Home /News /south-bengal /
Kharagpur shoot out: খড়্গপুরে ফের শ্যুটআউট, ব্যাঙ্কক থেকে ফিরতেই তৃণমূলকর্মীকে গুলিতে ঝাঁঝরা করল দুষ্কৃতীরা

Kharagpur shoot out: খড়্গপুরে ফের শ্যুটআউট, ব্যাঙ্কক থেকে ফিরতেই তৃণমূলকর্মীকে গুলিতে ঝাঁঝরা করল দুষ্কৃতীরা

নিহত যুবক প্রসাদ রাও৷

নিহত যুবক প্রসাদ রাও৷

গত ১৫ দিন আগে ব্যাঙ্কক গিয়েছিলেন প্রসাদ৷ সোমবার সকালেই খড়্গপুরে ফেরেন তিনি।

  • Share this:

    #শঙ্কর রাই, খড়্গপুর: ফের শ্যুট আউট রেল শহর খড়্গপুরে। সোমবার রাত ১০ টা নাগাদ চলল গুলি! গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হল ভেঙ্কট রাও ওরফে প্রসাদ রাও নামে বছর ৪২- এর তৃণমূল কর্মীর। 

    ঘটনাটি ঘটে খড়্গপুর ওল্ড সেটেলমেন্ট মাতা মন্দিরের সামনে। সেখানেই স্কুটি নিয়ে দাঁড়িয়ে বন্ধুদের সঙ্গে কথা বলছিলেন প্রসাদ। স্কুটিতে করে মুখঢাকা তিন যুবক এসে, প্রসাদকে লক্ষ্য করে গুলি করে পালিয়ে যায়। প্রসাদকে লক্ষ্য করে চার থেকে পাঁচ রাউন্ড গুলি চালানো হয় বলে অভিযোগ৷ গুলিবিদ্ধ যুবককে উদ্ধার করে খড়্গপুর রেলওয়ে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে হাসপাতালে পৌঁছন পৌরপ্রধান প্রদীপ সরকার সহ অন্যান্যরা। দুষ্কৃতীদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে খড়্গপুর টাউন থানার পুলিশ।

    জানা গিয়েছে, গত ১৫ দিন আগে ব্যাঙ্কক গিয়েছিলেন প্রসাদ৷ সোমবার সকালেই খড়্গপুরে ফেরেন তিনি। তিনি বিভিন্ন ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন বলে জানা গিয়েছে। এক সময় খড়্গপুরের ত্রাস শ্রীনু নাইডুর ঘনিষ্ঠ ছিলেন এই প্রসাদ, বলছেন অনেকেই। বর্তমানে তিনি খড়্গপুরের পুরপ্রধান প্রদীপ সরকারের ঘনিষ্ঠ ছিলেন৷ সোমবার রাতে তাঁকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি চালানো হয় বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। ঘটনাস্থলেই প্রসাদের মৃত্যু হয় বলেও জানা গিয়েছে।

    আরও পড়ুন: 'দিদি কিছু বলতে চাই', সভা শেষ করেই তৎপর মুখ্যমন্ত্রী ডাকলেন প্রতিবাদীদের, বললেন কথা

    ঘটনা ঘিরে রেল শহরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। দুষ্কৃতীদের ধরতে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ। তবে, রাজনৈতিক না কী ব্যক্তিগত কারণে এই খুন, তা স্পষ্ট নয়। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, পুরানো শত্রুতার জের হতে পারে! ঘটনার তদন্তে নেমেছে খড়্গপুর টাউন থানার পুলিশ।

    যদিও এই ঘটনায় পুলিশ এবং প্রশাসনের ব্যর্থতার দিকেই আঙুল তুলেছেন মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ৷ তিনি বলেন, 'সব জায়গায় দুষ্কৃতীদের মধ্যে লড়াই শুরু হয়ে গেছে। উনি ওখানকার চেয়ারম্যানের খাস লোক ছিলেন। শ্রীনুর সঙ্গে যোগাযোগ ছিল। খড়্গপুরকে যারা অশান্ত করে রেখেছে, তাদের বেশির ভাগই এখন গা ঢাকা দিয়ে রয়েছে। এদেরকে ব্যবহার করেই তৃণমূল ক্ষমতায় এসেছে। এটা প্রশাসনিক ব্যর্থতা ছাড়া কিছু না।'

    প্রসঙ্গত কিছু দিন আগেই মেদিনীপুরে প্রশাসনিক বৈঠক থেকে খড়্গপুর শহরের নিরাপত্তা নিয়ে পুলিশকে আরও কঠোর হতে নির্দেশ দিয়েছিলেন৷ গোটা শহরকে সিসিটিভি নজরদারির আওতায় নিয়ে আসতেও পুলিশকে নির্দেশ দেন তিনি৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    Tags: Dilip Ghosh, TMC

    পরবর্তী খবর