প্রতিষ্ঠা দিবসে প্রকাশ্যে কোন্দল,প্রকাশ্যে বেলাগাম তৃণমূলের এই শ্রমিক নেতা

প্রতিষ্ঠা দিবসে প্রকাশ্যে কোন্দল,প্রকাশ্যে বেলাগাম তৃণমূলের এই শ্রমিক নেতা

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শহর জুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শহর জুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: নতুন বছরের শুরুর মুহূর্তে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের প্রকাশ্যে গোষ্ঠী কোন্দল চাক্ষুষ করল পূর্ব বর্ধমান জেলার সদর শহর। ইংরেজি নতুন বছরের সূচনালগ্নে দলের প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে নজিরবিহীনভাবে দলেরই একাংশকে আক্রমণ করলেন তৃণমূল কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠনের জেলা সভাপতি। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শহর জুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

বর্ধমানে দলের প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল প্রকাশ্যে চলে আসায় যথেষ্টই অস্বস্তিতে জেলা নেতৃত্ব। তবে তারা এ ব্যাপারে সংবাদ মাধ্যমের সামনে মন্তব্য করতে না চাইলেও দলের শহর নেতাদের সংযত থাকার বার্তা দিয়েছেন। জেলা নেতৃত্ব জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে আইএনটিটিইউসি সভাপতি কি বলেছেন তা বিস্তারিত জানার পর এ ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানানো হবে।

দলের প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীনেতাদের একাংশের বিরুদ্ধে বিষোদগার করেছেন দলেরই শ্রমিক সংগঠনের জেলা সভাপতি। আইএনটিটিইউসির জেলা সভাপতি ইফতিকার আহমেদের বক্তব্যে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। দুদিন আগেই বর্ধমানের কার্জনগেটে বঙ্গধ্বনি যাত্রার সভায় দলের অন্যতম সাধারণ সম্পাদক খোকন দাসকে উদ্দেশ্য করে বিজেপির দালাল দূর হঠো বলে স্লোগান দেয় দলীয় কর্মী নেতাদের একাংশ। সেই ঘটনার প্রতিবাদ জানাতে আইএনটিটিইউসি জেলা সভাপতি ইফতিকার আহমেদ বর্ধমান রেল স্টেশন চত্বরে দলের প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠান মঞ্চে সুর চড়ান। খোকন দাসকে উদ্দেশ্য করে বিক্ষোভ দেখানো নেতা কর্মীদের নজিরবিহীন হুমকি দেন। তিনি বলেন, খোকন দাসকে হেনস্তা করা হলে রক্ত ঝড়বে। অশান্ত হয়ে উঠবে বর্ধমান শহর। এমনকি ওই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হলে আর ছেড়ে কথা বলা হবে না বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

প্রসঙ্গত, বর্ধমানের প্রাণকেন্দ্র কার্জন গেট এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেসের পূর্ব বর্ধমান জেলার সভাপতি স্বপন দেবনাথ, তৃণমূল যুব কংগ্রেসের জেলা সভাপতি রাসবিহারী হালদার সহ জেলা নেতাদের সঙ্গেই সেদিন মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন অন্যতম সাধারণ সম্পাদক খোকন দাস। তাদের উপস্থিতিতে মঞ্চের সামনে থেকে খোকন দাসকে বিজেপির দালাল আখ্যা দিয়ে দূর হঠো স্লোগান দেওয়া হয়। তারপর দু দিন কেটে গেলেও জেলা নেতৃত্ব ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে কোনও মুখ খোলেনি সে কারণেও যথেষ্ট ক্ষুব্ধ খোকন দাসের অনুগামীরা। সে কারণে বক্তব্য রাখতে গিয়ে আইএনটিটিইউসি জেলা সভাপতি ইফতিকার আহমেদ জেলার নেতা মন্ত্রীদেরও একহাত নেন।

Published by:Arka Deb
First published: