• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • TMC LEADERS HIRE CHEER LEADERS FOR KHELA HOBE DAY FOOTBALL MATCH IN BURDWAN DMG

Khela Hobe: 'খেলা হবে' দিবসে আনা হল চিয়ার লিডার! তৃণমূলের সংস্কৃতিকে কটাক্ষ বিজেপি-র

খেলা হবে দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ফুটবল ম্যাচে হাজির চিয়ার লিডাররাও৷

পূর্ব বর্ধমানের ভাল্কি এলাকার রানিগঞ্জ মাঠে খেলা দিবস উপলক্ষে সোমবার ফুটবল প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয় (Khela Hobe)।

  • Share this:

#বর্ধমান: খেলা হবে  দিবস অনুষ্ঠানে চিয়ার লিডার! পূর্ব বর্ধমান জেলার আউশগ্রামের ভাল্কি অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে খেলা দিবস অনুষ্ঠানে হাজির মহিলা চিয়ার লিডাররাও। খেলা হবে গানের তালে নেচে দর্শকদের মনোরঞ্জনের জন্য তাঁদের নিয়ে আসা হয়েছিল বলে জানিয়েছে স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে জেলায় জোর রাজনৈতিক চাপানউতোরও শুরু হয়েছে। তৃণমূল অপসংস্কৃতি আমদানি করেছে,  এমন অভিযোগে সরব হয়েছে বিজেপি।

পূর্ব বর্ধমানের ভাল্কি এলাকার রানিগঞ্জ মাঠে খেলা দিবস উপলক্ষে সোমবার ফুটবল প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। প্রদর্শনী ফুটবল প্রতিযোগিতায় দর্শক হিসেবে অনেকেই উপস্থিত হয়েছিলেন। সেই খেলাতেই মাঠের একদিকে তৃণমূল নেতাদের জন্য  মঞ্চ করা হয়৷ মাঠের অন্যদিকে চিয়ার লিডারদের জন্য করা মঞ্চ তৈরি করে দেওয়া হয়৷ সেখানেই গানের তালে নাচতে দেখা যায় চিয়ার লিডারদের৷ ঠিক যেমনটা দেখা যায় আইপিএল-এ।

তৃণমূল কংগ্রেসের খেলা হবে অনুষ্ঠানে চিয়ার লিডার কেন? এ প্রশ্ন তোলেন এলাকার বাসিন্দাদের অনেকেই। সাংবাদিকরা সেই প্রশ্ন করতেই ভাল্কি অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অরুপ মিদ্যার দাবি, 'এলাকার মানুষের অনুরোধেই  বাইরে থেকে চিয়ার লিডার নিয়ে আসতে হয়েছে৷' তাঁর আরও যুক্তি, দীর্ঘদিন ধরে সিনেমা হলও  বন্ধ। তাই এলাকার মানুষের চাপে পড়ে  তাঁদের মনোরঞ্জনের জন্যই চিয়ার লিডারদের আনা হয়েছে।

যদিও বিতর্ক তাতে থামছে না। শাসক দলের রাজনৈতিক কর্মসূচিতে মহিলা চিয়ার লিডার থাকা কতটা যুক্তিযুক্ত তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছেই। করোনা স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে অনেকের মুখেই মাস্কও ছিল না।

এদিকে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। বিজেপি-র অভিযোগ, তৃণমূলের আমলে অপসংস্কৃতির আমদানি ঘটেছে।যদিও তৃণমূলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দলীয় স্তরে এ ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে দেখা হচ্ছে। এ দিন বর্ধমান শহর সহ জেলার সব প্রান্তেই উৎসাহ উদ্দীপনার সঙ্গে খেলা হবে দিবস পালিত হয়।

Published by:Debamoy Ghosh
First published: