসনেই এগিয়ে যেতে থাকে তৃণমূল।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: