Home /News /south-bengal /
Bardhaman News: সাদা অ্যাম্বাসাডরে ৮টি নাইলনের বস্তা, তল্লাশি চালাতেই হা বর্ধমানের পুলিশ

Bardhaman News: সাদা অ্যাম্বাসাডরে ৮টি নাইলনের বস্তা, তল্লাশি চালাতেই হা বর্ধমানের পুলিশ

Bardhaman News: গাড়িতে বোঝাই করা ছিল আটটি নাইলনের বস্তা। খুলতেই চোখ কপালে পুলিশের।

  • Share this:

#বর্ধমান: গাঁজা পাচারের অভিযোগে ২ ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করলো বর্ধমান থানা ও পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ। উদ্ধার হল প্রায় ১১৬ কেজি গাঁজা। এই উদ্ধার হওয়া গাঁজার বাজার মূল্য কয়েক লক্ষ টাকা। বাজেয়াপ্ত একটি অ্যাম্বাসাডার।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল রাতে সূত্র মারফত পাওয়া খবরের ভিত্তিতে বর্ধমান শহরের বর্ধমান ভবন এলাকায় যৌথ অভিযান চালায় বর্ধমান থানা ও পূর্ববর্ধমান জেলা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ। অভিযানে একটি অ্যাম্বাসাডার থেকে আটটি নাইলনের বস্তায় প্রায় ১১৬ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়।

ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে পুলিশ দুজনকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশি হেফাজতের আবেদন জানিয়ে ধৃতদের আজ বর্ধমান আদালতে তোলা হয়।

আরও পড়ুন- উড়ে গেল বাড়ির ছাদ, ছিটকে গেল শরীরের অংশ! ডায়মন্ডহারবারে বিস্ফোরণে কাঁপল এলাকা

কোথা থেকে এই বিপুল পরিমাণে গাঁজা নিয়ে আসা হচ্ছিল, এই ঘটনায় আর কারা কারা জড়িত, খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

বিশেষ সূত্রে পাওয়া খবরের ভিত্তিতে বর্ধমান জেলা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ ও বর্ধমান থানার পুলিশ শুক্রবার রাতে বাজেপ্রতাপপুরের দিকে রেলওয়ে ওভারব্রিজের নিচে একটি অ্যাম্বাসেডর গাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ গাঁজা উদ্ধার করল।

গ্রেপ্তার করা হয়েছে দুই ব্যক্তিকে। পুলিশ জানিয়েছে, উদ্ধার হওয়া গাঁজার পরিমাণ প্রায় ১১৬ কেজি। ধৃত ব্যক্তিরা হল বর্ধমান শহরের নারায়ণদীঘি, ক্যানেলপাড় এলাকার বাসিন্দা শেখ ফিরণ ওরফে শেখ ফিরোজ(৩০) এবং বাজেপ্রতাপুর, সুভাষ পল্লী এলাকার বাসিন্দা বিজয় রায়(৩২)।

স্বাভাবিকভাবেই খোদ বর্ধমান শহরের মধ্যেই বসবাসকারী এই দুষ্কৃতীরা এই বিপুল পরিমাণ গাঁজার মজুদ করছে ও অন্যান্য জায়গায় সরবরাহ করছে এই তথ্য সামনে আসার পরই ফের শহর জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

শনিবার বর্ধমান থানায় একজিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট অভিরুপ ভট্টাচার্য্যের উপস্থিতিতে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কল্যাণ সিংহ রায় জানান,গতকাল রাতে কালনা রোডের ওপর বর্ধমান ভবনের সামনে রেল ফ্লাই ওভারের নিচে একটি অ্যাম্বাসেডর গাড়িকে আটক করে তল্লাশি চালানোর সময় তার ভেতর ৮টি নাইলনের বস্তা উদ্ধার হয়।

আরও পড়ুন- রেললাইনে কাজ, নবদ্বীপ-হাওড়া সমস্ত ট্রেন বন্ধ, কোন-কোন রুটে ট্রেন চলবে? জানুন

জিজ্ঞাসাবাদের পর দেখা যায় বস্তা গুলিতে গাঁজা জাতীয় বস্তু রয়েছে। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে এই বস্তুটি গাঁজা। সঙ্গে সঙ্গে গ্রেপ্তার করা হয় চারচাকা গাড়িতে থাকা দুই ব্যক্তিকে। আটক করা হয়েছে অ্যাম্বাসাডর গাড়িটিকেও। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, অ্যাম্বাসেডর গাড়িটি সাতগাছিয়া অভিমুখে যাচ্ছিল।  ধৃতদের শনিবার বর্ধমান আদালতে পেশ করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতদের হেফাজতে নিয়ে আরও জিজ্ঞাসাবাদ চালানো হবে। তদন্ত করে দেখা হবে এই গ্যাংয়ের সঙ্গে আরও কারা যুক্ত রয়েছে। এই বিপুল পরিমাণ গাঁজা কোথা থেকে নিয়ে আসা হয়েছিল, কোথায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। কতদিন ধরে ধৃতরা এই কারবার চালিয়ে আসছে তা খতিয়ে দেখা হবে। জেলাশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারের বাংলোর খুব কাছেই এই লক্ষাধিক টাকার নিষিদ্ধ গাঁজা উদ্ধারের ঘটনায় আলোড়ন পড়েছে।

Published by:Suman Majumder
First published:

Tags: Bardhaman news, Ganja, Smuggling

পরবর্তী খবর