• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • প্রসাশনের নাকের ডগায় রমরমিয়ে চলছে গাঁজা চাষ

প্রসাশনের নাকের ডগায় রমরমিয়ে চলছে গাঁজা চাষ

প্রসাশনের নাকের ডগায় বছর খানেক ধরে রমরমিয়ে চলছে গাঁজার চাষ ৷  উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ ব্লকের অন্তর্গত দক্ষিন ধামজা গ্রামের ঘটনা।

প্রসাশনের নাকের ডগায় বছর খানেক ধরে রমরমিয়ে চলছে গাঁজার চাষ ৷ উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ ব্লকের অন্তর্গত দক্ষিন ধামজা গ্রামের ঘটনা।

প্রসাশনের নাকের ডগায় বছর খানেক ধরে রমরমিয়ে চলছে গাঁজার চাষ ৷ উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ ব্লকের অন্তর্গত দক্ষিন ধামজা গ্রামের ঘটনা।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কালিয়াগঞ্জ: প্রসাশনের নাকের ডগায় বছর খানেক ধরে রমরমিয়ে চলছে গাঁজার চাষ ৷  উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ ব্লকের অন্তর্গত দক্ষিন ধামজা গ্রামের ঘটনা। কালিয়াগঞ্জের একমাত্র পিকনিক স্পট হিসেবে পরিচিত ৪ বোঁচাডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের ধামজা গ্রামের বনাঞ্চলে শীতকালে শতাধিক পিকনিক পার্টি এখানে পিকনিক করতে আসে। সরকারী বনাঞ্চলের পাশে দক্ষিন ধামজা প্রাথমিক বিদ্যালয়ও রয়েছে। এই প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রায় ২০০ মিটার দূরে ধামজা বনাঞ্চলের আড়ালে প্রায় বছর খানেক ধরে অনেকটা জমির উপর নিষিদ্ধ গাঁজা চাষ করা হচ্ছিল। প্রচুর গাঁজা গাছের মধ্যে শাক সব্জিরও গাছ লাগানো হয়েছিল। রাস্তা থেকে সাধারণ মানুষের ঠিকমত দৃষ্টি না পড়লেও জমির উপর প্রায় পাঁচ থেকে ছয়  ফিট লম্বা আকার ধারণ করে পরিপূর্ণ গাঁজা গাছের রুপ নিয়েছিল। বিশেষ সুত্রে খবর পেয়ে সোমবার সকালে সংবাদ মাধ্যমের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গেলে গ্রামের মানুষ প্রথমে গ্রামে গাঁজা চাষের কথা সম্পূর্ণ অস্বীকার করে। গ্রামের বিভিন্ন চাষের জমি তন্য তন্য হয়ে খুঁজতে খুজতে এক বসত বাড়ির আড়ালে এক চিলতে জমিতে গাঁজা গাছ গুলি নজরে আসে। সংবাদ মাধ্যমকে দেখে সাংবাদিকের কাছ থেকে পালাতে শুরু করে গ্রামবাসীরা। নিষিদ্ধ পুর্নাঙ্গ গাঁজার গাছ যে জমিতে রয়েছে সেই জমির মালিকের নাম জিজ্ঞেস করা হলেও গ্রামবাসীরা উল্টো পথে হাঁটতে শুরু করেন। ফলে যে জমিটিতে গাঁজা চাষ হচ্ছিল সেই জমির মালিকের সঠিক নাম এখনও পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। নিষিদ্ধ গাঁজা চাষ সম্পর্কে কালিয়াগঞ্জ সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক মহম্মদ জাকারিয়াকে বিস্তারিত ভাবে জানানো হলে তিনি তৎপরতার সঙ্গে কালিয়াগঞ্জ থানায় খবর দেন। মহম্মদ জাকারিয়া ও কালিয়াগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত আইসি বিশ্বজিত মজুমদার সহ  বিশাল পুলিশ বাহিনী ও আফগারি দপ্তরের কর্মীরা গাঁজা চাষের জমিতে হানা দেন বলে প্রসাশন সুত্রে জানা গেছে। যদিও তাঁরা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই গাঁজা গাছগুলি মাটি থেকে তুলে লুকিয়ে ফেলে গ্রামবাসীরা বলে জানিয়েছেন বিডিও সাহেব।

    First published: