corona virus btn
corona virus btn
Loading

স্বাস্থ্য প্রতিনিধি দল ঘুরলেন পাঁশকুড়া ও হলদিয়ায়, লাঞ্চ মেনুতে ভেটকি,চিকেন, চিংড়ির সঙ্গে আরও অনেক কিছু

স্বাস্থ্য প্রতিনিধি দল ঘুরলেন পাঁশকুড়া ও হলদিয়ায়, লাঞ্চ মেনুতে ভেটকি,চিকেন, চিংড়ির সঙ্গে আরও অনেক কিছু

আমিষ ও নিরামিষ, আজকের দু-ধরনের মেনু তালিকায় ছিলো ডাল, ভাত, সবজি, রুটির সঙ্গে ভেটকি মাছ, চিকেন, চিংড়ি, পনির, ফ্রায়েড রাইস, ফলের চাটনি, টক ও মিষ্টি দই সহ নানা পদ।

  • Share this:

#মেদিনীপুর: করোনা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে রাজ্যে আসা কেন্দ্রীয় সরকারের বিশেষ প্রতিনিধি দল সোমবার ঘুরে দেখলেন পুর্ব মেদিনীপুর জেলা।  উত্তরবঙ্গের পাশাপাশি দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায গত কয়েকদিন ধরেই পরিদর্শন করছেন কেন্দ্রের এই প্রতিনিধি দল।ভেটকি,চিকেন, চিংড়ি

পূর্ব মেদিনীপুর জেলা পরিদর্শনে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য প্রতিনিধি দল, ঘুরলেন পাঁশকুড়া ও হলদিয়ায়, লাঞ্চ সারলেন হলদিয়া ভবনে৷ ডাল-ভাত-সবজি-রুটির সঙ্গে  মেনু তালিকায় ছিলো ভেটকি,চিকেন, চিংড়ি, ফ্রায়েড রাইস, পনির, চাটনি, টক ও মিষ্টি দই আর রাজভোগ!

সোমবার সকাল সকালই কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল  করোনা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে আসেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলায়। এদিন পাঁশকুড়ার বড়মা হাসপাতাল, হলদিয়া মহকুমা হাসপাতাল সহ জেলার বেশ কয়েকটি জায়গা কেন্দ্রের এই বিশেষ প্রতিনিধি দলটি পরিদর্শন করেন। এদিন প্রতিনিধি দলটি প্রথমে পূর্ব মেদিনীপুরের পাঁশকুড়ার বড়মা হাসপাতালে। এরপরই তাঁরা যান হলদিয়ায়। ক্ষুদিরামনগরের এক বেসরকারি কলেজের ছাত্রাবাসে গড়ে ওঠা কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে।  সেখানে কিছুক্ষণ থেকেই হলদিয়া মহাকুমা হাসপাতাল পরিদর্শনে যান় পাঁচজনের প্রতিনিধি দলটি। সেখান থেকে বেরিয়ে প্রতিনিধি দলের সদস্যরা যান হলদিয়া ভবনে। সেখানেই তাঁরা মধ্যাহ্ন ভোজ সারেন। আমিষ ও নিরামিষ, আজকের দু-ধরনের মেনু তালিকায় ছিলো ডাল, ভাত, সবজি, রুটির সঙ্গে ভেটকি মাছ, চিকেন, চিংড়ি, পনির, ফ্রায়েড রাইস, ফলের চাটনি, টক ও মিষ্টি দই সহ নানা পদ।  হলদিয়া ভবনে মধ্যাহ্ন ভোজ শেষ করেই জেলা ছাড়েন প্রতিনিধি দলটি।

সোমবার সকাল ৭টা ৫০ মিনিটে কলকাতার বালিগঞ্জের বিএসএফ ক্যাম্প থেকে কেন্দ্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের বিশেষ সচিব অরূপ চন্দ্রের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের এই প্রতিনিধি দল পূর্ব মেদিনীপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দেন। তারা কোণা এক্সপ্রেসওয়ে ধরে প্রথমে জেলার প্রবেশদ্বার কোলাঘাটে বেশ কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে স্থানীয় বাজার ও রাস্তাঘাট খতিয়ে দেখেন। দলের সদস্যরা মোবাইলে ক্যামেরাবন্দি করেন এলাকার রাস্তাঘাট আর বাজারের ছবি। এরপর তাঁরা সরাসরি চলে আসেন কোভিড হাসপাতাল  পাঁশকুড়ার বড়মাতে। সেখানে তারা সকাল নটা নাগাদ পৌঁছন এবং প্রায় এক ঘন্টা ধরে পাঁশকুড়ার এই করোনা হাসপাতাল পরিদর্শন করেন। সেখানকার আইসোলেশন ওয়ার্ড সহ অন্যান্য বিভিন্ন ওয়ার্ড খতিয়ে দেখার পাশাপাশি স্বাস্থ্য আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলেন এই প্রতিনিধিদলের সদস্যরা।

এরপর তারা প্রথমে মেচেদার শান্তিপুরে গিয়ে পৌঁছায়, পরে ৪১ নম্বর জাতীয় সড়ক ধরে তাঁরা  হলদিয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। সেখানে হলদিয়ার ক্ষুদিরামনগরের হিট কলেজের একটি ছাত্রাবাসে গড়ে ওঠা কোয়ারেন্টাইন সেন্টার পরিদর্শন করেন তারা। প্রায় ১৫ মিনিট ধরে সেখানে পরিদর্শন এবং কথাবার্তা বলার পর হলদিয়া মহাকুমা হাসপাতাল পরিদর্শনে যায় এই প্রতিনিধি দলটি। সেখানকার আইসোলেশন ওয়ার্ডে বেশ কিছুক্ষণ পরিদর্শন পরিদর্শন করেন এবং হাসপাতাল সুপারের সঙ্গে এই প্রতিনিধিদল কথা বলেন। সেখান থেকে বেরিয়ে প্রতিনিধিদল হলদিয়া ভবনে মধ্যাহ্ন ভোজন সারেন। গোটা পূর্ব মেদিনীপুর জেলা  করোনা আক্রান্তের নিরিখে  রাজ‍্যে প্রথম সারিতে থাকায় কেন্দ্রীয় সরকার এই জেলাকে রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করেছে।

গোটা পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় এই কঠিন সময়কালে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন অনেকেই। প্রথম দফায় তাদের মধ্যে অনেকেই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেও পরে আরও কয়েকজন পূর্ব মেদিনীপুর জেলা থেকে করোনায় আক্রান্ত হন। জেলার এইসব করোনা আক্রান্ত সহ পাশের পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামের করোনা আক্রান্তদের নিয়ে মোট ১৩ জন বর্তমানে পাঁশকুড়ার ওই করোনা হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এই সমস্ত বিষয় নিয়েই সোমবার দিনভর পরিদর্শনে এসে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা সবকিছুর খোঁজখবর নেন। সোমবার কেন্দ্রীয় দলের প্রতিনিধি দলের পরিদর্শনের সময় রাজ্য পুলিশের কোন পুলিশ অফিসার কিংবা  আধিকারিককে কেন্দ্রীয় দলের সঙ্গে থাকতে দেখা যায়নি। এদিন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের তিনটি গাড়ির সামনে এবং পেছনে বিএসএফ জওয়ানদের দুটি গাড়ি নিরাপত্তা দিয়ে তাদের বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে যায়।

সূত্রের খবর, এদিন পাঁশকুড়ার করোনা হাসপাতলে বেশ কয়েকজন রোগীর সঙ্গে কথা বলেন কেন্দ্রীয় সরকারের এই বিশেষ প্রতিনিধি দল। ভাবা গিয়েছিলো, প্রতিনিধি  দলটি  পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পাঁশকুড়া, তমলুক, হলদিয়া ও এগরা এলাকায় গিয়ে পরিদর্শন করবেন। কিন্তু  সোমবার তাঁরা প্রথমে পাঁশকুড়া, পরে হলদিয়া এলাকা ঘুরে দেখেন।  হলদিয়ার হলদিয়া ভবনে দুপুরে মধ্যাহ্ন ভোজনও সারেন। মেনুতে ছিলো ডাল, ভাত, সবজি, রুটির সঙ্গে ভেটকি মাছ, চিকেন, পনির, চাটনি, দই, মিষ্টির সঙ্গে পাপরও। মধ্যাহ্ন ভোজ শেষ করেই সোজা কলকাতা রওনা দেন প্রতিনিধি দলটি। এদিন সাংবাদিকদের সামনে কোনোভাবেই মুখ খুলতে রাজি হননি কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিরা। জেলার পাঁশকুড়া,  তমলুক,  হলদিয়া ও এগরায় বেশ কয়েকজন আক্রান্ত হয়। আর সেই কারনেই পূর্ব মেদিনীপুর জেলাকে রেড জোন হিসাবে ঘোষনা করা হয়। সূত্রের খবর পাঁশকুড়া,  তমলুক,  হলদিয়া ও এগরা পরিদর্শনে যাওয়ার কথা থাকলেও এদিন পাঁশকুড়ার পর এদিন হলদিয়া থেকে সোজা কলকাতায় রওনা দেয়।

SUJIT BHOWMIK

First published: April 27, 2020, 11:49 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर