corona virus btn
corona virus btn
Loading

সিবিআই চায় বিশ্বভারতী, রবীন্দ্রনাথকে মুছে ফেলার চেষ্টা, বলছেন অনুব্রত

সিবিআই চায় বিশ্বভারতী, রবীন্দ্রনাথকে মুছে ফেলার চেষ্টা, বলছেন অনুব্রত
বিশ্বভারতীর সেই নৈরাজ্য। ফাইল চিত্র

নয় জন তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছে বিশ্বভারতী, পাশাপাশি সিবিআই তদন্তও চাইছে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ।

  • Share this:

#শান্তিনিকেতন: পৌষমেলার মাঠে পাঁচিল দেওয়াকে কেন্দ্র করে তাণ্ডবের পর পেরিয়েছে দেড় দিনের বেশি সময়। কিন্তু গোটা শান্তিনিকেতনেই এখন যুদ্ধের আবহ। নয় জন তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছে বিশ্বভারতী, পাশাপাশি সিবিআই তদন্তও চাইছে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ।

দিন কয়েক আগেই পৌষমেলা মাঠ পাঁচিল দিয়ে ঘেরা সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ। এরপরই আন্দোলন প্রতিবাদ শুরু হয় শুরু করেন আশ্রমিক পড়ুয়াদের একটা বড় অংশ। কাজে বাধা দিতে জড়ো হয় বোলপুর ব্যবসায়ী সমিতিও। ঠিকাদারকে বেধড়ক মারধর করা অভিযোগ ওঠে। পরের দিন বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী নেতৃত্বে কর্মী অধ্যাপকরা মিছিল করে শান্তিনিকেতন থানার সামনে জড়ো হন। উপাচার্য নির্দেশে ফের কাজ শুরু হয় অস্থায়ী ক্যাম্প বানিয়ে রাতারাতি চলছিল প্রাচীর নির্মাণের কাজ। কিন্তু বোলপুর শান্তিনিকেতনের কয়েক হাজার লোক মিছিল করে এসে রীতিমতো ভাঙচুর চালায়। ভেঙে দেওয়া হয় নির্মাণ কাজ।

এই ঘটনায় নাম জড়ায় দুবরাজপুরের তৃণমূল বিধায়ক নরেশচন্দ্র বাউড়ি। তিনি অবশ্য পরে দাবি করেন, বিশ্বভারতী তিনি প্রাক্তন ছাত্র ও বোলপুরের নাগরিক। তাছাড়াও রবীন্দ্র অনুরাগী। তাই তিনি এসেছেন, কোন দলের হয়ে নয়।

কিন্তু, বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয় তৃণমূল কংগ্রেস এই ঘটনায় প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িয়ে রয়েছে। আজ বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে এই বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি জানান, "আমি বিশ্বভারতী নিয়ে উৎসাহী নই। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জেলাশাসককে একটি বৈঠক করতে বলেছে। কাল সেই বৈঠক হবে।"

তিনি আরও বলেন, "তবে এটা বলতে পারি ছোট থেকেই এখানে আছি। রবীন্দ্র আদর্শে বিশ্বভারতীতে কখনও পাচিল দেওয়া হয়নি৷ খোলামেলাই থাকলেই ভাল হয়। বিশ্বভারতী বলছে কোর্টের অর্ডার। কিন্তু কোর্টের অর্ডারে ডিমার্কেশন করতে বলা হয়েছে। ডিমার্কেশন করা মানে বড় পাঁচিল দেওয়া নয়। বিশ্বভারতীকে রবীন্দ্রনাথের ইউনিভার্সিটি বলতে না, আশ্রম বলতেন। আশ্রমে এই ধরনের বড় বড় পাঁচিল হয়না।"

বিশ্বভারতীতে জুড়ে চলা তান্ডবলীলায় তৃণমূল বিধায়ক, কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এই ঘটনায় অনুব্রত মণ্ডল বলেন, "নরেশচন্দ্র বাউড়ি প্রাক্তন ছাত্র হিসাবে গিয়েছিল। তৃণমূল ঘটনায় যুক্ত নয়। বরং আগের দিনে আমি দেখেছি উপাচার্যের মিছিলে অনেক বিজেপি নেতা ছিল। "

#IndrajitRuj

Published by: Arka Deb
First published: August 19, 2020, 9:15 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर