• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • স্টেশনে আঁটোসাঁটো স্বাস্থ্যবিধি, করোনা সংক্রমণে রাশ টানতে থার্মাল স্ক্রিনিং চলছে সব যাত্রীর

স্টেশনে আঁটোসাঁটো স্বাস্থ্যবিধি, করোনা সংক্রমণে রাশ টানতে থার্মাল স্ক্রিনিং চলছে সব যাত্রীর

বাসিন্দাদের সুবিধার কথা ভেবে সাড়ে সাত মাস পর লোকাল ট্রেন চলাচল শুরু হলেও তার মাধ্যমে যাতে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে না পারে সে ব্যাপারে সতর্ক প্রশাসন।

বাসিন্দাদের সুবিধার কথা ভেবে সাড়ে সাত মাস পর লোকাল ট্রেন চলাচল শুরু হলেও তার মাধ্যমে যাতে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে না পারে সে ব্যাপারে সতর্ক প্রশাসন।

বাসিন্দাদের সুবিধার কথা ভেবে সাড়ে সাত মাস পর লোকাল ট্রেন চলাচল শুরু হলেও তার মাধ্যমে যাতে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে না পারে সে ব্যাপারে সতর্ক প্রশাসন।

  • Share this:

#বর্ধমান: বাসিন্দাদের সুবিধার কথা ভেবে সাড়ে সাত মাস পর লোকাল ট্রেন চলাচল শুরু হলেও তার মাধ্যমে যাতে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে না পারে সে ব্যাপারে সতর্ক প্রশাসন। রেল ও রাজ্য সরকারের তরফে করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে নানান সতর্কতামূলক ব্যবস্হা নেওয়া হয়েছে। বর্ধমান রেল স্টেশনে ধরা পড়ল সেই তৎপরতার ছবি।

এমনিতেই সংক্রমণ রুখতে ট্রেনের আসনে বসতে হচ্ছে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে। টানা তিনটি আসনে বসার ব্যবস্হা রয়েছে দুজনের। মাঝের আসনে ক্রস স্টিকার লাগানো হয়েছে। সেই নিয়ম মেনে চলা নিশ্চিত করতে নজরদারি চালাচ্ছে রেল পুলিশ ও রেল সুরক্ষা বাহিনী। রাজ্যের ব্যস্ত রেল স্টেশনগুলির মধ্যে অন্যতম বর্ধমান। স্বাভাবিক সময়ে প্রতিদিন গড়ে লক্ষাধিক যাত্রী এই স্টেশন ব্যবহার করেন।

বর্ধমান স্টেশনে ঢোকার মুখে থার্মাল স্ক্রীনিং চলছে প্রতিটি যাত্রীর। বর্ধমান রেল স্টেশনের মূল প্রবেশ দ্বার ও টিকিট কাউন্টার লাগোয়া ফুট ওভার ব্রিজে চলছে থার্মাল স্ক্রীনিং। দেহের তাপমাত্রা না মেপে কাউকেই স্টেশনে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে বেশি হলে বা করোনার অন্যান্য উপসর্গ থাকলে সেই সব যাত্রীদের আইসোলেশন রুমে নিয়ে যাওয়ার পরিকাঠামো তৈরি করা হয়েছে। এক নম্বর প্ল্যাটফর্মে ফুট ওভার ব্রিজে ওঠার ডানদিকে খোলা হয়েছে আইসোলেশন রুম।

রাখা হয়েছে অ্যাম্বুলেন্সও। কোনও যাত্রীর দেহে করোনার উপসর্গ মিললে আইসোলেশন রুম থেকে তাকে দ্রুত চিকিৎসার আওতায় নিয়ে আসতেই রাখা হয়েছে অ্যাম্বুলেন্স। বর্ধমান স্টেশনে স্বাস্থ্যবিধির ক্ষেত্রে এইসব ব্যবস্হা দেখে সন্তোষ প্রকাশ করছেন যাত্রীরাও। তাঁরা বলছেন, বর্ধমান রেল স্টেশনের পাশাপাশি সব স্টেশনেই এই ব্যবস্থা থাকা প্রয়োজন। সেই সঙ্গে এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে।

Saradindu Ghosh

Published by:Shubhagata Dey
First published: