corona virus btn
corona virus btn
Loading

লক ডাউনঃ বন্ধ ট্রেন-বাস, দলে দলে শ্রমিক হেঁটে চলেছেন জাতীয় সড়ক ধরে! কোথায় যাচ্ছেন তাঁরা?

লক ডাউনঃ বন্ধ ট্রেন-বাস, দলে দলে শ্রমিক হেঁটে চলেছেন জাতীয় সড়ক ধরে! কোথায় যাচ্ছেন তাঁরা?

তাঁরা কেউ মুর্শিদাবাদের বাসিন্দা। অনেকের বাড়ি বিহার ঝাড়খন্ডের নানা প্রান্তে।

  • Share this:

#বর্ধমানঃ কোথায় লক ডাউন! কোথায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা! এতো শুধুই মানুষের মাথার মিছিল। দু'নম্বর জাতীয় সড়ক জুড়ে শুধুই মানুষ। শয়ে শয়ে মানুষ হাঁটছেন। সমুদ্রের ঢেউয়ের মত আসছেন দলে দলে। ওরা কাজ করেন। ওদের কোনও সীমানা নেই। বিভিন্ন রাজ্যে ছড়িয়ে রয়েছেন তাঁরা। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে লক ডাউনে কাজ বন্ধ। উপার্জন বন্ধ হয়ে গিয়েছে। খাবার নেই। অর্থের অভাব। লক ডাউনের জন্য বন্ধ গণ পরিবহনও। তাই পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরছেন তাঁরা। অনেকের বাড়ি দু'শো, তিনশো কিংবা পাঁচশো কিলোমিটার দূরে। অনেকে বুঝছেন এই গরমে এতটা পথ হেঁটে যাওয়া অসম্ভব। অনেকের সেই শক্তিও নেই। কিন্তু উপায় কি?

পরিযায়ী শ্রমিক। মাথায় চৈত্রের আগুনঝড়া রোদ। তা উপেক্ষা করেই চলেছে বাড়ি ফেরার আশায়। তাঁরা কেউ মুর্শিদাবাদের বাসিন্দা। অনেকের বাড়ি বিহার ঝাড়খন্ডের নানা প্রান্তে। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে  কাজ করতে গিয়েছিলেন। কেউ গিয়েছিলেন কটকে। কেউ গিয়েছিলেন কলকাতায়। কেউ বা আবার হুগলিতে  আলু তোলার কাজে।

কাজ বন্ধ। খাবার নেই। তাই তাঁরা বাধ্য হয়েই বেড়িয়ে পড়েছেন বাড়ির উদ্দেশ্যে। দীর্ঘ পথ হাঁটতে হাঁটতে অনেকে ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন। খিদের জ্বালায় আর পা চালাতে পারছেন না। তেষ্টায় বুকের ছাতি ফেটে যাচ্ছে। তবু বাড়ি যে ফিরতে হবে। পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসনের তরফে তাদের আটকে দেওয়া হয়েছে জামালপুরের জৌগ্রামে।এদিন পঞ্চায়েত,পঞ্চায়েত সমিতি ও ব্লক প্রশাসন জৌগ্রামে তাদের পথ আটকায়।  তাদের স্থানীয় একটি স্কুলে রাখার ব্যবস্থা হয়েছে। সেখানেই তাদের খাবারেরও ব্যবস্থা করেছে প্রশাসন। বিশ্রাম নেওয়ার আবেদন করা হয়েছে।

জামালপুরের বিডিও শুভঙ্কর মজুমদার জানিয়েছেন, সোমবার দুপুর পর্যন্ত ৪২৫ জনের নাম নথিভুক্ত করা হয়েছে। তাঁরা কোথায় যাবেন তার তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। প্রশাসনের পরবর্তী নির্দেশ আসা না পর্যন্ত তাঁদের স্কুলে রেখে খাওয়ানোর ব্যবস্থা হবে। তাঁদের স্বাস্থ্য পরীক্ষাও করা হবে।

Saradindu Ghosh

Published by: Shubhagata Dey
First published: March 30, 2020, 4:51 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर