corona virus btn
corona virus btn
Loading

জামরুলের লোভে গাছে উঠে বিপত্তি, জালে জড়িয়ে প্রাণান্তকর দশা তিন হনুমানের

জামরুলের লোভে গাছে উঠে বিপত্তি, জালে জড়িয়ে প্রাণান্তকর দশা তিন হনুমানের

এলাকায় হনুমানের উপদ্রব। তাদের হাত থেকে ফল বাঁচাতে গাছ ঘিরে দিয়েছিলেন মাছ ধরার জাল দিয়ে।

  • Share this:

#বর্ধমান: কি সাংঘাতিক ঘটনা! পশু পাখির হাত থেকে জামরুল বাঁচাতে গাছে জাল বিছিয়ে দিয়েছিলেন বাড়ির মালিক। সেই জালের ফাঁসে জড়িয়ে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে পড়ল একটি হনুমানের বাচ্চা। আরও দুটি শিশু হনুমান সেই জালে আটকে পড়েছিল। স্থানী বাসিন্দাদের  থেকে খবর পেয়ে বন দফতরের কর্মীরা সেই দুটি বাচ্চাকে উদ্ধার করেছে। শনিবার বর্ধমান শহরের মালঞ্চ পাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার পর গাছের মালিকের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেন এলাকার বাসিন্দারা। জাল খুলে ফেলতে তাঁকে বাধ্য করা হয়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়।

বাড়ির বাগানে জামরুল সহ অন্যান্য ফলের গাছ লাগিয়েছিলেন এক ব্যক্তি। তিনি বর্ধমান শহরের একটি স্কুলের শিক্ষক বলে জানা গিয়েছে। এলাকায় হনুমানের উপদ্রব। তাদের হাত থেকে ফল বাঁচাতে গাছ ঘিরে দিয়েছিলেন মাছ ধরার জাল দিয়ে। আজ সকালে হনুমানের দল সেই বাগানের কাছে আসে। তিনটি শিশু হনুমান আম খেতে গাছে ওঠে। আর তখনই জালের ফাঁসে আটকে যায় তারা। ফাঁসে শ্বাস আটকে একটি শিশু হনুমানের অচৈতন্য হয়ে পড়ে। অসুস্থ হয়ে পড়ে আরও একটি হনুমান শিশু।

এলাকায় হনুমানের উপদ্রব। তাদের হাত থেকে ফল বাঁচাতে গাছ ঘিরে দিয়েছিলেন মাছ ধরার জাল দিয়ে।এলাকায় হনুমানের উপদ্রব। তাদের হাত থেকে ফল বাঁচাতে গাছ ঘিরে দিয়েছিলেন মাছ ধরার জাল দিয়ে।

স্থানীয় বাসিন্দারা সেই দৃশ্য দেখে খবর দেয় বন দফতর। বন দপ্তরের কর্মীরা খবর পেয়ে এসে জাল কেটে হনুমান দুটিকে উদ্ধার করে। ঘটনার পর এলাকার বাসিন্দারা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। বাড়ির মালিক জানিয়েছেন পশু পাখিদের জন্য নয়, আম চুরি রুখতে এই ব্যবস্থা করা হয়েছিল। আর কখনও গাছে জাল লাগাবেন না বলেও তিনি এলাকার বাসিন্দাদের কথা দিয়েছেন।

স্থানীয় এক বাসিন্দা বললেন, হনুমানগুলি লাফালাফি করছে দেখে আমরা গাছের দিকে তাকাই। তখন দেখি জাল একটি শিশু হনুমান ঝুলছে। দুটো শিশু আটকে পড়েছে। আমাদেরই কয়েকজন ওই হনুমান দুটিকে উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়েছিল। কিন্তু  বড় হনুমানগুলি  ভয় পেয়ে তাদের দিকে তেড়ে আসছিল। আমরা নিজেরা উদ্ধার করতে না পেরে বনদপ্তরকে খবর দিই। তারা এসে তিনটি শিশু হনুমানকে  উদ্ধার করে নিয়ে গিয়ে তাদের মায়ের কাছে রাখে। এরপর হনুমানের দল ওই তিনটি শিশু হনুমানকে নিয়ে এলাকা ছাড়ে। এলাকায় অনেকেই ফল গাছে জাল লাগিয়েছিলেন। বন দফতরের কর্মীরা এলাকার যুবকদের নিয়ে সেই জাল সকলকে খুলে নিতে বাধ্য করে।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: May 23, 2020, 4:19 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर