• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • বৃষ্টি থামলেও নামছে না জল, এখনও বানভাসি হাওড়া

বৃষ্টি থামলেও নামছে না জল, এখনও বানভাসি হাওড়া

বৃষ্টি থামলেও নামছে না জল। এখনও বানভাসি হাওড়ার বেশ কিছু ওয়ার্ড। জলমগ্ন শহরে বেহাল জনজীবন। পুরসভার নিকাশি ব্যবস্থায় গলদ মানছেন খোদ শাসক দলের কাউন্সিলর।

বৃষ্টি থামলেও নামছে না জল। এখনও বানভাসি হাওড়ার বেশ কিছু ওয়ার্ড। জলমগ্ন শহরে বেহাল জনজীবন। পুরসভার নিকাশি ব্যবস্থায় গলদ মানছেন খোদ শাসক দলের কাউন্সিলর।

বৃষ্টি থামলেও নামছে না জল। এখনও বানভাসি হাওড়ার বেশ কিছু ওয়ার্ড। জলমগ্ন শহরে বেহাল জনজীবন। পুরসভার নিকাশি ব্যবস্থায় গলদ মানছেন খোদ শাসক দলের কাউন্সিলর।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #হাওড়া: বৃষ্টি থামলেও নামছে না জল। এখনও বানভাসি হাওড়ার বেশ কিছু ওয়ার্ড। জলমগ্ন শহরে বেহাল জনজীবন। পুরসভার নিকাশি ব্যবস্থায় গলদ মানছেন খোদ শাসক দলের কাউন্সিলর। চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার আশ্বাস মেয়র পারিষদ নিকাশির। প্রতি বর্ষায় কেন পোহাতে হচ্ছে দুর্ভোগ? প্রশ্ন তুলেছেন অসহায় হাওড়াবাসী।

    উঠোন পেরিয়ে ঘর ভাসিয়েছে জমা জল। খাটিয়া পেতে কোনওমতে বেঁচে থাকা। খাটিয়াতেই দিনভর খাওয়া-পড়া-শোয়া। এমনই দুর্দশার মধ্যে জীবন কাটাচ্ছেন বেশিরভাগ হাওড়াবাসী। টানা কয়েকদিনের বৃষ্টিতে বানভাসি হাওড়ার বিস্তীর্ণ এলাকা। বৃষ্টি থামায় বুধবার কিছু ওয়ার্ডে নামমাত্র জল নেমেছে। এখনও জলের তলায় হাওড়া পুর এলাকার বেশ কয়েকটি ওয়ার্ড। সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে ১, ২, ৭, ৮, ৯, ২১, ২২ এবং ৫০ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। এই পরিস্থিতিতে ক্ষোভ বাড়ছে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে।

    পুরসভার তরফে জলমগ্ন এলকাগুলিতে ত্রাণ বণ্টন করা হচ্ছে। পাম্পিং স্টেশনগুলি সচল রাখার পাশাপাশি, আলাদাভাবে ২৫ টি পোর্টেবল পাম্পও চালানো হচ্ছে। কিন্তু নিকাশি ব্যবস্থায় গলদ থাকায় দ্রুত সরানো যাচ্ছে না জমা জল। নিকাশির এই সমস্যার কথা মানছেন খোদ শাসক দলের কাউন্সিলর।

    হাওড়ায় ঢোকার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা ইস্ট-ওয়েস্ট বাইপাসও কার্যত জলের তলায়। বাইপাসে মঙ্গলবার থেকে যান চলাচল বন্ধ থাকায় স্তব্ধ হাওড়ার একাংশ। এই পরিস্থিতি থেকে কবে রেহাই পাবেন শহরবাসী? উত্তর নেই ৷

    জল-যন্ত্রণা হাওড়াবাসীর প্রতি বর্ষার সঙ্গী। নিকাশি ব্যবস্থার অমূল পরিবর্তন না হলে সেই সমস্যা মেটার সম্ভাবনাও নেই। তাই মেয়র পারিষদের আশ্বাসেও বিশ্বাস রাখতে পারছেন না হাওড়াবাসী।

    First published: