সাড়ে তিন ঘণ্টার অঝোরে বৃষ্টিতে বানভাসি খড়গপুর, দুর্দশার কারণ নিকাশির অভাব

এগারো বছর আগের স্মৃতি ফিরল খড়গপুরে। ভাসল স্টেশন। বেলা পর্যন্ত থমকে রেল যোগাযোগ।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 27, 2019 04:17 PM IST
সাড়ে তিন ঘণ্টার অঝোরে বৃষ্টিতে বানভাসি খড়গপুর, দুর্দশার কারণ নিকাশির অভাব
পুর ও পঞ্চায়েত প্রতিটি এলাকাই কার্যত জলের তলায়
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 27, 2019 04:17 PM IST

#খড়গপুর: সাড়ে তিন ঘণ্টার অঝোর বৃষ্টি। এগারো বছর আগের স্মৃতি ফিরল খড়গপুরে। ভাসল স্টেশন। বেলা পর্যন্ত থমকে রেল যোগাযোগ। পুর ও পঞ্চায়েত প্রতিটি এলাকাই কার্যত জলের তলায়। নিকাশির অভাবেই এই দুর্দশা। অভিযোগ এলাকাবাসীর। চেয়ারম্যানের স্বীকারোক্তি প্রকৃতির কাছে হার পরিষেবার।

রবিবার রাত দেড়টা থেকে চারটে। সাড়ে তিন ঘণ্টার নাগাড় স্পেলে খড়গপুরকে ভাসিয়ে দিল বৃষ্টি। ফিরিয়ে দিল দু’হাজার আট সালের স্মৃতি।

রাতের বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত সড়ক যোগাযোগ। মূল শহরের রাস্তায় জলের তোড়। খড়গপুর স্টেশনের সামনেই হাঁটু জল। সাবওয়ে ডুবে কোমড় জলে। জলের নীচে রেল। বেলা দশটা পর্যন্ত বন্ধ থাকে ট্রেন চলাচল। তারপর ধীরে ধীরে তা স্বাভাবিক হয়। এরমধ্যেই শহরের মধ্যে হু হু করে জল ঢুকতে থাকে। পুরসভার পঁয়তিরিশটি ওয়ার্ডের মধ্যে বেশির ভাগই জলের তলায়। পঁচিশ নম্বর ওয়ার্ডে জলের তলায় সিলভার জুবলি হাইস্কুল। ওই এলাকাতেই পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে গেলে ক্ষোভের মুখে পড়েন খড়গপুর পুরসভার চেয়ারম্যান প্রদীপ সরকার। নিকাশি নেই। অভিযোগ এলাকাবাসীর। কাজ করছে পুরসভা, পালটা দাবি চেয়ারম্যানের।

এদিন সকালেও বৃষ্টি হয়েছে খড়গপুরে। এগারোটা থেকে নতুন করে বৃষ্টি শুরু হয়। ফলে জল আরও বাড়ে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, নিকাশির অভাবে পাশের এলকার জলও এখানে এসে পড়েছে। তার জেরে বেশির ভাগ এলাকায় ঘরের মধ্যেও জল ঢুকেছে। নতুন করে বৃষ্টি না হলে জল নামতে দু’থেকে তিন দিন সময় লাগবে বলে দাবি পুর প্রশাসনের।

First published: 04:17:32 PM Aug 27, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर