• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • Viral News| Durgapur|| ঝোলায় ৫-৬ প্রজাতির কেউটে-গোখরো! অভিনব প্রতারণার জালে সর্বশান্ত মানুষ! সাবধান...

Viral News| Durgapur|| ঝোলায় ৫-৬ প্রজাতির কেউটে-গোখরো! অভিনব প্রতারণার জালে সর্বশান্ত মানুষ! সাবধান...

বিষধর সাপ নিয়ে প্রতারণা। প্রতীকী ছবি।

বিষধর সাপ নিয়ে প্রতারণা। প্রতীকী ছবি।

Viral news, cheating people with highly poisonous snake: অভিনব তাঁর প্রতারণার (Fraud case) জাল! যে জালে পা গলাতেই সর্বস্বান্ত হয়ে যাচ্ছিলেন সাধারণ মানুষ। খোয়াচ্ছিলেন হাজার হাজার টাকা।

  • Share this:

    #দুর্গাপুর: অভিনব তাঁর প্রতারণার (Fraud case) জাল! যে জালে পা গলাতেই  সর্বস্বান্ত  হয়ে যাচ্ছিলেন সাধারণ মানুষ। খোয়াচ্ছিলেন হাজার হাজার টাকা। আসানসোল-দুর্গাপুর (Asansol-Durgapur) পুলিশের জালে পড়লেন 'নিতান্ত' এক সাপুড়ে!

    প্রথম কয়েকটা লাইন পড়ে ভাবছেন তো, সাধারণ এক সাপুড়ের কী এমন ক্ষমতা? কী এমন করতে পারবে সে? তাহলে ভুল ভাবছেন! এই সাপুড়ে মারাত্বক বড় প্রতারক। তাঁর জালে পড়ে ইতিমধ্যেই অনেকে সর্বস্বান্ত হয়ে গিয়েছেন। ধরা না পড়লে আরও বহু মানুষ তার ছলে পা দিয়ে নিজেছে সব খুইয়ে ফেলতেন। কিন্তু না, আর তার সম্ভাবনা নেই। কারণ আসানসোল-দুর্গাপুর পুলিশ সেই সাপুড়েকে গ্রেফতার করেছে।

    আরও পড়ুন: ‘আমি বড় কষ্টে আছি, আমাকে একটু দয়া কর’’ বৃদ্ধার কান্নায় সাড়া মিলল, এগিয়ে এলেন ‘এই’ মানুষটি

    স্থানীয় বাসিন্দাদের সূত্রে জানা গিয়েছে, শহরের বিভিন্ন প্রান্তের গৃহস্থবাড়িগুলিকে টার্গেট করত ওই সাপুড়ে। গৃহস্থের অমঙ্গলের কথা বলে শিকড়-বাকড় থেকে টোটকা নানা উপায়ে তাঁদের বশ করে ফেলতেন। তারপরেই বিশ্বাসের বশে টাকা খোয়াতেন তাঁরা। মঙ্গলবার সকালে দুর্গাপুর থানার অন্তর্গত ধোবিঘাট এলাকায় সন্দেহজনকভাবে এমনই পাঁচ সাপুড়েকে ঘোরাঘুরি করতে দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। আগে থেকে নানা ঘটনার কথা জানা থাকায় প্রতারক ওই সাপুড়েদের তাড়া করেন তাঁরা।কিন্তু চারজন পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও, ধরা পড়ে যায় পিয়ারুল মাল নামে এক সাপুড়ে।

    আরও পড়ুন: ফের কালনার গঙ্গায় দেখা মিলল কুমিরের, এ বার সরীসৃপের গতির অভিমুখ হুগলির দিকে

    পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, পিয়ারুল মালের বাড়ি পূর্ব বর্ধমানের (East Bardhaman) আউশগ্রামের সোয়াইগ্রামে। এ দিকে, পিয়ারুলকে নাগালে পেতেই খবর দেওয়া হয় পুলিশে। তড়িঘড়ি পুলিশ পৌঁছে পিয়ারুলকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। ধৃত পিয়ারুলের কাছ থেকে ছ'টি ভিন্ন প্রজাতির বিষধর সাপ (poisonous snake) উদ্ধার হয়েছে। অভিযুক্ত পিয়ারুল মালকে দুর্গাপুর থানার পুলিশ বন দফতরের (Forest Department) হাতে তুলে দেয়। অভিযুক্ত পিয়ারুল মালের বিরুদ্ধে যাবতীয় অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে নিয়ছেন শঙ্কর দেবনাথ নামে দুর্গাপুর বন দফতরের এক আধিকারিক। তিনি ওই সাপুড়ের দলের প্রতারণার কথাও স্বীকার করে নিয়েছেন। জানিয়েছেন, আইনমাফিক সকলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: