ট্রেন চলাচল শুরু হলে নাগালে আসবে সব্জির দাম, আশাবাদী সাধারণ মানুষ

ট্রেন চলাচল শুরু হলে রেলপথে অনেক সব্জির আসবে বলেই মনে করা হচ্ছে। যোগান বাড়ার সঙ্গে তাল মিলিয়ে দাম অনেকটাই কমে আসবে বলে মনে করা হচ্ছে।

ট্রেন চলাচল শুরু হলে রেলপথে অনেক সব্জির আসবে বলেই মনে করা হচ্ছে। যোগান বাড়ার সঙ্গে তাল মিলিয়ে দাম অনেকটাই কমে আসবে বলে মনে করা হচ্ছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: এবার সব্জির দাম মধ্যবিত্তের নাগালে আসবে বলেই মনে করছেন অনেকেই। ট্রেন চলাচল শুরু হলেই অনেক সব্জির দাম কমবে বলে আশা করছেন বর্ধমান শহরের বাসিন্দারা। ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় সড়ক পথে সবজি আসছিল বর্ধমানে। তাতে পরিবহণ খরচ অনেক বেশি হচ্ছিল। তাই শাক সব্জির দাম অনেকটাই বেশি থাকছিল। ট্রেন চলাচল শুরু হলে রেলপথে অনেক সব্জির আসবে বলেই মনে করা হচ্ছে। যোগান বাড়ার সঙ্গে তাল মিলিয়ে দাম অনেকটাই কমে আসবে বলে মনে করা হচ্ছে।

বর্ধমানের বাজারে অনেক সব্জির আসে শেওড়াফুলি, সিঙ্গুর ও তার আশপাশ এলাকা থেকে। রাতের ট্রেনে অনেক সব্জি বিক্রেতা শেওড়াফুলি যান। ভোররাতে প্রথম ট্রেনে সেই সব সব্জি নিয়ে ফিরে আসেন অনেকেই। সেই সব সবজি বর্ধমানের বাজারে বিক্রি হয়। অনেকে আবার বর্ধমান থেকে সেই সব সব্জি মফস্বলের বাজারে বিক্রির জন্য কিনে নিয়ে যান। কিন্তু ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় জেলার বাইরে থেকে সেভাবে সব্জি আসছিল না। পূর্বস্থলী ও তার আশপাশ এলাকা থেকে সড়ক পথে সব্জি আসছিল। তবে তার দাম পড়ছিল অনেক বেশি। ট্রেন চলাচল শুরু হয়ে গেলে সব্জি আমদানি বাড়বে বলেই মনে করছেন বিক্রেতারা।

এবার বিক্রি বাটাও বাড়বে বলে মনে করছেন বর্ধমান স্টেশন বাজারের সবজি বিক্রেতারা। বর্ধমান শহরের বড় সব্জির বাজারগুলির মধ্যে একটি স্টেশন বাজার। সকাল সন্ধ্যা বাজার বসে এখানে। বর্ধমান থেকে ফেরার পথে বা রেল পথে বর্ধমানে ফিরে এই বাজার থেকে সব্জি কেনেন অনেকেই। স্বাভাবিক সময়ে বর্ধমান রেল স্টেশন ব্যবহার করেন লক্ষাধিক যাত্রী। তাদের অনেকেই বর্ধমান স্টেশন বাজারে কেনাকাটা সাড়েন।ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় এতদিন স্টেশন বাজারে সেভাবে ক্রেতাদের দেখা যাচ্ছিল না। বিক্রি বাটা কমে যাওয়ায় উপার্জনও কমে গিয়েছিল সব্জি বিক্রেতাদের। সেই উপার্জন এবার বাড়বে বলে  মনে করা হচ্ছে।ট্রেন চলাচল শুরু হলে বাজারে বেচাকেনা অনেকটাই বাড়বে বলে আশাবাদী বিক্রেতারা।

Published by:Pooja Basu
First published: