Locket Chatterjee: স্কুটি-গরুর গাড়ি-নৌকা-সাইকেল-লোকাল ট্রেন-গঙ্গাস্নান! বঙ্গভোটে ছক ভাঙা এক লকেট...

Locket Chatterjee: স্কুটি-গরুর গাড়ি-নৌকা-সাইকেল-লোকাল ট্রেন-গঙ্গাস্নান! বঙ্গভোটে ছক ভাঙা এক লকেট...

নেত্রীর নাম লকেট

বুঝিয়ে দিয়েছেন, একদা অভিনেত্রী থাকলেও এখন তিনি পুরোদস্তুর রাজনীতিক। তাই রাজনৈতিক লকেটকে অত্যন্ত গুরুত্ব দিচ্ছে বিজেপিও।

  • Share this:

#হুগলি: ডাকাবুকো সাংসদ, সেই তাঁকেই কিনা এবার বিধানসভা ভোটে চুঁচুড়া আসন ছিনিয়ে নেওয়ার দায়িত্ব দিয়েছে বিজেপি। আর দলের তরফে গুরুদায়িত্ব পেয়েই চুঁচুড়া কেন্দ্রের পথঘাট চষে ফেলেছেন লকেট চট্টোপাধ্যায় (Locket Chatterjee)। বাংলার ২৯৪ আসনে জোরদার লড়াই চলছে তৃণমূল-বিজেপি দু'পক্ষের মধ্যেই। যে যাঁর নিজের মতো প্রচারও চালাচ্ছেন। তাতে নানান অভিনবত্বও দেখা যাচ্ছে। কিন্তু সেই প্রচারের ময়দানেই লকেট যেন সকলকে টেক্কা দিয়েছেন। বুঝিয়ে দিয়েছেন, একদা অভিনেত্রী থাকলেও এখন তিনি পুরোদস্তুর রাজনীতিক। তাই রাজনৈতিক লকেটকে অত্যন্ত গুরুত্ব দিচ্ছে বিজেপিও।

এবারের ভোট প্রচারের শুরুতেই স্কুটি নিয়ে প্রচার শুরু করেন লকেট। দিন কয়েক আগে পেট্রপন্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ইলেকট্রনিক্স স্কুটি নিয়ে নবান্ন সফর করে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর ভোট প্রচারে স্কুটি নিয়ে প্রচার শুরু করে শোরগোল ফেলেন লকেট। এরপর একে-একে গরুর গাড়ি, নৌকা, সাইকেল এবং শেষমেশ লোকাল ট্রেনেও ভোট প্রচার সারেন তিনি। আর বৃহস্পতিবার, ভোট প্রচার সম্পূর্ণ করে গঙ্গাস্নান করে জয় নিশ্চিত বলে দাবি করেন বিজেপির চুঁচুড়ার প্রার্থী।

কখনও ট্রেনে, কখনও গঙ্গায় কখনও ট্রেনে, কখনও গঙ্গায়

লকেটের একের পর এক এহেন অভিনব প্রচার রীতিমতো নজর কেড়েছে রাজনৈতিক মহলের। গতকালই ব্যান্ডেল থেকে ট্রেনে করে মহিলা মোর্চা কর্মীদের সঙ্গে চুঁচুড়া পর্যন্ত যান লকেট। আমজনতার কাছে জানতে চান সমস্যা। ব্যান্ডেল স্টেশনে হকারদের সমস্যার কথাও শোনেন তিনি। তবে লকেট টিকিট কেটে ট্রেনে চড়লেও তাঁর সহযাত্রীদের টিকিট কাটতে দেখা যায়নি।

২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে জয়ের পর এবার বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন লকেট। সম্প্রতি তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 'সারদার লকেট' বলেও কটাক্ষ করেছেন বিজেপি প্রার্থীকে। তিনি অবশ্য পালটা মুখ্যমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে বলেছেন, 'প্রমাণ দিন'। বস্তুত বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরই আমূল বদলে যায় লকেটের রাজনৈতিক বিচরণ। প্রবল সক্রিয় হয়ে ওঠেন তিনি। দলের মহিলা মোর্চার দায়িত্ব পেয়ে অত্যন্ত সুদক্ষ সংগঠকের পরিচয় দিয়েছিলেন তিনি। আলোড়ন ফেলেছিলেন মহিলা মোর্চায়। বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের তাই নেত্রী লকেটকে চিনতে অসুবিধা হয়নি। লোকসভার ভোটে টিকিটও পান তিনি।

বাদ যায়নি গরুর গাড়িও বাদ যায়নি গরুর গাড়িও

বিজেপির রাজ্যস্তরে লকেট এখন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মুখ। সম্প্রতি হুগলিতে সভা করতে এসে ভিড় দেখে লকেটের ভূয়সী প্রশংসা করে গিয়েছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অর্থাৎ, বার্তা স্পষ্ট, লকেটকে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়েই ভাবছে বিজেপি। সেই লকেটের উপর এবার বড় দায়িত্ব। আর সেই দায়িত্ব উতড়ে দিতে রীতিমতো 'যুদ্ধ' করছেন লকেট। এই অক্লান্ত পরিশ্রমের কি দাম পাবেন লকেট? উত্তর মিলবে ২ মে।

Published by:Suman Biswas
First published:

লেটেস্ট খবর