দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

এবার বেসুরো বর্ধমানের তৃণমূল নেতা খোকন দাস, প্রকাশ্যে দল ছাড়ার হুমকি

এবার বেসুরো বর্ধমানের তৃণমূল নেতা খোকন দাস, প্রকাশ্যে দল ছাড়ার হুমকি
এবার বিক্ষুব্ধ খোকন দাস।

শুভেন্দু অধিকারী বা জিতেন্দ্র তেওয়ারির মতো বর্ধমানের তৃণমূল কংগ্রেস নেতা খোকন দাসের প্রকাশ্যে এই সমালোচনাকে ঘিরে শহর জুড়ে ব্যাপক আলোড়ন তৈরি হয়েছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: এবার বেসুরো বর্ধমানের তৃণমূল কংগ্রেস নেতা খোকন দাস। বর্ধমানের কাঞ্চননগরে অনুগামীদের নিয়ে সভা করে প্রকাশ্যেই দলীয় নেতৃত্বকে একহাত নিলেন দলের অন্যতম জেলা সাধারণ সম্পাদক তথা বর্ধমান পৌরসভার প্রাক্তন কাউন্সিলর খোকন দাস। রাজ্য নেতৃত্ব থেকে শুরু করে জেলা সভাপতি সমালোচনা করার ক্ষেত্রে কাউকেই ছাড় দেননি তিনি। আগামী বিধানসভা নির্বাচনের প্রচার শুরু করে দিয়েছে সব রাজনৈতিক দল।সেই সঙ্গেই চলছে তৃণমূলের দল গোছানোর কাজ। ঠিক সেই সময় শুভেন্দু অধিকারী বা জিতেন্দ্র তেওয়ারির মতো বর্ধমানের তৃণমূল কংগ্রেস নেতা খোকন দাসের প্রকাশ্যে এই সমালোচনাকে ঘিরে শহর জুড়ে ব্যাপক আলোড়ন তৈরি হয়েছে।

দলীয় নেতৃত্বের কড়া সমালোচনা করে প্রয়োজনে দল ছাড়ার হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন বর্ধমান শহরে দলে কোণঠাসা হয়ে পড়া এই নেতা। সম্প্রতি বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছে বর্ধমান পৌরসভার প্রাক্তন পৌরপ্রধান আইনুল হক। দীর্ঘদিন তিনি সিপিএমের গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিলেন। গত বিধানসভা নির্বাচনে তিনি ছিলেন বর্ধমান দক্ষিণ কেন্দ্রের বাম প্রার্থী। এরপর তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন অনুগামীদের নিয়ে। সম্প্রতি তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য নেতৃত্বের কাছে তিনি সে দলে যোগদান করেন। খোকন দাস প্রকাশ্যে বলেন, দল ছেড়ে দেব তবু আইনুল হককে নেতা হিসেবে মেনে নেব না।

তাঁর যুক্তি, পাঁচ বছর আগে এই আইনুল হক সিপিএমের প্রার্থী ছিল দল সেটা ভুলে গেছে। রাজ্য নেতারা ওকে নিয়ে চলুক, আমি চলব না। জেলা সভাপতি পাশের চেয়ারে ওকে বসাক, আমি অন্তত তার সঙ্গে দল করতে পারবো না।

তিনি বলেন,আইনুল হকদের মতো নেতাদের সামনে এনে খোকন দাসকে কোণঠাসা করতে চাইছে দলের একটা অংশ।খোকন দাসকে অত সহজে শেষ করা যাবেনা।

তিনি বলেন, ধাপ্পাবাজ তোলাবাজে দল ভরে গেছে। চাকরি দেওয়ার নাম করে টাকা নেওয়া হচ্ছে। সেই সব লোকদেরই দলের মুখ হিসেবে তুলে ধরা হচ্ছে। তিনি বলেন,নেতাদের ঘরে বসে নয়, সাধারণ মানুষ, রিকশাচালক, সবজি বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে সামনের সারিতে কারা থাকবে তা নির্ধারণ করুন দল।

গত কয়েকদিন ধরেই বিভিন্ন সভা অনুষ্ঠানে প্রকাশ্যেই দলীয় নেতৃত্বের কড়া সমালোচনা করে চলেছেন এই নেতা। তবে এদিনের সমালোচনার সুর ছিল আরও চড়া। দলের জেলা নেতৃত্ব এখনই ব্যাপারে প্রকাশ্যে মন্তব্য করতে চাননি। দলে খোকন বিরোধী হিসেবে পরিচিত নেতারা বলছেন, খোকন দাস একসময় কাউন্সিলর ছিলেন। এর বেশি তার কোনও গুরুত্ব নেই। তাছাড়া নানা কারণে দল তার প্রতি আস্থা হারিয়েছে। দলে একেবারে কোনঠাসা হয়ে পড়েছেন বুঝতে পেরেই তিনি এখন হালে পানি পেতে বেসুরো গাইছেন। হয়তো তিনি এরপর বিজেপিতে যোগ দেবেন।তিনি থাকুন বা না থাকুন তাতে দলের কিছু আসে যায় না। তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা মুখপাত্র প্রসেনজিৎ দাস বলেন,প্রয়োজন বুঝেছে বলেই আইনুল হককে দলে নিয়েছে রাজ্য নেতৃত্ব। তাদের সেই সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে আমাদের কাজ করা উচিত।

Published by: Arka Deb
First published: December 15, 2020, 2:00 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर