দিল্লি গেলেন দিব্যেন্দু অধিকারী, তুঙ্গে জল্পনা! দলত্যাগ নিয়ে কী বলছেন সাংসদ?

দিল্লি গেলেন দিব্যেন্দু অধিকারী, তুঙ্গে জল্পনা! দলত্যাগ নিয়ে কী বলছেন সাংসদ?
দিব্যেন্দু অধিকারী৷

এ দিনই আচমকা রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন দীনেশ ত্রিবেদী৷ তৃণমূলও ছেড়েছেন তিনি৷

  • Share this:

#কাঁথি: দীনেশ ত্রিবেদীর ইস্তফার দিনই দিল্লি গেলেন তমলুকের সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারী৷ ফলে তিনিও সাংসদ পদে ইস্তফা দিয়ে দল ছাড়বেন কি না, তা নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে৷ যদিও সেরকম কোনও সম্ভাবনা নিজে উড়িয়ে দিয়েছেন দিব্যেন্দু৷ তমলুকের সাংসদের দাবি, তিনি তৃণমূলেই আছেন৷

শুভেন্দু অধিকারী বিজেপি-তে যোগ দেওয়ার পর থেকেই শিশির অধিকারী এবং দিব্যেন্দু অধিকারীর সঙ্গেও শাসক দলের দূরত্ব তৈরি হয়েছে৷ শুভেন্দুর আর এক ভাই সৌমেন্দুও বিজেপি-তে যোগ দিয়েছেন৷ এই পরিস্থিতিতে কয়েকদিন আগেই জানা যায়, দিল্লি গিয়ে লোকসভার অধ্যক্ষ ওম বিড়লার সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন তিনি৷ সাংসদ পদেও ইস্তফা দেবেন৷ ১০ ফেব্রুয়ারি এই সাক্ষাৎ হওয়ার কথা ছিল৷

যদিও ১০ তারিখ পেরিয়ে গেলেও দিব্যেন্দু দিল্লি যাননি৷ তবে এ দিন তিনি দিল্লি যাওয়ার কথা নিজেই স্বীকার করে নিয়েছেন৷ দিব্যেন্দুর অবশ্য দাবি, লোকসভার একটি স্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠক রয়েছে আগামিকাল৷ তিনি সেই বৈঠকেই অংশ নিতে যাচ্ছেন৷ লোকসভার অধ্যক্ষের সঙ্গেও তাঁর সাক্ষাৎ করার কোনও পরিকল্পনা নেই বলে জানিয়েছেন তমলুকের তৃণমূল সাংসদ৷


এ দিনই আচমকা রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন দীনেশ ত্রিবেদী৷ তৃণমূলও ছেড়েছেন তিনি৷ গোটা বিষয়টিকে দীনেশ ত্রিবেদীর ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত বলেও এড়িয়ে গিয়েছেন তিনি৷ ইস্তফা দিয়ে দীনেশ ত্রিবেদী অভিযোগ করেছেন, তৃণমূলে তাঁর দমবন্ধ হয়ে আসছিল৷ দিব্যেন্দু অবশ্য দিল্লি যাওয়ার পথে বলেন, 'আমার তো সেরকম মনে হচ্ছে না৷ আমি দম নিতে পারছি৷' একই সঙ্গে দিব্যেন্দু বলেন, 'আমি তৃণমূলেই আছি৷' যদিও কতদিন তিনি শাসক দলে আছেন, সেই প্রশ্নের স্পষ্ট উত্তর দেননি তিনি৷

তবে দিব্যেন্দু তৃণমূলে থাকার কথা বললেও তৃণমূল আদৌ তাঁকে এবং শিশির অধিকারীকে দলে চাইছে কি না, সেই প্রশ্নও উঠছে রাজনৈতিক মহলে৷ কারণ প্রকাশ্যেই অধিকারী পরিবারের দলের দুই সাংসদকে কটাক্ষ করতেও পিছপা হচ্ছেন না তৃণমূল নেতারা৷ তাই দিব্যেন্দু মুখে যাই বলুন না কেন, তাঁর দিল্লি যাত্রা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে কৌতূহল তুঙ্গে৷

Sujit Bhowmik
Published by:Debamoy Ghosh
First published: